কী ঘটতে চলেছে ৩০ জুন?

0

বিশেষ প্রতিবেদন:

আগামী ৩০ জুন বাংলাদেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক এবং পর্যবেক্ষক মহল। তাদের মতে, ৩০ জুনের পর রাজনীতিতে, অর্থনীতিতে এবং জনস্বাস্থ্যের বিষয়ে অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা ঘটতে যাচ্ছে। এ দিন জাতীয় সংসদে বাজেট পাশ হবে। এখন সবকিছু থমকে আছে বাজেট পাশের জন্য। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার অপেক্ষায় আছেন, যা বাজেট পাশের পর দেখা যেতে পারে।

সাধারণত বাজেটের সময় অর্থনৈতিক বিষয়ের দিকে মনোযোগ দেওয়া হয় এবং এজন্য অন্যান্য বিষয়গুলোকে কিছুটা হলেও উ’পেক্ষা করা হয়। প্রশ্ন হলো, ৩০ জুনের পর বাংলাদেশের রাজনীতিতে কী ঘটতে যাচ্ছে? এ ব্যাপারে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা যা ভাবছেন-

মন্ত্রিসভায় রদবদল

এটা মোটামুটি স্পষ্ট, ৩০ জুনের পর মন্ত্রিসভায় একটা রদবদল হতে যাচ্ছে। বিশেষ করে করোনায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ আবদুল্লাহর মৃ’ত্যুর পর মন্ত্রিসভায় রদবদল ঘটবেই। যেহেতু বাজেট অধিবেশন চলছে, তাই এই রদবদল ৩০ জুনের পর নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে কয়েকটি সূত্র নিশ্চিত করেছে। এটি শুধু ধর্ম মন্ত্রণালয়ে হবে নাকি অন্যান্য মন্ত্রণালয়েও হবে- তা এখন এক বড় প্রশ্ন। অনেকের মতে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পরিবর্তন নিয়ে সরকারের মধ্যেই একটি চাপ তৈরি হয়েছে। বিশেষ করে ক্ষমতাসীন দলের এমপিরা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপর বির’ক্ত। তাদের মতে, একজন ব্যক্তির বোঝা আওয়ামী লীগ কেন বহন করবে এবং তার জন্যে কেন দলের বদনাম হবে? এই বাস্তবতায় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে সরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে আওয়ামী লীগেই একটি ঐক্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আওয়ামী লীগের একজন এমপি বলেছেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ জাতীয় দাবিতে পরিণত হয়েছে। আর আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনগণের আকাঙ্ক্ষা পূরণে কখনো দেরি করেন না। তাই স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সরে যাবার বিষয়টি এসেছে।

লকডাউন কিংবা ঢাকার করোনা মোকাবেলা

ঢাকার করোনা মোকাবেলার বিষয়টি এখন পর্যন্ত স্থ’গিত রয়েছে বাজেটের জন্য। এখন অর্থবছরের শেষ, নানা হিসেব-নিকেশ চলছে, বাজেট পাশ হবে এমন সময় ঢাকাকে যদি সাধারণ ছুটি বা লকডাউন করে দেওয়া হয় তাহলে অনেকগুলো কাজের বি’ঘ্ন ঘটবে। সেজন্য বাজেট পাশের পর ঢাকায় যে জোনভিত্তিক লকডাউন বা সাধারণ ছুটি কিংবা গোটা ঢাকাকে লকডাউন করার ব্যাপারে যে মতামতগুলো রয়েছে তা বাস্তবায়নের বিষয়ে হয়তো নজর দেওয়া হবে। যারা এই জোন ম্যাপিংগুলো করছেন বা লকডাউন কার্যকর করবেন তারাও মনে করছেন যে ৩০ জুনের পরে এটা বাস্তবায়ন করা হবে।

অর্থনীতি নিয়ে নতুন চিন্তা

এবারের বাজেট বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া শুরু হবে পহেলা জুলাই থেকে। কাজেই এই বাজেট বাস্তবায়ন প্রক্রিয়ার ওপর নির্ভর করছে দেশের অর্থনীতির অনেক কিছু। বিশেষ করে করোনা পরবর্তী অর্থনীতিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া, প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত প্রনোদনাগুলোর বাস্তবায়ন, এছাড়াও গরীব এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে কীভাবে টিকিয়ে রাখা যায় সেই কৌশল বাস্তবায়নও হবে এবারের বাজেটের মাধ্যমে। পহেলা জুলাই থেকে বাজেট বাস্তবায়নের কাজ শুরু হতে যাচ্ছে। কাজেই আমাদের অর্থনৈতিক গতিপথ নির্ধারণের জন্যেও ৩০ জুন অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

দুর্নীতির বিরু’দ্ধে অবস্থান

সরকার দুর্নীতির বিরু’দ্ধে শূন্য সহিষ্ণুতা নীতি গ্রহণ করেছে। কিন্তু করোনাকালেও বিভিন্ন সেক্টরে, বিশেষ করে স্বাস্থ্য খাতের দুর্নীতির কথা সামনে চলে এসেছে। এই বাস্তবতায় সরকার আবার কঠিন অবস্থায় যাবে বলে নিশ্চিত করেছে দুদক। যারাই দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত, তাদের বিরু’দ্ধেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ইতিমধ্যে দুদক মাস্ক ও অন্যান্য চিকিৎসা সামগ্রী কেনাকাটায় অ’নিয়ম, দুর্নীতি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে। দুদক কমিশনার বলেছেন, এই ব্যাপারে কাউকেই ছাড় দেওয়া হবেনা। তাই ৩০ জুনের পর বাংলাদেশের দুর্নীতিবিরো’ধী অভিযানে একটি নতুন রূপ দেখা যাবে। এই অভিযানে আবার ক্যাসিনোকাণ্ড বা পাপিয়ার মতো অনেক শীর্ষ দুর্নীতিবাজ আইনের আওতায় আসবে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে দুদক।

এই বাস্তবতায় ৩০ জুনের পর করোনার সঙ্গে বসবাসের এক নবযাত্রা শুরু হবে এবং সেই নবযাত্রায় বাংলাদেশ কী করবে সেটাই দেখার বিষয়।

বাংলাইনসাইডার

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!