অমির অফিস থেকে ১৩২টি পাসপোর্ট উদ্ধার

0

সময় এখন ডেস্ক:

পরীমণির সাথে সম্প্রতি পরিচয় হওয়া সেই তুহিন সিদ্দিকী অমির অফিস থেকে ১৩২টি পাসপোর্ট উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৫ মে) রাতে অমির অফিসে অভিযান চালায় সাভার ও দক্ষিণখান থানা পুলিশ। সেখান থেকে দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় অমিসহ ২ কর্মচারীর নামে পাসপোর্ট অপরাধ আইনে মামলা করা হয়েছে।

পুলিশের উত্তরা বিভাগের উপকমিশনার মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম সংবাদমাধ্যমকে বলেন, রাজধানীর দক্ষিণখানের সিঙ্গাপুর ট্রেনিং সেন্টার নামের অমির একটি রিক্রুটিং এজেন্সিতে অভিযান চালানো হয়। এখান থেকে ১৩২টি পাসপোর্ট জব্দ এবং দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা হলেন— বাছির ও মশিউর। এ ছাড়া উত্তরা পশ্চিম থানা এলাকায় আরেকটি ট্রাভেল এজেন্সিতে অভিযান চালায় পুলিশ। এখান থেকে কিছু পাওয়া যায়নি।

এদিকে পরীমণির দায়ের করা মামলায় ৭ দিনের পুলিশ রিমান্ডে আছে অমি। সোমবার (১৪ মে) অমিসহ ৬ জনের নামে বিমানবন্দর থানায় মামলা করা হয়। অন্যদিকে পরীমণির করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন আগামী ৮ জুলাইয়ের মধ্যে জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

কে এই অমি?

কে এই অমি? কোন ক্ষমতাবলে তারা ঢাকাই চলচ্চিত্রের একজন প্রতিষ্ঠিত নায়িকার সঙ্গে এমন আচরণ করেছেন?

অমির পুরো নাম তুহিন সিদ্দিকী অমি। তার বাবার নাম তোফাজ্জল হোসেন। তবে এলাকায় আদম তোফাজ্জল হিসেবেই পরিচিত। বাবা-ছেলের নামে সোনা চোরা কারবার ও হুন্ডি ব্যবসার অভিযোগও রয়েছে।

একসময় অমি ঢাকা মহানগর যুবদল উত্তরের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন বলে জানা যায়। তার বাবাও বিএনপির রাজনীতি করতেন। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর তারা ভোল পাল্টে ফেলেন। অভিযোগ আছে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে শাসক দলের নেতাদের ম্যানেজ করতেন তারা।

দক্ষিণখানের আশকোনা ও টাঙ্গাইলের কটিয়ায় বিশাল অর্থের মালিক তারা। আশকোনায় দেড় বিঘা জমির ওপর সিঙ্গাপুর ট্রেনিং সেন্টার নামে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। তাছাড়া আশকোনা হুদা মসজিদ রোডে ৫ কাঠার ওপর ৬ তলার আলিশান বাড়ি, এ বাড়িসংলগ্ন ৫ কাঠা জমি,

দক্ষিণখানের দৌবাইদ এলাকায় দেড় বিঘার ওপর সিঙ্গাপুর নামে আরেকটি ট্রেনিং সেন্টার, উত্তরখানের হেলাল মার্কেটসংলগ্ন বিশাল গেস্ট হাউজ, টাঙ্গাইলের কটিয়ার বাইপাসে বিশাল অট্টালিকা, রেস্টুরেন্ট, মসজিদ, মাদ্রাসা ও হাসপাতাল এবং ঢাকার উত্তরার ৪ নম্বর সেক্টরে দুটি আলিশান ফ্ল্যাট রয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও অন্য একাধিক সূত্র থেকে জানা যায়, ক্লাবপাড়ায় অমি পরিচিত মুখ। তার বাবা তোফাজ্জল হোসেন একসময় বিদেশে ছোটখাট চাকরি করতেন। দেশে ফিরে ব্যবসা শুরু করেন। তবে সংসারে ভাগ্য ফিরে যখন ছেলে অমি আশকোনায় তাদের সিঙ্গাপুর ট্রেনিং সেন্টার নামে একটি প্রতিষ্ঠানের হাল ধরেন।

এই প্রতিষ্ঠানের আড়ালে নারী পাচার করে প্রচুর অর্থ আয় করছেন তারা। বিত্তশালী ও তাদের বখে যাওয়া সন্তানদের বিপথে নিতে অমির জুড়ি নেই।

এছাড়া শত শত কর্মী বিদেশে পাঠিয়ে ও প্রতারণা করে কোটি কোটি টাকার মালিক হন অমি। বিদেশে কর্মী পাঠানোর সূত্র ধরে সাবেক এমপি কাজী শহিদ ইসলাম পাপুলের সঙ্গে অমির পরিবারের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ ছিল বলে একটি সূত্র জানায়।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!