নতুন ২০ রিয়ালের নতুন নোট উঠিয়ে নিল সৌদি সরকার

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

সৌদি আরবের ২০ রিয়ালের নতুন ব্যাংক নোট প্র’ত্যাহার করা হয়েছে। জি-২০ সম্মেলন উপলক্ষে ছাপা ওই নোটে জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখকে ভারতের মানচিত্রের বাইরে রাখা হয়েছিল। বিষয়টি নিয়ে ভারত আপ’ত্তি জানালে ওই নোট ছাপা বন্ধের নির্দেশ দেয় সৌদি প্রশাসন।

সৌদি প্রশাসন জানিয়েছে, আগে যেসব নোট ছাপা হয়েছিল তাও উঠিয়ে নেয়া হবে।

সৌদিতে দুই দিনব্যাপী জি-২০ সম্মেলন শুরু হয়েছে আজ। সেই উপলক্ষেই গত মাসের শেষ দিকে নতুন এই ২০ রিয়ালের নোটটি বাজারে ছাড়ে সৌদি প্রশাসন। নোটের একদিকে সৌদি আরবের বাদশাহ সালমন বিন আবদুল আজিজ আল সৌদের ছবি এবং এ বছরের জি-২০ সম্মেলনের প্রতীক রয়েছে। অন্যদিকে রয়েছে বিশ্ব মানচিত্র।

আর সেখানেই জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখকে বাদ রেখে ভারতের মানচিত্রটি ছাপা হয়। এ নিয়ে তখনই আপ’ত্তি জানিয়েছিল ভারত। রিয়াদে ভারতীয় রাষ্ট্রদূত আউসফ সৈয়দ বিষয়টি নিয়ে সৌদি প্রশাসনের কাছে ভারতের আপ’ত্তির বিষয়টি স্পষ্ট করে তুলেন। তারপর বিষয়টিকে বিবেচনায় নেয় সৌদি প্রশাসন।

সৌদির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ওই নোটটি স্মারক হিসেবে ছাপা হয়েছিল। তবে তা বাজারে ছাড়া হয়নি। ভারতের আপ’ত্তির বিষয়টি বিবেচনায় রেখে নতুন নোট ছাপা বন্ধ করার পাশাপাশি সব নোট প্র’ত্যাহারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

নামের কারণে পাকি রাষ্ট্রদূতকে গ্রহণ করেনি সৌদি আরবও

পাকিস্থানের কূটনীতিবিদ আকবর জেব সৌদি আরবে নিযুক্ত পাকিস্থানি রাষ্ট্রদূত হতে পারছেন না। ‘আকবার জেব’ নামটির আরবি অর্থ উদ্ভট হওয়ার কারণে সৌদি প্রশাসন তাকে পছন্দ করেনি বলে জানা গেছে।

এর আগে অবশ্য যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকায় রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন আকবর জেব। কানাডায় পাকিস্থানি রাষ্ট্রদূত হিসেবেও ছিলেন তিনি। এমনকি পাকিস্থানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পরিচালক ছিলেন আকবর জেব।

কিন্তু ৫৫ বছর বয়সী এই কূটনীতিকের নাম আরবিতে একেবারে ভ’য়াবহ ধরণের! আকবর জেব শব্দের আরবি অর্থ বিশালাকার লিং’গ। জনগণ ওই নাম মুখে নিতেও চাইবে না সৌদিতে। শুধু তাই নয়, প্রিন্ট মিডিয়া, ভিজ্যুয়াল মিডিয়া এমনকি সোশ্যাল মিডিয়াতেও এই নাম প্রকাশযোগ্য নয়।

আরবি ও অন্য ভাষার লোকদের আকবর নাম হরহামেশা দেখা যায়। কিন্তু কারো নামের সঙ্গে জেব রাখা হয় না। উর্দুতে এই শব্দ থাকলেও আরবিতে তা পুং লিং’গ নির্দেশ করে।

জনপরিসরে এই শব্দ এড়াতেই আকবর জেবকে রাষ্ট্রদূত হিসেবে গ্রহণ করেনি সৌদি কর্তৃপক্ষ। আরব টাইমসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৩য় দেশ হিসেবে সৌদি আরব আকবর জেবকে রাষ্ট্রদূত হিসেবে রাখতে আপত্তি জানাল। এর আগে সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং বাহরাইনও তাকে শুধু নামের জন্য করেনি।

সৌদি সংস্কৃতি সমালোচক আহমেদ আল-ওমরান বলেন, এটা ভাবা কঠিন যে কারো নাম সমস্যার কারণ হয়ে উঠতে পারে, বিশেষ করে এই পর্যায়ে এসে। কিন্তু আমি বুঝতে পারছি যে কেন সরকার এ ধরনের প্রতিক্রিয়া দেখাল।

তিনি আরো বলেন, এটি সাংস্কৃতিক লাল রেখা অতিক্রম করেছে। আমি মনে করি না যে, মিডিয়া এ রকম কোনো নাম প্রকাশ করার সাহস করবে। সুতরাং তিনি এখানে থাকাকালীন মিডিয়া তার নাম সংক্রান্ত সমস্যার মুখোমুখি হবে এবং এটি তার সঙ্গে কাজ করা কঠিন করে তুলবে। পাকিস্থানের পক্ষেও তা বি’ব্রতকর হবে।

শেয়ার করুন !
  • 25
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply