পুত্রবধূকে সম্ভ্রমহা’নির চেষ্টা, শ্বশুরের জেল

0

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:

খাগড়াছড়ির রামগড় উপজেলায় পুত্রবধূকে কু-প্রস্তাব ও ধ**ণ চেষ্টার অভিযোগে আবদুর রাজ্জাক (৫০) নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গত সোমবার ভিক্টিম ওই নারী বাদী হয়ে মামলা করলে মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) রামগড় থানা পুলিশ শ্বশুরকে গ্রেপ্তার করে।

মামলার এজাহারে পুত্রবধূ অভিযোগ করেন, গত মার্চ মাসে আব্দুর রাজ্জাকের বড় ছেলে কাভার্ড ভ্যানের হেল্পার মোহাম্মদ ইউসুফের সঙ্গে পারিবারিকভাবে ওই মেয়ের বিয়ে হয়। বিয়ের কয়েক মাস পর তার স্বামী কাজে গেলে শ্বশুর তাকে মোবাইল ফোনে কু-প্রস্তাব দেন। ঘটনার দিন রাত ১০টার দিকে শ্বশুর ওই গৃহবধূর শ্লী’লতাহা’নির চেষ্টা করেন।

পরে ঘটনাটি পরিবারের সবাইকে জানান তিনি। ঘটনাটি স্থানীয়ভাবে গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে মীমাংসা করার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু কোনো সুরাহা হয়নি। এ কারণে থানায় অভিযোগ করতে হয়।

১ নম্বর রামগড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ আলম মজুমদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাটি আমি শুনেছি। উভয় পক্ষ পারিবারিকভাবে সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে সালিশে বসলেও কোনো মীমাংসায় আসতে পারেনি। পরে ওই নারী আইনের আশ্রয় নেয়।

রামগড় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শামসুজ্জামান জানান, উভয়পক্ষ একে অপরের বিরু’দ্ধে অভিযোগ করতে থানায় আসে। পরবর্তী সময়ে পুত্রবধূকে শ্বশুরের ফোন দেয়ার সেই কল রেকর্ডটি সামনে এলে বাদীর অভিযোগ গ্রহণ করা হয়। এরপর শ্বশুরকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেলে পাঠানো হয়েছে।

আবুধাবি বিমানবন্দরে আটকে থাকা ২৯ বাংলাদেশিকে প্রবেশের অনুমতি

গতকাল আবুধাবি বিমানবন্দরে আটকে পড়া ২৯ বাংলাদেশিকে আজ প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে বলে গালফ নিউজ প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

আটকে পড়া বাংলাদেশিরা দাবি করেছিল, তাদের সবার সংযুক্ত আরব আমিরাতের বৈধ আবাসিক ভিসা, কোভিড-১৯ পরীক্ষার নেগেটিভ রিপোর্ট এবং আইসিএ কর্তৃক আবারও সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রবেশের অনুমোদন ছিল। কিন্তু, মঙ্গলবার সকালে বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পরে তাদের আটকে দেওয়া হয়।

সংযুক্ত আরব আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবু জাফর গালফ নিউজকে বলেন, আমরা শুরু থেকেই তাদের সুস্থতার বিষয়টি নিশ্চিত করতে কাজ করেছি এবং খুশির খবর হলো ওই ২৯ জনকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তারা বিমানবন্দরে পিসিআর রিপোর্ট পেয়েছে, তাদের রিপোর্ট নেগেটিভ ছিল এবং প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে আটকে পড়া প্রবাসীদের একজন ইব্রাহিম খলিল (৪২), আবুধাবির একটি ক্যাটারিং কোম্পানিতে ১ বছর ধরে কাজ করছেন। তিনি বলেন, গত ২১ ফেব্রুয়ারি আমি জরুরি প্রয়োজনে এই দেশ ছাড়ি। আমার মা মা’রা গেছেন। ২৫ মার্চ পর্যন্ত আমার ছুটি ছিল। কিন্তু, বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় আমি ফিরতে পারিনি। যখন জানলাম ফ্লাইট চালু হয়েছে, আমি আইসিএ অনুমোদন পেয়ে ফেরার সিদ্ধান্ত নিই। ঢাকায় সব চেক করে অনুমতি নিয়ে আমিরাতে পৌঁছে আটকা পড়ব, আশা করিনি।

খলিল জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তাদের সবার কোভিড-১৯ এর জন্য নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তারপর আমাদের রিপোর্টের জন্য অপেক্ষা করতে বলা হয় এবং আমাদের হোটেল রুম বরাদ্দ ও খাবারের ব্যবস্থা করা হয়। অবশেষে আজ বুধবার সকালে আমাদের প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!