আবারও বুকে চিরকুট ঝোলানো গণধর্ষণ হোতার গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

0

ঝালকাঠি সংবাদদাতা:

ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ায় গণধর্ষণ মামলার আসামি সজল জোমাদ্দারের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত সজল পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলার নদমুলা গ্রামের আবুল হোসেন জোমাদ্দারের ছেলে। শনিবার দুপুরে উপজেলার বিনাপানি গ্রামের একটি মাঠ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। তার বুকে লেমিনেটিং করা একটি কাগজে লেখা ছিল- ‘আমার নাম সজল। মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণের কারনে আমার এই পরিণতি।’

সজল ভাণ্ডারিয়া থানার একটি গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি ছিলেন বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে কাঁঠালিয়া থানার ওসি এনামুল হক জানান, দুপুরে বিনাপানি গ্রামের একটি মাঠে সজলের লাশ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। তার মাথার দুই পাশে ২টি গুলির চিহ্ন রয়েছে। সজল মাদ্রাসা ছাত্রী ধর্ষণ মামলার আসামি। ধর্ষণের কারণে তার এই পরিণতি বলে উল্লেখ করা ছিল তার বুকে ঝোলানো কাগজে।

উল্লেখ্য, গত ১২ জানুয়ারি বেলা ১১টার দিকে পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলার নদমুলা গ্রামের বাড়ি থেকে পাশের হেতালবুনিয়া নানা বাড়ি বেড়াতে যাওয়ার পথে এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে তুলে নিয়ে পানের বরজের ভেতর গণধর্ষণ করা হয়। এ মামলায় সজলকে প্রধান আসামি করে ১৪ জানুয়ারি ভাণ্ডারিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের হয়। মামলার পর থেকেই সজল জোমাদ্দার নিখোঁজ ছিল।

প্রসঙ্গত, গত ১৭ জানুয়ারি, বৃহস্পতিবার ‘আমি ধর্ষণ মামলার মূল হোতা’ ট্যাগ গলায় ঝোলানো অবস্থায় সাভারে এক নারী পোশাক শ্রমিককে গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি রিপনের (৩৯) গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছিল পুলিশ। সাভারের খাগান এলাকার আমিন মডেল টাউনের ভেতরে একটি মাঠ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

৫ জানুয়ারি সাভারের আশুলিয়ায় একটি পোশাক কারখানার এক নারী শ্রমিক সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হন। এর এক দিন পর ওই নারী মারা যান। সন্ধ্যায় কারখানা ছুটির পর বাড়ি ফেরার উদ্দেশে রওনা দেন ওই নারী। এসময় স্থানীয় রহিম, শিপন ও কারখানার লাইনচিফ রিপনসহ ৫ বখাটে তার গতিরোধ করে ও ধর্ষণ করে।

শেয়ার করুন !
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply