পরিবারের বাকি সদস্যদের সাথে তারেকের দ্বৈরথ!

0

বিশেষ প্রতিবেদন:

বিএনপির কর্তৃত্ব নিয়ে বিএনপিতে ‘গৃহদাহ’ এখন চুড়ান্ত রূপ নিয়েছে। তারেক রহমানের পাঠানো বিএনপির অন্তত দুটি জেলা কমিটির অনুমোদন মেলেনি।

জানা গেছে, খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার খালেদার পক্ষ থেকে ঐ কমিটির ব্যাপারে আপ’ত্তির কথা জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিবকে। একইভাবে যুবদলের পূর্নাঙ্গ কমিটিও আটকে গেছে এই কারণে।

বিএনপির দায়িত্বশীল একাধিক সূত্র বলছে, বিএনপিতে তারেক রহমানের একক কর্তৃত্ব, স্বেচ্ছা’চারিতার বিরু’দ্ধে এক হয়েছেন জিয়া পরিবারের ৩ সদস্য। এরা হলেন, প্রয়াত আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী সৈয়দা শর্মিলা রহমান সিঁথি, খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার এবং বোন সেলিনা ইসলাম। অথচ ওয়ান ইলেভেনের আগে এমনকি ২০১৮’র ফেব্রুয়ারিতে খালেদা জিয়া গ্রেপ্তার হবার আগেও, এই ৩ জন ছিলেন বিএনপির সঙ্গে সম্পর্কহীন।

খালেদা জিয়া গ্রেপ্তার হবার পর, তাকে জেলে দেখতে যাওয়া এমনকি সরকারের সাথে দেনদরবার করে সাজা স্থ’গিত করানোর মধ্যে দিয়েই পাদপ্রদীপে আসেন তারা। এ সময় দলের অনেক নেতার কাছে খালেদা জিয়া গুরুত্বপূর্ণ বার্তা পাঠান তাদের মাধ্যমে। ফলে দলে তাদের গুরুত্ব বৃদ্ধি পায়। অনেক নেতাই বিভিন্ন তথ্য এবং জিজ্ঞাস্য এই ৩ জনের মাধ্যমে সরাসরি খালেদা জিয়ার কাছে পাঠান। ফলে, খালেদা জিয়া কী ভাবছেন, কী বলছেন, তার জন্য বিএনপি নেতারা এদের দিকেই তাকিয়ে থাকেন।

বিএনপি যখন আন্দোলন এবং আইনী ল’ড়াইয়ের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে ব্যর্থ হয়, তখন শামীম এস্কান্দার এবং তার বোন খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য তৎপর হন। তারা সরকারের সঙ্গে দেনদরবার করে খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যবস্থা করেন। এখান থেকেই তারেকের সঙ্গে শামীম এস্কান্দার ও সেলিনা ইসলামের বিরো’ধের সূত্রপাত হয় বলে দলের কয়েকজন শীর্ষ নেতা নিশ্চিত করেন।

তাদের মতে, তারেক রহমান এভাবে খালেদা জিয়ার মুক্তিকে অ’সম্মানজনক বলে মনে করতেন। সরকারের সাথে সমঝোতা করায় খালেদা জিয়া ও বিএনপির রাজনীতির বড় ক্ষ’তি হয়েছে বলেও তারেক রহমানের ভাষ্য। গত ২৫ মার্চ খালেদা জিয়া মুক্ত হবার পর বিএনপিতে শামীম এস্কান্দারদের গুরুত্ব আরো বেড়ে যায়। খালেদা জিয়ার সঙ্গে বিএনপির নেতৃবৃন্দের দেখা সাক্ষাৎ বন্ধ। এর মধ্যে খালেদা জিয়ার সঙ্গে যোগাযোগের একমাত্র সেতুবন্ধন হন শামীম এস্কান্দার ও সেলিনা ইসলাম। আর খালেদা জিয়া জেলে থাকার সময় ঝুঁ’কি নিয়ে লন্ডন থেকে ঢাকায় এসে শর্মিলাও এখন বিএনপির নেতাদের প্রিয়পাত্র।

এরকম পরিস্থিতিতে, তারেকের চেয়ে এই ৩ জনের প্রতি আকৃষ্ট বিএনপির নেতাকর্মীরা। তারাই এখন খালেদা জিয়ার মুখপাত্র। তারাই আবার নানা কারণে তারেক বিরো’ধী। এখন বিএনপি নেতাদের কাছে তারেক রহমানের নানা স্বেচ্ছা’বারিতার কথা শুনে তারা এখন বিএনপিতেও তারেক বিরো’ধ অবস্থান এবং বলয় তৈরী করছেন বলে জানা গেছে। এর ফলে বিএনপির রাজনীতিতে নাটকীয় মেরুকরণ তৈরী হচ্ছে বলে জানা গেছে। বাংলাইনসাইডার।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!