পটুয়াখালীতে হিন্দু বাড়িঘর ভাঙচুর ও নির্মাণ সামগ্রী লোপাট

0

সময় এখন ডেস্ক:

পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলার কলাপাড়া পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের চিংগড়িয়া এলাকায় আজ বৃহস্পতিবার সকালে সনাতন ধর্মালম্বী নিতাই লাল সরকারের নিজ মালিকাধীন জমিতে নির্মণাধীন ঘর স্থানীয় মো. সবুজ মৃধার নেতৃত্বে ভাঙচুর করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জনৈক ক্ষমতাধর মো. সবুজ মৃধা, পিতা মো. আফতাব উদ্দীন মৃধা কিছুদিন ধরেই অজানা কারণে উক্ত জমিটি তার বলে মৌখিকভাবে দাবী জানিয়ে আসছিলেন। কিন্তু মো. সবুজ মৃধার কাছে উক্ত জমির মালিকানার কোনো বৈধ কাগজ-পত্র না থাকায় তাকে আইনগতভাবে মীমাংসার কথা বলা হয়।

যদিও মো. সবুজ মৃধা আইনি প্রক্রিয়ায় জমি পাওয়ার রাস্তায় যাননি, বরং জমির বৈধ মালিক নিতাই লাল সরকার যখন তার দখলে থাকা জমিতে ঘর নির্মাণের উদ্যোগ নেন তখনই মো. সবুজ মৃধা তার লোকজন নিয়ে বাধা প্রদান ও হুম’কি দিতে শুরু করেন।

বাধ্য হয়ে এক মাস আগে নিতাই লাল সরকার কলাপাড়া থানায় একটা মীমাংসা শালিসের লিখিত আবেদন করেন। কিন্তু আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে থানা থেকে দু-পক্ষকে ডাকা হলেও নির্ধারিত দিনে মো. সবুজ মৃধা গং থানায় উপস্থিত হননি।

গত কিছুদিন আগে নিতাই লাল সরকার পুনরায় ঘর তোলার কাজ শুরু করেন। কাজ যখন প্রায় শেষ পর্যায়ে তখন আজ সকাল আনুমানিক ৯টার সময় মো. সবুজ মৃধা ও তার লোকজন হঠাৎ উপস্থিত হয়ে সন্ত্রা’সী কায়দায় আত’ঙ্ক সৃষ্টি করে ঘরটি ভাংচুর করে এবং হুম’কি দিয়ে চলে যায়। যাওয়ার সময় তার লোকজন নির্মাণ সামগ্রীও তুলে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ রয়েছে।

উল্লেখ্য, ঐতিহ্যগতভাবে কেবল হিন্দু ধর্মের অনুসারী লোকজনই যুগ যুগ ধরে চিংগড়িয়া এলাকায় শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করে আসছে। এখানে জমি কেনা-বেচাও উক্ত ধর্মের লোকজনের মধ্যেই সব সময় হয়ে আসছে। তাই এখানে মো. সবুজ মৃধার কোনো জমি থাকার কথাও নয়।

কিন্তু মো. সবুজ মৃধার দাবী, ৭০ বছর আগে তাদের বাবা জনৈক হিন্দু মালিকের কাছ থেকে জমিটি ক্রয় করেছেন অথচ মো. সবুজ মৃধার পিতা আফতাব উদ্দীন মৃধা কোনোদিন এখানে তাদের জমি থাকার দাবীও করেননি। আর জমিটি কখনও মো. সবুজ মৃধা কিংবা তার পরিবারের দখলে ছিলো না, এখনও নেই।

বর্তমানে নিতাই লাল সরকার জীবনের নিরাপত্তা ও নিজ জমিতে তোলা ঘর ভাঙচুরের ব্যাপারে কলাপাড়া থানায় যেয়ে সংশ্লিষ্ট অফিসারকে অবহিত করেছেন। এ ঘটনায় অত্র এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন পরিবার নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন।

এদিকে সর্বশেষ খবর অনুযায়ী নিতাই লাল সরকারের পরিবার জানিয়েছে, কলাপাড়া থানা থেকে একজন এস আই আসার কথা ঘটনা তদন্তের জন্য, কিন্তু রাত ৮টা পর্যন্ত কেউই আসেননি।

শেয়ার করুন !
  • 133
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!