গাড়ি পোড়ানোর নির্দেশদাতা নিপুণ রায় জামিন পেলেন

0

সময় এখন ডেস্ক:

হেফাজতের ডাকা হরতালে সহিং’সতা সৃষ্টির নির্দেশ দেওয়ার অভিযোগে করা মামলায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ বিএনপির সভাপতি নিপুণ রায় চৌধুরীর জামিন মঞ্জুর করেছেন হাইকোর্ট।

বুধবার (১৬ জুন) হাইকোর্টের বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আজ জামিন আবেদনের পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জয়নুল আবেদীন ও আইনজীবী নিতাই রায় চৌধুরী। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল হারুন অর রশিদ।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের পুত্রবধূ ও দলের নির্বাহী সদস্য অ্যাডভোকেট নিপুণ রায় চৌধুরী গাড়িতে আগুন দেওয়ার নির্দেশ দিচ্ছেন এমন একটি কল রেকর্ড সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে।

এরপর গত ২৮ মার্চ নিপুণ রায়কে রাজধানীর রায়েরবাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে নাশকতা ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগে তার নামে হাজারীবাগ থানায় মামলা করা হয়।

এছাড়া রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানায় বে-আইনি সমাবেশ, গুরুতর আঘা’ত ও হ’ত্যাচেষ্টার অভিযোগে দায়ের করা অপর মামলায় নিপুণ রায় চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করা হয়। একই সঙ্গে এই দুই মামলায় তাকে রিমান্ডেও নেওয়া হয়।

যা ছিল নিপুণ রায়ের সেই ফোনালাপে:

যুবদলের নেতা আরমানকে হরতালের আগের রাতে (২৭ মার্চ) আগুন দেওয়ার বিষয়ে নির্দেশনা দেন নিপুণ রায়। কল রেকর্ডটি হুবহু তুলে ধরা হলো:

আরমান: ও দিদি?
নিপুণ রায়: আরমান ভাই, এলাকাতেই তো আছেন তাই না? কালকে তো হরতাল, একটা কিছু করা যাবে না?
আরমান: কী করতে হবে বলেন?
নিপুণ রায়: ধরায় দেন।
আরমান: ওকে ঠিক আছে।

নিপুণ রায়: শোনেন-
আরমান: হুম

নিপুণ রায়: বাস হোক যেটাই হোক, একদম পুরা, ফুল ধরবে, ফুল ধরবে। একটু দূর থেকে ভিডিও ছবি আমারে পাঠাবেন, অবশ্যই, অবশ্যই। ঠিক আছে… আমি কিন্তু জায়গা মতো পাঠাবো। হ্যাঁ, ওইটা মাথায় রাখবেন। ঠিক আছে, আজকেই আজকেই।

আরমান: ওকে।
নিপুণ রায়: বের হন।
আরমান: ইনশাল্লাহ।
নিপুণ রায়: এটা আমি চাই। একদম দাউ দাউ।

এরপর পরবর্তীতে আরেকটি ফোন কলে শোনা যাচ্ছে। আরমান ফোন করে নিপুণ রায়কে ফোন করে বলেন,

আরমান: ভিডিও করতে পারিনি। ছবি পাঠিয়েছি। লীগের লোকজন ঘেরা। পুলিশ ঘিরে রেখেছে।
নিপুণ রায়: ওকে সরে দাঁড়ান।
আরমান: সরে গেছি গা।
নিপুণ রায়: হোয়াটস অ্যাপে পাঠান।
আরমান: হুম, হোয়াটসঅ্যাপেই পাঠাইছি।

ফোনালাপটি প্রকাশ হওয়ার পরই নির্দেশনা পালনকারী আরমান খোরশেদ ও শাহীনকে কেরানীগঞ্জ থেকে আটক করা হয়েছে।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!