হঠাৎ চর্মনাই পীরের উঁচু গলায় মোলায়েম সুর!

0

সময় এখন ডেস্ক:

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য, মূর্তি এবং নানা বিষয়ে গত বেশ কিছুদিন ধরে সরব দেশের ইসলাম নিয়ে রাজনীতি করা সংগঠনগুলো। সরকারকে ক্রমাগত হুঁশিয়ারি প্রদান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লাইভে এসে ব্যাপক উ’স্কানিমূলক বক্তব্য, বিভিন্ন জায়গায় সমাবেশ করে সাধারণ ধর্মপ্রাণ জনতাকে উত্তে’জিত করে তোলায় বেশ ব্যস্ত সূচি পালন করছিল।

হঠাৎ স্বঘোষিত স্বাধীনতা বিরো’ধী মাওলানা আজিজুল হকের পুত্র- খেলাফতে মজলিশের মহাসচিব এবং হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হক, যিনি ইতিপূর্বে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বুড়িগঙ্গা নদীতে ফেলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন, তিনি ফেসবুক লাইভে গতকাল বলেন, তিনি এবং তার অনুসারীরা সরকারবিরো’ধীতা করতে চান না, সরকারের সাথে কোনো বি’বাদে জড়াতে চান না, সরকারের শুভানুধ্যায়ী হিসেবে নিজেদেরকে দাবি করেন।

আর আজ আরেক উচ্চকণ্ঠ- ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির ও চর্মনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীমেরও গলার উঁচু আওয়াজ সরে গিয়ে মোলায়েম হয়ে গেছে। তিনিও সরকারের বিরো’ধীতা না করে উল্টো বলেছেন, ইসলাম ও মুসলিম উম্মাহর বিরু’দ্ধে গভীর ষড়’যন্ত্র শুরু হয়েছে। একটি মহল ইসলামপন্থিদের বিরু’দ্ধে চক্রা’ন্তে মেতে উঠেছে। ওলামায়ে কেরামকে সরকারের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দেশে বি’শৃঙ্খলা তৈরীর পাঁয়তারা করছে।

তিনি ইসলামী আন্দোলনকে সরকারের বিরু’দ্ধে কোনো আন্দোলন করার চেষ্টা করছে না বলেও দাবি করেন। তিনিও সরকারের ভাল চান বলে দাবি করেন। হঠাৎ সরকারের প্রতি এমন নমনীয় মনোভাবের কারণ জানা যায়নি। তবে মুক্তিযু’দ্ধ মঞ্চের ব্যাপক সমালোচনা করেন পাকিস্থানপন্থী হিসেবে খ্যাত এই তথাকথিত পীর।

মুক্তিযু’দ্ধ মঞ্চের সমালোচনা করে রেজাউল করীম বলেন, মুক্তিযু’দ্ধের দীর্ঘ ৫০ বছর পর এসে কে বা কারা এই সংগঠনের ব্যানারে দেশের শীর্ষ ধর্মীয় নেতা ও ওলামায়ে কেরামের বিরু’দ্ধে মানহা’নিকর কথাবার্তা বলে পরিবেশ উত্তপ্ত করার চেষ্টা করছে। ওই মহলটিকে এখনই চিহ্নিত করে কঠোর সাজার আওতায় আনতে হবে। অন্যথায় দেশে সম্প্রীতি ন’ষ্ট করে দেশকে অ’নিশ্চিত গন্তব্যে নিয়ে যাবে।

বুধবার বিকেলে চর্মনাই মাহফিল প্রস্তুতি পর্যালোচনাকালে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম শায়খে চর্মনাই, প্রিন্সিপাল মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী, আলহাজ খন্দকার গোলাম মাওলা, চর্মনাই ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মুফতী সৈয়দ এছহাক মুহাম্মদ আবুল খায়ের প্রমুখ।

চর্মনাই পীর বলেন, দেশ, ইসলাম ও মানবতা আজ চরম ক্রা’ন্তিকাল অতিক্রম করছে। তাবৎ ইসলামবি’দ্বেষী শক্তিগুলো আল-কুফরু মিল্লাতুন ওয়াহিদা হয়ে কাজ করছে। তিনি বলেন, ইসলাম ও মুসলিম উম্মাহর স্বার্থে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করতে হবে।

শেয়ার করুন !
  • 674
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply