৩০ বছর টিএন্ডটি বিল আটকে রাখায় বিএনপি, সিপিবি ও জাকের পার্টির প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল

0

শরীয়তপুর সংবাদদাতা:

বিএনপির প্রার্থী কালু, কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবির প্রার্থী সুশান্ত ভাওয়াল এবং জাকের পার্টির প্রার্থী বাদল কাজীর বহু বছর ধরে আটকে রাখা টেলিফোন বিল বকেয়ার কারনে মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে।

শরীয়তপুর-১ আসনের বিএনপির মনোনীত প্রার্থী সরদার নাসির উদ্দিনের (কালু) মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে তিন দশক ধরে আটকে রাখা ৩ হাজার ৮১৫ টাকার ল্যান্ডফোন বিলের কারনে।

জানা গেছে, ১৯৮৮ সাল থেকে ১৯৯১ সাল পর্যন্ত সরকারি সংস্থার ল্যান্ডফোন ব্যবহার করেও বিল দেননি নাসির উদ্দিন। রবিবার মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাইয়ের সময় রিটার্নিং কর্মকর্তা কাজী আবু তাহের এই বিষয়টির কথা উল্লেখ করে বাতিল করেন তার মনোনয়নপত্র।

যদিও নাছির উদ্দিন কালু তার কোনো বকেয়া টেলিফোন বিল নেই দাবি করে বলেন, ‘৯১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করি। ২০০৪ সালে শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হই। এতদিন পরে আমার টেলিফোন বিল কীভাবে বকেয়া হলো তা আমার মনে নেই। আমি প্রার্থিতা ফিরে পেতে নির্বাচন কমিশনে আপিল করব।’

এই আসনে বিএনপির একজনই মনোনয়ন পেয়েছিলেন। তিনি বাতিল হয়ে যাওয়ায় এখন দলটির আর কেউ প্রার্থী নেই। এই আসনে আওয়ামী লীগের হয়ে লড়বেন ইকবাল হোসেন অপুসহ ৭ জন।

টেলিফোন বিল খেলাপি হিসেবে বাদ পড়েছেন শরীয়তপুর-২ আসনে জাকের পার্টির বাদল কাজী এবং শরীয়তপুর-৩ আসনের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবির মনোনয়ন পাওয়া সুশান্ত ভাওয়ালও। বাদল কাজীর কাছে ১১ হাজার ৮১ টাকা ও সুশান্ত ভাওয়ালের কাছে ২ হাজার ১২৩ টাকা বিল বকেয়া রয়েছে। তারাও কয়েক দশক ধরে এই বিল আটকে রেখেছেন।

শরীয়তপুর-১ আসনের জাকের পার্টির প্রার্থী আলমগীরের মনোনয়নপত্র বাতিল খেলাপি ঋণের কারণে। শরীয়তপুর-২ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী সফি উদ্দিন মানিক হাওলাদার বাদ হয়েছেন ১ শতাংশ ভোটারের সমর্থন সম্বলিত স্বাক্ষর জমা না দেওয়ায়।

আলমগীর হোসেন স্থানীয় গোসাইরহাট উপজেলার কোদালপুর শাখা কৃষি ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা ফেরত দিচ্ছেন না।

সকাল ১০টায় রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের কাজ শুরু হয়। টেলিফোন বিল বকেয়া থাকায় তখন ওই ৩ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাছাই বিকাল পর্যন্ত স্থগিত রাখা হয়। এ সময়ের মধ্যে ওই ৩ প্রার্থী বিটিসিএল এর রাজস্ব শাখা ফরিদপুরে বকেয়া বিল নগদ টাকায় পরিশোধ করেন। কিন্তু নির্বাচনী আইনে মনোনয়নপত্র দাখিলের ৭ দিন পূর্বে সকল বকেয়া বিল ও ঋণ পরিশোধ করতে হবে। তাই তাদের বিল পরিশোধের ফলেও মনোনয়নপত্র বাতিলের সিদ্ধান্ত বদল হয়নি।

শেয়ার করুন !
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply