সরকারদলীয় এমপি উদ্বোধন করায় মডেল মসজিদের নামফলক ভেঙে দিলো শিবিরকর্মীরা

0

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি:

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে স্থানীয় সাংসদ দিদারুল আলমের উদ্বোধনের ২ দিন পর রাতের আধাঁরে মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন ফলক ভেঙে দিয়েছে স্থানীয় শিবিরকর্মীরা। এ ঘটনায় তীব্র ক্ষো’ভ প্রকাশ করেন সাংসদ দিদারুল আলম। খবর পেয়ে সীতাকুন্ড থানা পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

জানা যায়,গত ২৩ জুন মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার মুরাদপুর ইউনিয়নের ফকিরহাট এলাকায় সাদেক মস্তান (রাঃ) উচ্চ বিদ্যালয়ের বিপরীত পাশে দৃষ্টিনন্দন এই মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন স্থানীয় সাংসদ দিদারুল আলম। কিন্তু উদ্বোধনের ২ দিন পর বৃহস্পতিবার রাতে স্থানীয় শিবিরকর্মীরা মসজিদের নিরাপত্তা প্রহরীকে মা’রধরের পাশাপাশি উদ্বোধন ফলক ভাঙার চেষ্টা চালায়।

খবর পেয়ে সীতাকুন্ড থানার এস আই মামুন ঘটনাস্থলে গেলে শিবিরকর্মীরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনার ঘণ্টা ২ পর এস আই মামুন চলে গেলে শিবিরকর্মীরা গভীর রাতে ঘটনাস্থলে এসে উদ্বোধন ফলক ভেঙে দেয়।

মসজিদের নিরাপত্তা প্রহরী এই ঘটনায় জড়িত কয়েকজনকে চিনতে পেরেছেন। তারা স্থানীয় জামায়াত শিবিরের রাজনীতির সাথে জড়িত বলে পুলিশকে জানিয়েছেন।

মসজিদের উদ্বোধন ফলকে শিবিরকর্মীদের পরিকল্পিত এই হাম’লার তীব্র নি’ন্দা জানিয়ে স্থানীয় সাংসদ দিদারুল আলম বলেন, গণতন্ত্রের মানসকন্যা আওয়ামী সভানেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর পিতার অ’সমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি উপজেলায় কোটি কোটি টাকা ব্যয়ে মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজ শুরু করেন। প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের বাস্তবায়নে মঙ্গলবার ফকিরহাট এলাকায় এ মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়। কিন্তু সরকারের ভাবমুর্তি ক্ষু’ন্ন করতে শিবিরকর্মীরা রাতের আঁধারে উদ্বোধন ফলক ভেঙে দেওয়ার পাশাপাশি মসজিদে হাম’লা চালায়। দ্রুত চিহ্নিত করে অপরাধীদের গ্রেপ্তারে পুলিশের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিল্টন রায় জানান, রাতের আঁধারে মসজিদের উদ্বোধন ফলক ভেঙে দেওয়ার ঘটনাটি অত্যন্ত ন্যা’ক্কারজনক। ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনি ব্যবস্থা নিতে পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সীতাকুণ্ড মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ হোসেন মোল্লা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মডেল মসজিদ নির্মাণ কাজে হাম’লার খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে এস আই মামুনকে পাঠালে তারা পালিয়ে যায়। কিন্তু ঘণ্টাখানেক পর মামুন চলে গেলে তারা আবারো এসে উদ্বোধন ফলক ভেঙে দেয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতির পাশাপাশি জড়িতদের চিহিৃত করে সহসাই আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন !
  • 172
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!