‘নির্বাচন, প্রার্থী এবং ধর্ম নিয়ে গুজব ছড়ানো হচ্ছে’

0

সময় এখন ডেস্ক:

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সহিংসতা ছড়াতে দেশি-বিদেশি কয়েকটি সংস্থা গুজব বা অপপ্রচার চালাচ্ছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম।

শনিবার একটি সেমিনারে বক্তব্যে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান এই কথা জানান। রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ‘জাতীয় নির্বাচন: গুজব সহিংসতা প্রতিরোধে সম্প্রচার মাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় বক্তব্য দিচ্ছিলেন তিনি।

মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘সাম্প্রতিক দুই ধরনের গুজব দেখেছি। একটি ইনোসেন্ট গুজব যা কোনো অপরাধের শঙ্কা সৃষ্টি করে না। অপরটি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অপপ্রচার; যার মাধ্যমে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতিসহ দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়। এই দুই ধরনের গুজব দুইভাবে ছড়াচ্ছে। একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অপরটি অনলাইন নিউজ পোর্টালের মাধ্যমে। তাই নিউজ প্রচারের আগে এর সত্যতা যাচাই করা জরুরি। কারণ নির্বাচনকে ঘিরে গুজব সৃষ্টিকারীরা তৎপর রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘সাইবার ক্রাইম বিশেষজ্ঞরা নজরদারি করছেন। দেখা যাচ্ছে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোনো কোনো প্রার্থীর বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। ধর্মীয় সাম্প্রদায়িক উস্কানির চেষ্টাও করছে সুযোগ সন্ধানী একটা চক্র। এরা নির্বাচনের আগে পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করার চেষ্টায় লিপ্ত। তাদের চিহ্নিত করার কাজ চলমান আছে। আপনাদের কারও কাছে তথ্য থাকলে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে জানাবেন।’

এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী ভোটকেন্দ্রের ভেতরে ছবি তোলা যাবে না। সুতরাং যারা দায়িত্বে থাকবেন তারা কাউকে ছবি তুলতে বা ভিডিও ধারণ করতে দেবেন না। সেক্ষেত্রে তাদের সঙ্গে কোনো ধরনের ভুল বোঝাবুঝির অবকাশ নেই।’

সাংবাদিকদের উদ্দেশে মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘গুজব বা অপপ্রচার চালিয়ে জাতীয় নির্বাচনে সহিংসতা ছড়ানোর জন্য দেশি-বিদেশি বেশ কয়েকটি সংস্থা সক্রিয়। তাই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি গণমাধ্যম কর্মীদের আরও বেশি দায়িত্বশীল হতে হবে। অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য গুজব একটি বড় চ্যালেঞ্জ। এটি ঠেকাতে আলাদা মনিটরিং সেলসহ বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। সেখান থেকে গণমাধ্যম তথ্য পাবে।’

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!