আশরাফুল ফিরছেন বিপিএলে

0

স্পোর্টস ডেস্ক:

বিপিএল এর এক আসরেই ম্যাচ ফিক্সিং করেই নিষিদ্ধ হয়েছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ৫ বছর পর বিপিএলে ফিরলেন সাবেক অধিনায়ক। ৬ষ্ঠ আসরে আশরাফুলকে দলে নিয়েছে চিটাগং ভাইকিংস। অনেক দিন ধরেই বড় পরিসরে খেলার সুযোগ খুঁজছিলেন আশরাফুল। দল পাওয়ায় বিপিএলের মতো আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নিজেকে প্রমাণের প্রথম বড় সুযোগ পেলেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রথম পোস্টার বয়। ‘বি’ ক্যাটাগরিতে থাকা আশরাফুলকে ১৮ লাখ টাকায় দলে ভিড়িয়েছে চিটাগং ভাইকিংস।

বাংলাদেশের ক্রিকেটের একসময়ের ‘লিটল মাস্টার’ খ্যাত মোহাম্মদ আশরাফুল ম্যাচ ফিক্সিংয়ের দায়ে ৫ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন। সেই নিষেধাজ্ঞা শেষ করে পুরোপুরি জাতীয় পর্যায়ের ক্রিকেটে ফেরার অনুমতি পান গত আগস্টে।

২০১৩ সালে বিপিএলে ম্যাচ ফিক্সিংয়ে জড়িত থাকায় এতদিন খেলার সুযাগ পাননি। তার আগে ২০১৬ সালে শুধুমাত্র ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলার অনুমতি পান। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলার অনুমতি না থাকায় সেবার বিপিলে খেলার সুযোগ মেলেনি। পুরোপুরি নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে গত ১৩ আগস্ট ফিরলে এবার অনুমতি মেলে ৩৪ বছর বয়সী এই ক্রিকেটারের।

চিটাগং ভাইকিংসে আছেন মুশফিকও

ষষ্ঠ বিপিএলের প্লেয়ার্স ড্রাফটের আগে মুশফিককে ঘিরেই ছিল আলোচনা। সেই আলোচনা বেশিদূর গড়ায়নি। বিপিএলের ড্রাফট শুরু হওয়ার আগেই মুশফিকের ব্যাপারে সিদ্ধান্তে পৌঁছে গেছে চিটাগং ভাইকিংস। রাজশাহী ছেড়ে দেওয়ায় চিটাগং ভাইকিংসের সামনে মুশফিককে দলে নেওয়ার সুযোগ ছিল। কিন্তু চট্টগ্রামের দলটি দেশসেরা উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যানকে শুরুতে নিতে রাজি ছিলো না। আচমকা ড্রাফট শুরুর আগে দলটি মুশফিককে নেওয়ার ব্যাপারে তাদের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে। বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলও তা মেনে নিয়েছে।

মুশফিকের অন্তর্ভুক্তির পর কপাল পুড়েছে আফগান ক্রিকেটার নাজিবুল্লাহ জাদরানের। নিয়ম অনুযায়ী ৪ জন খেলোয়াড়কে রিটেইন করাতেই তাকে বাদ দিতে হয়েছে চিটাগং ভাইকিংসকে।

‘এ’ প্লাস ক্যাটাগরিতে আগেই ঢাকা ডায়নামাইটসে সাকিব আল হাসান, খুলনা টাইটানসে মাহমুদউল্লাহ, রংপুর রাইডার্সে মাশরাফি বিন মুর্তজা, সিলেট সিক্সার্সে লিটন দাস, রাজশাহী কিংসে মোস্তাফিজুর রহমান এবং কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের জার্সিতে তামিম ইকবাল খেলবেন।

নিয়ম অনুযায়ী বিপিএলের প্রতিটি দল দেশি-বিদেশিসহ গতবারের ৪ জনকে ধরে রাখার পাশাপাশি দুইজন করে বিদেশি খেলোয়াড় ড্রাফটের বাইরে থেকে অন্তর্ভুক্ত করতে পেরেছে।

গত আসরে মুশফিক আইকন হিসেবে ছিলেন রাজশাহী কিংসে। কিন্তু এবার তাকে দলে রাখেনি রাজশাহী, বরং আইকন হিসেবে নিয়েছে মোস্তাফিজুর রহমানকে। গতবার ১২ ম্যাচে ১৪৬ রান করা মুশফিককে তাই অপেক্ষায় থাকতে হয়েছে।

খুলনা টাইটানসে লাসিথ মালিঙ্গা

বিপিএলে দল গোছানো শেষ হয়েছে খুলনা টাইটানসের। বিদেশি ক্যাটাগরিতে ড্রাফট থেকে শ্রীলঙ্কান ‘টো ক্রাশার’ লাসিথ মালিঙ্গাকে দলে ভিড়িয়েছে খুলনা। গত আসরে রংপুর রাইডার্সের হয়ে খেলেছিলেন লঙ্কান পেসার। ‘এ’ ক্যাটাগরিতে থাকা মালিঙ্গাকে দেড় লাখ মার্কিন ডলারে খুলনা কিনে নেয় লাসিথ মালিঙ্গাকে।

এর বাইরে বিদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে ড্রাফট থেকে আফগানিস্তানের জহির খান, ওয়েস্ট ইন্ডিজের শেরফান রাদারফোর্ড, পাকিস্থানের ইয়াসির শাহ ও জিম্বাবুয়ের ব্রেন্ডন টেলরকে দলে ভিড়িয়েছে খুলনা।

ড্রাফটের আগে ৪ জন ক্রিকেটারকে রিটেইন ও ২ জন বিদেশি ক্রিকেটারের সঙ্গে চুক্তি করে রেখেছিলো খুলনা টাইটানস। এরা হচ্ছেন- মাহমুদউল্লাহ, আরিফুল হক, নাজমুল হোসেন শান্ত, কার্লোস ব্র্যাথওয়েট, ডেভিড মালান ও আলী খান।

খুলনা টাইটানস: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আরিফুল হক, নাজমুল হোসেন শান্ত, কার্লোস ব্র্যাথওয়েট, ডেভিড মালান, আলী খান, জহিরুল ইসলাম অমি, শরিফুল ইসলাম, তাইজুল ইসলাম, মোহাম্মদ আল আমিন, শুভাশীষ রায়, জুনায়েদ সিদ্দিক, তানভীর ইসলাম, মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন, জহির খান, শেরফান রাদারফোর্ড (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), লাসিথ মালিঙ্গা, ব্রেন্ডন টেলর ও ইয়াসির শাহ।

ড্রাফটের আগে ৭টি দল-

রংপুর রাইডার্স: মাশরাফি বিন মুর্তজা, নাজমুল ইসলাম অপু, মোহাম্মদ মিঠুন, ক্রিস গেইল, অ্যালেক্স হেলস ও এবি ডি ভিলিয়ার্স।

ঢাকা ডায়নামাইটস: সাকিব আল হাসান, সুনিল নারাইন, রোভম্যান পাওয়েল, কিয়েরন পোলার্ড, জেসন রয় ও আন্দ্রে রাসেল।

খুলনা টাইটানস: মাহমুদউল্লাহ, আরিফুল হক, নাজমুল হোসেন শান্ত, কার্লোস ব্র্যাথওয়েট, ডেভিড মালান ও আলী খান।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স: তামিম ইকবাল, ইমরুল কায়েস, সাইফউদ্দিন, শোয়েব মালিক, লিয়াম ডসন ও আসেলা গুনারত্নে।

রাজশাহী কিংস: মুমিনুল হক, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান, জাকির হাসান, কায়েস আহমেদ ও ক্রিস্টিয়ান জনকার।

সিলেট সিক্সার্স: নাসির হোসেন, সাব্বির রহমান, সোহেল তানভীর, লিটন দাস, ডেভিড ওয়ার্নার ও সন্দীপ লামিচানে।

চিটাগং ভাইকিংস: লুক রনকি, সিকান্দার রাজা, মুশফিকুর রহিম, সানজামুল হক, মোহাম্মদ শাহজাদ ও রবার্ট ফ্রাইলিঙ্ক।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply