এরশাদের একক সিদ্ধান্তে রাঙ্গা বিরোধীদলীয় হুইপ!

0

সময় এখন ডেস্ক:

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এরশাদ তার একক সিদ্ধান্তে মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গাকে বিরোধী দলের প্রধান হুইপের দায়িত্ব দিয়েছেন। সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা হওয়ার পর দ্বিতীয় এই সিদ্ধান্ত নিজে নিজেই নিলেন সাবেক সেনা শাসক।

স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর কাছে শুক্রবারই চিঠি পাঠিয়েছেন এরশাদ, যদিও তিনি নিজেই এখনো সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেননি।

গত ৩০ ডিসেম্বরের ভোটে ২২টি আসনে জিতে দ্বিতীয় বৃহত্তম দলে পরিণত হয়েছে জাতীয় পার্টি। তবে এসব আসন তারা পেয়েছে জোটের শরিক আওয়ামী লীগের সমর্থনেই। আর বিএনপি ও তার জোটের শরিকরা কেবল সাতটি আসনে জয়ের পর জাতীয় পার্টি যখন বিরোধী দল নাকি সরকারি বেঞ্চে বসা নিয়ে সিদ্ধান্তহীনতায়, তখন একক সিদ্ধান্তে এরশাদ শুক্রবার জানান তারা বসবেন বিরোধী দলের বেঞ্চেই। তবে গত পাঁচ বছরের মতো এবার আর মন্ত্রিত্ব নেবেন না। বিরোধীদলীয় নেতাও আর রওশন হবেন না, তিনি নিজেই পালন করবেন এই দায়িত্ব।

এরশাদ এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে জাতীয় পার্টির সংসদীয় সভাপতিমণ্ডলী এবং পরে সংসদীয় দলের বৈঠকেও তাদের অবস্থান সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিতে পারছিল না। এমনকি সংসদীয় দলের নেতা কে হবেন, তা নিয়েও তৈরি হয় বিরোধ।

স্পিকারকে দেওয়া এরশাদের চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘একাদশ জাতীয় সংসদে জাতীয় পার্টি প্রধান বিরোধী দল হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে। পদাধিকার বলে জাতীয় পার্টির পার্লামেন্টারি দলের সভাপতি হিসেবে আমি বিরোধীদলীয় নেতা এবং পার্টির কো-চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের উপনেতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গাকে বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ হিসেবে মনোনীত করা হলো।’

বিলুপ্ত হতে যাওয়া দশম সংসদে বিরোধীদলীয় প্রধান হুইপ ছিলেন প্রয়াত তাজুল ইসলাম চৌধুরী। তবে রওশনের কোনো ডেপুটি অর্থাৎ উপনেতা ছিল না। এবার নিজের ছোট ভাইকে এরশাদ কেবল সংসদে বিরোধীদলীয় উপনেতা নন, চাইছেন তার অবর্তমানে জাতীয় পার্টির হর্তাকর্তা হবেনও জি এম কাদের। এরই মধ্যে এক বিবৃতিতে তিনি তার এই ইচ্ছার কথা জানিয়ে দিয়েছেন।

জাতীয় পার্টিতে চেয়ারম্যানের ক্ষমতা অসীম। তিনি একক সিদ্ধান্তে যে কোনো বিষয়ে অবস্থান চূড়ান্ত করতে পারেন। দলের অন্য নেতাদের মতামত নেওয়ার প্রয়োজন পড়ে না। ভোটের আগে আগে রাঙ্গাকেও তিনি একক সিদ্ধান্তে মহাসচিব বানান। বাদ দেন এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদারকে।

শেয়ার করুন !
  • 2
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply