কোটালীপাড়া সেজেছে নবরূপে, প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত

0

সময় এখন ডেস্ক:

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা আজ (বুধবার) বিকেল ৩টায় তাঁর নিজ নির্বাচনী এলাকা গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়ায় অবস্থিত শেখ লুত্ফার রহমান আদর্শ সরকারি কলেজ মাঠে প্রথম নির্বাচনী জনসভায় ভাষণ দেবেন।

আর এ উপলক্ষে তাঁকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত সারা কোটালীপাড়া আজ বর্ণিল সাজে সেজেছে। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে মিছিল নিয়ে সকাল থেকেই কোটালীপাড়া প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে সভাস্থলে আসতে শুরু করেছে। তাদের হাতে শোভা পাচ্ছে নির্বাচনী প্রতীক নৌকা। রঙবেরঙের ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে সভাস্থলে আসা মানুষের মিছিলে আগতদের স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠছে সভাস্থলসহ আশপাশের এলাকা।

ছয়বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও জাতির জনক কন্যা শেখ হাসিনাকে বরণ করতে দলীয়ভাবে নেওয়া হয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি। প্রথম নির্বাচনী জনসভা থেকে আসবে গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা- এমনটাই মনে করছেন দলীয় নেতাকর্মীরা।

প্রধানমন্ত্রীর এই জনসভার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা। নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে কোটালীপাড়া উপজেলা সদরসহ এর আশপাশের এলাকা।

কোটালীপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান মুজিবর রহমান হাওলাদার বলেন, আজকের জনসভা হবে স্মরণকালের স্মরণীয় জনসভা। সভাকে সফল করতে জাতির জনকের স্মৃতিবিজড়িত কোটালীপাড়া প্রস্তুত।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম হুমায়ূন কবীর বলেন, প্রিয় নেত্রীর জনসভাকে সফল করতে দলীয়ভাবে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

কোটালীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল ফারুক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর জনসভা উপলক্ষে সভাস্থল ও আশপাশের এলাকায় চার স্তরের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে।

দেশকে বাঁচাতে ৩০ তারিখ বিজয়ের বিকল্প নেই: এইচটি ইমাম

ধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম বলেছেন, ১৬ ডিসেম্বর আমাদের বিজয় দিবস, একই মাসে আরও একটা বিজয় হবে ভোটের মাধ্যমে। দেশকে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি থেকে বাঁচাতে ৩০ তারিখ বিজয়ের কোনো বিকল্প নেই।

আজ বুধবার নগরীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (কেআইবি) মিলনায়তনে রাজনৈতিক যোগাযোগ ও প্রচারাভিযান প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

মাস্টার ট্রেইনার ও পোলিং এজেন্টদের উদ্দেশে এইচটি ইমাম বলেন, আপনারা মন দিয়ে কাজ করবেন। মাঠে ঝাঁপিয়ে পড়বেন। দেশ উচ্চ গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে এটা ধরে রাখতে হবে। আপনারা সব কেন্দ্রে যাবেন, আমাদের কথা মানুষকে বলবেন। নিজ নিজ এলাকায় পোলিং এজেন্টের পাশাপাশি দলীয় প্রচার চালাবেন। আপনারা দায়িত্ব পালন করবেন দৃঢ় সংকল্প নিয়ে। প্রশিক্ষণ নিয়ে কাজ করবেন। কে কী কাজ করবেন ভাগ করে নেবেন।

জানা গেছে, আসন্ন একাদশ সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে ৩০০ জন মাস্টার ট্রেইনারদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। এ সব মাস্টার ট্রেইনাররা ৩০০ আসনের পোলিং এজেন্টদের প্রশিক্ষণ দেবেন।

শেয়ার করুন !
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply