বঞ্চিত নাকি প্রধানমন্ত্রী ভিন্ন কিছু ভাবছেন তাদের নিয়ে?

0

সময় এখন ডেস্ক:

শেষ পর্যন্ত চমকই দেখালেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বয়স, কর্মদক্ষতা, দায়িত্বের প্রতি নিবেদন এবং ভিন্ন পরিকল্পনার অংশসহ বিবিধ কারনে এবার মন্ত্রিসভা থেকে পূর্বতনদের অনেকেই বাদ পড়েছেন। প্রধানমন্ত্রী নতুনেই আস্থা রাখলেন মন্ত্রিসভা গঠনে।

এই মন্ত্রিসভার শপথ হতে যাচ্ছে সোমবার- যেখানে মন্ত্রিসভায় থাকা সিনিয়র মন্ত্রীদের অধিকাংশই বাদ পড়েছেন। এর বদলে নবীনদের ওপরই বেশি আস্থা রেখেছেন টানা ৩ বার ক্ষমতায় আসা আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। ঠাঁই মিলেছে প্রথমবারের মত সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়া কয়েকজন তরুণ নেতারও।

তবে দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানাচ্ছে, এখনই তাদেরকে (বাদ পড়ারা) বঞ্চিত বলা যাচ্ছে না। কারন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিন্ন কিছু পরিকল্পনার অংশ হতে পারেন তারা। তাদের অভিজ্ঞতা, দক্ষতা, প্রজ্ঞা এসব নিশ্চয় হেলাফেলার বিষয় নয়।

নতুন মন্ত্রিসভায় যারা থাকবেন তাদের এরই মধ্যে ফোন করে জানাতে শুরু করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। মন্ত্রিসভায় কারা থাকছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম রোববার বিকেল ৫টায় তা সংবাদ সম্মেলনে জানান।

জানা গেছে, এবারের নতুন মন্ত্রিসভায় থাকছেন ৪৬ জন। এর মধ্যে মন্ত্রী ২৪ জন, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী ও ৩ জন উপমন্ত্রী থাকছেন। তবে আওয়ামী লীগের বাইরে কেউ মন্ত্রিসভায় থাকছেন না।

সিনিয়র মন্ত্রিদের যারা বাদ পড়েছেন তারা হলেন- শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, নৌমন্ত্রী শাজাহান খান, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম, গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী মুহাঃ ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক, পরিবেশ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, পানিসম্পদ মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী, রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, মৎসমন্ত্রী নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, বিমানমন্ত্রী এ. কে. এম শাহজাহান কামাল ও ধর্মমন্ত্রী মতিউর রহমান। মন্ত্রীদের মধ্যে টেকনোক্রাট দুই মন্ত্রী নুরুল ইসলাম ও মতিউর রহমান ভোটের আগেই পদত্যাগ করেন।

শেয়ার করুন !
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply