‘আমাকে গালি দেয়া মানে বঙ্গবন্ধুকে গালি দেয়া’

0

সময় এখন ডেস্ক:

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জিয়াউর রহমান দু’জনকেই ভালবাসি আমি। দুই রহমানকে নিয়ে যারা ফয়দা লোটে, আমি তাদের দুরত্ব কমিয়ে দিতে চাই। আমাকে গালি দেয়া মানে বঙ্গবন্ধুকে গালি দেয়া।’ রাজশাহীতে লাঞ্ছিত হয়ে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী তার প্রতিক্রিয়ায় এমনটি বলেছেন।

প্রসঙ্গত, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আর জিয়াউর রহমানের যে দ্বন্দ্ব, এই দ্বন্দ্ব করে যারা দেশকে লুটেপুটে খাচ্ছে, আল্লাহ যদি আমাকে সময় দেয়- তাহলে শেখ মুজিব আর জিয়াউর রহমানের দ্বন্দ্ব আমি ঘুচিয়ে দেবো ইনশাল্লাহ।’

গতকাল শুক্রবার বিকেলে রাজশাহীর মাদ্রাসা মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জনসভায় এই মন্তব্য করায় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা লাঞ্ছিত করেছেন কৃষক-শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীকে।

কাদের সিদ্দিকী জনসভা শেষ করে কুমারপাড়া নগর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে দিয়ে গাড়ি নিয়ে যাচ্ছিলেন। ওই সময় আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা তার উদ্দেশ্যে ‘মীরজাফর মীরজাফর, বেঈমান বেঈমান’ বলে স্লোগান দিতে থাকেন। তখন গাড়ি থেকে বের হয়ে আসেন কাদের সিদ্দিকী। গাড়ি থেকে নেমেই আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমাদের মাথায় ঘিলু নাই।

জবাবে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা বলেন, ‘আপনি বেঈমান-মীরজাফর। আপনাকে আমরা ঘৃণা করি। বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে জিয়াউর রহমানের তুলনা করে আপনি অপরাধ করেছেন। ক্ষমা
আপনাকে চাইতে হবে।’

এসময় নেতা-কর্মীরা কাদের সিদ্দিকীর গাড়িতে লাথি মারেন। পরে পুলিশ এসে তাকে গাড়িতে তুলে দেয়।

এ প্রসঙ্গে নগর আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক মীর ইসতিয়াক আহমেদ লেমন বলেন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তি করায় আমরা তাকে মীরজাফর ও বেঈমান বলেছি। শারীরিকভাবে তাকে লাঞ্ছিত করা হয়নি। বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে পুলিশ এসে তাকে গাড়িতে তুলে দেয়।

ঘটনার প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মোবাইল ফোনে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বলেন, আমাদের কয়েকজন ছেলে গালাগালি করছিলো। লোক জড়ো হয়েছিলো। পরে আমরা চলে এসেছি। আমি সারাজীবন দেশের জন্য কাজ করেছি। বঙ্গবন্ধুকেই বাংলাদেশ মনে করি। ভালবাসি। আমাকে গালি দেয়া মানে বঙ্গবন্ধুকে গালি দেয়া। বঙ্গবন্ধুকে জিয়াউর রহমানের সঙ্গে এক করিনি। বঙ্গবন্ধু দেশের নেতা, জাতির পিতা। আমরা তার সন্তান। দুই রহমানকে দ্বিখন্ডিত করে যারা ফয়দা লুটে, আমি তাদের দুরত্বটা কমিয়ে দিতে চাই।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply