নতুনদের সুযোগ দিয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী: নাহিদ

0

সময় এখন ডেস্ক:

সদ্য বিদায়ী শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, নির্বাচনের আগে দেশের অগ্রগতি, পরিস্থিতিসহ সবকিছু বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী জনগণের কাছে পরিকল্পনা তুলে ধরেছিলেন। জনগন তাকে রায় দিয়েছে। তাই মন্ত্রিসভা গঠন করেছেন প্রধানমন্ত্রী। নতুন বাংলাদেশ গড়ে তুলবার ক্ষেত্রে নতুনদের যে সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছেন সেটা বিরাট দুরদর্শিতা। সঠিকভাবেই প্রধানমন্ত্রী এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

সোমবার (৭ জানুয়ারি) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি। এসময় তিনি প্রধানমন্ত্রীকে ও সব মন্ত্রীদের অভিনন্দন জানান।

নতুন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির প্রশংসা করে নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, তিনি উচ্চ শিক্ষিত। তার জ্ঞান ও শিক্ষা উচ্চ মানের। তিনি খুবই মার্জিত। তাকে আমি পছন্দ করি, আমাদের সম্পর্ক খুবই ঘনিষ্ঠ। আমরা দীর্ঘদিন ধরে সংসদে একসাথে কাজ করছি। মন্ত্রিসভায়ও একসাথে ৫ বছর কাজ করেছি। ফলে উনি এখানে দায়িত্ব পেয়ে আসাতে আমি খুবই খুশী। আমি তাকে স্বাগত জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, ডা: দীপু মনি খুবই উদ্যোগী মানুষ। তিনি উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে উচ্চমানে নিয়ে যাবেন বলে আমি আশা করছি।

সদ্য বিদায়ী এ মন্ত্রী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী যে লক্ষ্যে নিয়ে যাবেন, আমরা তার কর্মী হিসেবে কাজ করবো যার যার জায়গা থেকে।

শপথ নিলেন প্রধানমন্ত্রী এবং মন্ত্রিসভার সদস্যবৃন্দ

গতকাল রোববার (৬ জানুয়ারি) বিকেলে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ৪৭ সদস্যের নতুন মন্ত্রিসভার নাম ও দপ্তর বণ্টনের কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম। এবারই প্রথমবার শপথের আগে মন্ত্রীদের তালিকা ও দপ্তর বণ্টনের কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। নতুন ও পুরানদের সমন্বয়ে গঠিত শেখ হাসিনার মন্ত্রিসভায় এবার ২৪ জন মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী এবং তিনজন উপমন্ত্রী থাকছেন। বিদায়ী সরকারে থাকা ৩৬ জনের নতুন মন্ত্রিসভায় জায়গা হয়নি। আর নতুন সরকারের প্রথমবারের মতো সরকারের দায়িত্ব পালন করতে যাচ্ছেন ৩১ জন।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, নতুন মন্ত্রিসভা শপথ নিলেই ২০১৪ সালের ১২ জানুয়ারি গঠিত পুরনো মন্ত্রিসভা ভেঙে যাবে।

গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা করে আওয়ামী লীগ জোট। জোটগতভাবে আওয়ামী লীগ পেয়েছে ২৮৮ আসন। এককভাবে এ সংখ্যা ২৫৭। আর মহাজোটে থাকা জাতীয় পার্টি ২২টি আসন পেয়েছে। এবার সংসদে বিরোধী দলে থাকার ঘোষণা দিয়েছে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নেতৃত্বাধীন দলটি। মন্ত্রী হচ্ছেন যারা

পূর্ণ মন্ত্রী ২৪ জন

মন্ত্রিসভার পূর্ণ মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে যাচ্ছেন; নোয়াখালী-৩ আসনের সাংসদ ওবায়দুল কাদের (সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়), ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ আসনের সাংসদ আনিসুল হক (আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়), কুমিল্লা-১০ আসনের সাংসদ আ হ ম মুস্তফা কামাল (অর্থ মন্ত্রণালয়), টাঙ্গাইল-১ আসনের সাংসদ ড. আবদুর রাজ্জাক (কৃষি মন্ত্রণালয়), ঢাকা-১২ আসনের সাংসদ আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল (স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়), গাজীপুর-১ আসনের সাংসদ আ ক ম মোজাম্মেল হক (মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়), চট্টগ্রাম-৭ আসনের সাংসদ ড. হাছান মাহমুদ (তথ্য মন্ত্রণালয়), কুমিল্লা-৯ আসনের সাংসদ মো. তাজুল ইসলাম (স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়), চাঁদপুর-৩ আসনের সাংসদ ডা. দীপু মনি (শিক্ষা মন্ত্রণালয়), সিলেট-১ আসনের সাংসদ এ কে আবদুল মোমেন (পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়), সুনামগঞ্জ-৩ আসনের সাংসদ এম এ মান্নান (পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়), নরসিংদী-৪ আসনের সাংসদ নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন (শিল্প মন্ত্রণালয়), নারায়ণগঞ্জ-১ আসনের সাংসদ গোলাম দস্তগীর গাজী (বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়), মানিকগঞ্জ-৩ আসনের সাংসদ জাহিদ মালেক (স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়), নওগাঁ-১ আসনের সাংসদ সাধন চন্দ্র মজুমদার (খাদ্য মন্ত্রণালয়), রংপুর-৪ আসনের সাংসদ টিপু মুনশি (বাণিজ্য মন্ত্রণালয়), লালমনিরহাট-২ আসনের সাংসদ নুরুজ্জামান আহমেদ (সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়), পিরোজপুর-১ আসনের সাংসদ শ. ম. রেজাউল করিম (গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়), মৌলভীবাজার-১ আসনের সাংসদ মো. শাহাব উদ্দিন (পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়), বান্দরবানের সাংসদ বীর বাহাদুর উ শৈ সিং (পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়), চট্টগ্রাম-১৩ আসনের সাংসদ সাইফুজ্জামান চৌধুরী (ভূমি মন্ত্রণালয়), পঞ্চগড়-২ আসনের সাংসদ মো. নুরুল ইসলাম সুজন (রেলপথ মন্ত্রণালয়) এবং টেকনোক্র্যাট কোটায় স্থপতি ইয়াফেস ওসমান (বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়) ও মোস্তাফা জব্বারের (ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়)।

প্রতিমন্ত্রী ১৯ জন

প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে যাচ্ছেন; ঢাকা-১৫ আসনের সাংসদ কামাল আহমেদ মজুমদার (শিল্প মন্ত্রণালয়), সিলেট-৪ আসনের সাংসদ ইমরান আহমদ (প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়), গাজীপুর-২ আসনের সাংসদ জাহিদ আহসান রাসেল (যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়), ঢাকা-৩ আসনের সাংসদ নসরুল হামিদ বিপু (বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়), নেত্রকোনা-২ আসনের সাংসদ আশরাফ আলী খান খসরু (মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়), খুলনা-৩ আসনের সাংসদ মন্নুজান সুফিয়ান (শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়), দিনাজপুর-২ আসনের সাংসদ খালিদ মাহমুদ চৌধুরী (নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়), কুড়িগ্রাম-৪ আসনের সাংসদ মো. জাকির হোসেন (প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়), রাজশাহী-৬ আসনের সাংসদ মো. শাহরিয়ার আলম (পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়), নাটোর-৩ আসনের সাংসদ জুনাইদ আহমেদ পলক (তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ), মেহেরপুর-১ আসনের সাংসদ ফরহাদ হোসেন (জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়), যশোর-৫ আসনের সাংসদ স্বপন ভট্টাচার্য (স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়), বরিশাল-৫ আসনের সাংসদ জাহিদ ফারুক (পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়), জামালপুর-৪ আসনের মো. মুরাদ হাসান (স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়), ময়মনসিংহ-২ আসনের সাংসদ শরীফ আহমেদ (সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়), ময়মনসিংহ-৫ আসনের সাংসদ কে এম খালিদ (সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়), ঢাকা-১৯ আসনের সাংসদ ডা. এনামুর রহমান (দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়), হবিগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ মো. মাহবুব আলী (বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়) এবং টেকনোক্র্যাট কোটায় শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ (ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়)।

উপমন্ত্রী ৩ জন

উপমন্ত্রী হিসেবে ডাক পেয়েছেন বাগেরহাট-৩ আসনের সাংসদ হাবিবুন নাহার (পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়), শরীয়তপুর-২ আসনের সাংসদ এ কে এম এনামুল হক শামীম (পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়) ও চট্টগ্রাম-৯ আসনের সাংসদ মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল (শিক্ষা মন্ত্রণালয়)।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!