আ’লীগ নেতা এরশাদের চোখ উপড়ে হত্যা করে বিএনপি কর্মীরা

0

পাবনা সংবাদদাতা:

পাবনা জেলার ঈশ্বরদী উপজেলায় এক আওয়ামী লীগের নেতার চোখ উপড়ে ও কান কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তার নাম আসাদুল ইসলাম এরশাদ (৩৪)। নিখোঁজের ২ দিন পর বুধবার ঈশ্বরদী উপজেলার মুলাডুলি বাণিজ্যিক ইক্ষু খামারসংলগ্ন পুরাতন ইটভাটার একটি খাল থেকে তার লাশ উদ্ধার করেছে ঈশ্বরদী থানা পুলিশ।

রামচন্দ্রপুর গ্রামের বাসিন্দা হাবিবুর রহমান মোক্কাস প্রামাণিকের ছেলে এরশাদ মুলাডুলি ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং একই সঙ্গে ওয়ার্ডের স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক।

এরশাদের চাচাতো ভাই আমিরুল ইসলাম জানান, এরশাদ রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন।

গত সোমবার রাত ৮টায় চাকরি শেষে বাড়ি ফিরেন। রাতের খাওয়া দাওয়া শেষ করে তিনি বিশ্রাম নিচ্ছিলেন। হঠাৎ মশার যন্ত্রণায় উঠে বাড়ি থেকে আধা কিলোমিটার দূরের একটি দোকান থেকে কয়েল কিনতে যান। সেখান থেকে রাত সাড়ে ৯টার দিকে কয়েল নিয়ে একটি ভ্যানচালকের মাধ্যমে বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়ে জানান- তিনি শেখপাড়া যাচ্ছেন। এরপর থেকে তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে এরশাদের ভাই মহিরুল ইসলাম ঈশ্বরদী থানায় গত ১১ ডিসেম্বর একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। অবশেষে বুধবার দুপুরে তার লাশ পাওয়া গেছে।

স্থানীয়রা জানান, এরশাদের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এক চোখ উপড়ে ও কান কেটে ফেলেছে বিএনপি কর্মীরা। ধারণা করা হচ্ছে, তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

মুলাডুলি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন মিঠু জানান, এরশাদ নিখোঁজের ঘটনাটি আমি শুনেছিলাম। তারা পারিবারিকভাবে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। কী কারণে বা কারা তাকে হত্যা করেছে এ ব্যাপারে এখনো কিছু জানা যায়নি। তবে নির্বাচনী প্রচারণা নিয়ে স্থানীয় বিএনপির বেশ কিছু নেতাকর্মীর সাথে তার কিছুদিন আগে উত্তপ্ত বাকবিতন্ডা হয়েছিল বলে জানা যায়।

ঈশ্বরদী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আশরাফুল ইসলাম জানান, মুলাডুলি বাণিজ্যিক ইক্ষু খামার সংলগ্ন এলাকা থেকে আওয়ামী লীগ নেতা আসাদুল ইসলাম এরশাদের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

শেয়ার করুন !
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply