লবণ ক্ষেতে পাওয়া গেল সাড়ে ৭ কোটি টাকার ইয়াবা!

0

কক্সবাজার সংবাদদাতা:

কক্সবাজারের টেকনাফের হোয়াইক্যংস্থ জাফর প্রজেক্টের লবণ ক্ষেত থেকে আড়াই লাখ পিস ইয়াবা জব্দ করেছে বিজিবি সদস্যরা। তবে এ ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

২ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবির) অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আছাদুদ-জামান চৌধুরী বলেন, টেকনাফের হোয়াইক্যংস্থ জাফর প্রজেক্টের লবণ ক্ষেত এলাকা দিয়ে মায়ানমার থেকে একটি ইয়াবা বড়ির চালান আসছে। এমন গোপন খবরে মঙ্গলবার ভোর রাত ৫টার দিকে তার নেতৃত্বে জীম্মংখালী বিওপির একটি বিশেষ টহলদল ওই এলাকায় অবস্থান নেয়। এসময় একদল সন্দেহভাজন লোক বস্তা মাথায় নিয়ে হোয়াইক্যং জাফর প্রজেক্ট লবণ ক্ষেত এলাকা দিয়ে নয়াবাজারের দিকে আসছিলেন।

বিজিবির টহলদল চোরাকারবারীদের দূর থেকে থামার নির্দেশ দিলে তারা দৌড়াতে থাকেন। এসময় বিজিবি সদস্যরা তাদের ধাওয়া করলে এক পর্যায়ে চোরাকারবারীরা বস্তা ফেলে দ্রুত পাশ্ববর্তী গ্রামে পালিয়ে যায়। পরে ওই এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে চোরাকারবারীদের ফেলে যাওয়া ২ লাখ ৫০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত ইয়াবার আনুমানিক মূল্য ৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা বলে তিনি জানান।

উদ্ধারকৃত ইয়াবা ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে। যা পরবর্তীতে উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

৩০ পারা কোরআনে হাফেজ সাড়ে ৫ হাজার ইয়াবাসহ আটক!

চট্টগ্রামের কর্ণফুলী থানাধীন শিকলবাহা চৌমুহনী মোড় থেকে ৫ হাজার ৩০০ পিস ইয়াবাসহ এক কোরআনে হাফেজকে গ্রেফতার করার কথা জানিয়েছেন কর্ণফুলী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনিরুল ইসলাম। গ্রেফতারকৃত ওই কোরআনে হাফেজের নাম আব্দুল মান্নান (৩৫)।

কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর মাহমুদ জানান, মঙ্গলবার (৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টার দিকে তাকে গ্রেফতার করা হয় ।

গ্রেফতারকৃত আব্দুল মান্নান নরসিংদী জেলার সদর উপজেলার কাঁঠালিয়া ইউনিয়নের মোল্লাবাড়ি এলাকার অহিদ আলীর ছেলে। তিনি একই এলাকার দক্ষিণ নোয়াকান্দি গ্রামের একটি হেফজখানার শিক্ষক ছিলেন, সেখানে আরবি পড়াতেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। ইয়াবা পরিবহনের কাজে জড়ানোর পর হেফজখানায় পড়ানো ছেড়ে দিয়েছেন আব্দুল মান্নান।

কর্ণফুলী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘বাড়তি আয়ের লোভে আব্দুল মান্নান জড়িয়ে পড়েন ইয়াবা পাচারে। কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে ইয়াবা কিনে ঢাকা-নরসিংদিসহ বিভিন্নস্থানে বিক্রি করতেন তিনি। দ্রুত বড়লোক হওয়ার নেশায় একসময় মক্তবে শিক্ষকতার পেশাও ছেড়ে দেন।’

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, ৩০ পারা কোরআনে হাফেজ আব্দুল মান্নান কওমি মাদ্রাসা থেকে এসএসসি সমমান পর্যন্ত পড়ালেখা করেছেন। অভাবে পড়ে তিনি গত একবছর ধরে ইয়াবা পাচারে নেমেছেন। নরসিংদী থেকে বাসে করে মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে কক্সবাজার পৌঁছান। ১ ঘণ্টার মধ্যে আবদুল অহিদ নামে এক ব্যক্তির কাছ থেকে ইয়াবাগুলো সংগ্রহ করেন। ইয়াবাগুলো তিনি ঢাকায় আব্দুল্লাহ নামে আরেক ব্যক্তির কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য নিয়ে যাচ্ছিলেন।

শেয়ার করুন !
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply