শ্বশুরবাড়িতে খু’ন হওয়া ঢাবি ছাত্রী সুমাইয়ার রেজাল্ট বেরিয়েছে, পেয়েছেন ফার্স্ট ক্লাস!

0

সময় এখন ডেস্ক:

পরীক্ষার ফল দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খু’ন হয়ে যাওয়া ছাত্রী সুমাইয়া বেগমের। তিনি সিজিপিএ ৩.৪৪ পেয়ে প্রথম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হয়েছেন। আজই ফলাফল দিয়েছে তার। এ তথ্য নিশ্চিত করেন ঢাবির ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান শামসুল আলম।

গত সোমবার (২২ জুন) সকালে নাটোর সদর হাসপাতালে সুমাইয়াকে মৃ’ত অবস্থায় ফেলে তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ওই দিন রাতেই সুমাইয়ার মা নুজহাত সুলতানা নাটোর সদর থানায় ৪ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা করেন।

ঢাবির ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের এ শিক্ষার্থী মাস্টার্স পরীক্ষা শেষে ফলাফলের অপেক্ষায় ছিলেন। তিনি বিসিএস ও সরকারি চাকরির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান শামসুল আলম বলেন, সুমাইয়ার রেজাল্ট দিয়েছে। সে সিজিপিএ ৩.৪৪ পেয়ে প্রথম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হয়েছে। তার মৃ’ত্যুতে আমরা শোকাহত। সে খুবই মেধাবী ছাত্রী ছিল। আমরা এ ঘটনার বিচার চাই। শুধু করোনা পরিস্থিতির কারণে প্রতিবাদ কর্মসূচি বা মানববন্ধনের আয়োজন করা যায়নি।

এদিকে পুলিশ সুমাইয়ার স্বামী মোস্তাক হোসাইন ও শ্বশুর জাকির হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে। বৃহস্পতিবার (২৫ জুন) দুপুরে এক ব্রিফিংয়ে পুলিশ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বুধবার (২৪ জুন) সন্ধ্যার পর রাজশাহী পিবিআইয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবুল কালাম আজাদের নেতৃত্বে পিবিআইয়ের সদস্যরা তদন্তে নামেন। এ সময় পিবিআইয়ের সদস্য শহরের বলারীপাড়া সুমাইয়া খাতুনের বাড়িতে যান। এ সময় তারা সুমাইয়ার মা ও ভাইয়ের সাথে কথা বলেন।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ সালে মোস্তাকের সঙ্গে বিয়ে হয় সুমাইয়ার। বাবা সিদ্দিকুর ছিলেন একজন নামকরা ইসলামি বক্তা। তার অনুপ্রেরণাতেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগে ভর্তি হয়েছিলেন সুমাইয়া। ভর্তির ৩ বছরের মাথায় বাবার পছন্দেই মোস্তাককে বিয়ে করেন। কিন্তু শ্বশুরবাড়ির লোকজন পড়ালেখায় বাদ সাধে। পড়াশোনার বদলে গৃহস্থালির কাজে মনোযোগ দেওয়ার তাগিদ আসে।

পড়ালেখার খরচ বাবা সিদ্দিকুরই দিতেন। তাই পড়ালেখা বন্ধ করতে হয়নি সুমাইয়াকে। প্রথম শ্রেণিতে স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর উত্তীর্ণ হন তিনি। ঢাকায় থেকে বিসিএস পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। হঠাৎ গত সেপ্টেম্বরে বাবা সিদ্দিকুর মা’রা যান। এতে অর্থের অভাবে পড়েন সুমাইয়া। শ্বশুরবাড়ি থেকে সহযোগিতার পরিবর্তে চাকরির চিন্তা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলে পুরোপুরি সংসারী হওয়ার নির্দেশ আসে। কিন্তু সবকিছু ভুলে বিসিএস পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়েই ডুবে ছিলেন সুমাইয়া। তবে শেষ পর্যন্ত জীবনের কাছে তাকে হার মানতে হয়েছে তার।

পরিবারের অভিযোগ, গত রোববার রাতে সুমাইয়াকে তার স্বামীর ঘরে নিপী’ড়ন করা হয়। এক পর্যায়ে অ’চেতন দেখে ঘটনাটি আত্মহ’ত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলেছে। গতকাল দুপুরে মা নুজহাত বেগম যখন নাটোর সদর হাসপাতালে পৌঁছান, তখন সুমাইয়ার স্বামী মোস্তাক, শ্বশুর জাকির বা ওই পরিবারের কাউকে পাননি। সবাই গা-ঢাকা দিয়েছেন। ময়নাতদন্ত শেষে রাতে নাটোরের একটি কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!