৫ তলা থেকে যুবকের লাফ, ২ ঘণ্টা দাঁড়িয়ে ভিডিও করলো শত শত মানুষ!

0

সময় এখন ডেস্ক:

বগুড়া শহরে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিসসহ ও শত শত মানুষের উপস্থিতিতে নির্মাণাধীন একটি ভবনের ৫ তলায় লাগানো বাঁশের কাঠামো থেকে লাফিয়ে এক ব্যক্তি সুই- ‘সাইড করেছেন। সোমবার (৩ মে) বিকালে শহরের বড়গোলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ওই ব্যক্তির নাম টমাস সরকার (৩৮)। তিনি বগুড়া শহরের চকসুত্রাপুর এলাকার হাফিজুর রহমান সরকারের ছেলে। পরিবারসূত্রে জানা গেছে টমাস মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন ছিলেন।

বগুড়ায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আবদুল হালিম এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

টমাসের পরিবারের উদ্ধৃতি দিয়ে সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানিয়েছেন, এর আগেও তিনি দু’বার চেষ্টা করেছিলেন।

পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সূত্র জানায়, নির্মাণাধীন ওই ৭ তলা ভবনে প্লাস্টারের কাজ চলছিল। টমাস সোমবার বিকালের দিকে প্লাস্টারের কাজে ব্যবহৃত বাঁশের কাঠামো বেয়ে ৫ তলায় ওঠেন। নির্মাণ শ্রমিকরা ওঠার কারণ জানাতে চাইলে তিনি সুই- ‘সাইড করবেন বলে জানান।

খবরটি জানাজানি হলে ফায়ার সার্ভিস ও সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসেন। এর মধ্যে শত শত মানুষ ভবনের নিচে ভিড় করেন। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা টমাসকে বুঝিয়ে নিচে নামাতে ব্যর্থ হলে মই দিয়ে তাকে উদ্ধারের প্রস্তুতি নেন।

এ সময় টমাস সরকার হাত ছেড়ে দিলে নিচে পড়ে গুরুতর আহত হন। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তাকে উদ্ধার করে মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃ’ত ঘোষণা করেন।

টমাস সরকারের বড়ভাই শামীম সরকার জানান, ই’য়াবা সেবনের কারণে ৮ বছর আগে টমাসের স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে যান। তখন তিনি মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন। ৬ বছর আগে বাবার মৃ’ত্যু টমাসকে আরও ভারসাম্যহীন করে দেয়। একইভাবে দু’বার চেষ্টা করেছেন। একটি কনস্ট্রাকশন ফার্মে চাকরি করলেও ২ মাস আগে ছেড়ে দেন টমাস।

শামীম দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, তার ভাই প্রায় ২ ঘণ্টা ভবনের বাঁশের ওপর দাঁড়িয়ে থাকলেও তাকে উদ্ধারের চেষ্টা করেনি লোকজন। ঘটনাস্থলে দাঁড়িয়ে তারা মজা দেখেছে ও ভিডিও করেছে।

বগুড়ায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আবদুল হালিম জানান, টমাসকে উদ্ধারের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। ৫ তলায় প্লাস্টারের কাজে লাগানো বাঁশ থেকে লাফ দেন তিনি।

সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানান, টমাসের ডেডবডি উদ্ধার করে বগুড়া শজিমেক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার করুন !
  • 20
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!