করোনাকে ছোঁয়াচে ও মহামা’রী বলা কুফরি ও শিরক: মাওলানা শরীয়তপুরী

0

সময় এখন ডেস্ক:

করোনা ভাইরাস ছোঁয়াচে ও মহামা’রী নয় দাবি করে স্বতন্ত্র সংগঠন ওলামা লীগের নেতারা বলেছেন, সামাজিক দূরত্বের বিধি মেনে মসিজদে সীমিত পরিসরে জামাত একটি কুফুরি মতবাদ।

সোমবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধন থেকে এ ধরনের বক্তব্য দেন তার।

ওলামা লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান শেখ শরীয়তপুরী বলেন, ইসলামিক ফাউন্ডেশন করোনা ভাইরাসকে মহামা’রী বলেছে, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। কারণ মহামা’রী হয় একটি নির্দিষ্ট এলাকায়, আর করোনা হয়েছে সারা বিশ্বে। অপরদিকে ইসলামে দৃষ্টিতে মহামা’রী তাকেই বলে যেখানে ঘণ্টায় কমপক্ষে ২০ হাজার লোক মা’রা যায়। কিন্তু বাংলাদেশে প্রতিদিন করোনায় মাত্র ৩০-৩৫ জনের মৃ’ত্যু কখনই প্রমাণ করে না করোনা ভাইরাস মহামা’রী তৈরি করেছে।

করোনা ভাইরাস ছোঁয়াচে নয় দাবি করে তিনি বলেন, এ বিষয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ফতোয়াকে রাজারবাগ দরবার শরীফ সম্পূর্ণ মিথ্যা দাবি করে কোটি টাকার চ্যালেঞ্জ দিয়ে প্রকাশ্যে বাহাসের আমন্ত্রণ জানিয়েছে। ওলামা লীগও বাহাসে আমন্ত্রণ জানাচ্ছে।

মসজিদে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে জামাত প্রসঙ্গে আবুল হাসান বলেন, করোনার অজুহাতে পবিত্র মসজিদ ও মাদ্রাসা বন্ধ করা, ফাঁকা করে নামাজে দাঁড়ানো, ৫ জনের বেশি মুসল্লি না হওয়া, মাঠে ঈদের জামাত করতে না দেওয়া ওহাবি, জামাতিদের ফতোয়া, যা সম্পূর্ণ কুফরি। দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমান এতে সরকারের প্রতি ক্ষু’ব্ধ হচ্ছে। জামাতিদের এই ফতোয়া বাতিল করতে হবে।

মানববন্ধনে ওলামা লীগের সভাপতি মো. আক্তার হোসেন বুখারী বলেন, কোরবানির ঈদে করোনা ভাইরাসের মিথ্যা প্রচারণা শক্ত হাতে বন্ধ করতে হবে। কুরবানি যাতে বা’ধাগ্রস্ত না হয়, গরিবের হক যাতে ন’ষ্ট না হয় তার জন্য শক্তিশালী পদক্ষেপ নিতে হবে। মূলত করোনা ভাইরাস হল গজব, এ থেকে রক্ষা পেতে বেশি বেশি তওবা ইস্তেগফার, বেশি বেশি পবিত্র মিলাদ শরীফ পড়তে হবে এবং পবিত্র সুন্নতি খাবার খেতে হবে।

লকডাউন তুলে নেওয়ার দাবি জানিয়ে আক্তার হোসেন বুখারি বলেন, বিএনপি জামাতের সুরে সুরে সুর মিলিয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সাবেক দুর্নীতিবাজ নিয়োগপ্রাপ্ত জামাতি, ধর্মব্যবসায়ী মাওলানারা এসব ফতোয়া দিয়েছে। সরকারকে লকডাউন করতে বাধ্য করেছে, অথচ খোদ ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক প্রকাশিত বুখারী শরীফ, মুসলিম শরীফ, তিরমিজি শরীফ, আবু দাউদ শরীফ, ইবনে মাজাহ শরীফের বাংলা অনুবাদে উল্লেখ আছে সং’ক্রামক রোগ বলতে কোনো কিছু নেই, ছোঁয়াচে রোগ বলে বিশ্বাস করা কুফরি ও শিরকি।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এই ফতোয়া চরম মূর্খতা ও স্ব-বিরো’ধিতামূলক। বিএনপি-জামাত এবং মোনাফেক কওমি মাওলানা গোষ্ঠী ও ধর্মব্যবসায়ী মাওলানাদের ষড়’যন্ত্র ন’স্যাৎ করতে লকডাউন তুলে দিতে হবে। করোনা নিয়ে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এই ফতোয়া বাতিল করতে হবে।

মানববন্ধনে লকডাউন তুলে দেওয়াসহ ৭ দফা দাবি তুলে ধরেন সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান শেখ শরিয়তপুরী। সম্মিলিত ইসলামী গবেষণা পরিষদের সভাপতি মুহম্মদ আব্দুস সাত্তারসহ ওলামা লীগের নেতারাও বক্তব্য দেন।

শেয়ার করুন !
  • 1.8K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!