পরীমনিকে এক কাপ চা খাওয়াতে আদালতে জাহাঙ্গীর!

0

আইন আদালত ডেস্ক:

রাজধানীর বনানী থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে করা মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে গেছেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত নায়িকা পরীমনি।

ঢাকার মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদারের আদালতে রোববার দুপুর আড়াইটার দিকে হবে মামলার শুনানি।

সে খবর আগেই পেয়েছিলেন বৃদ্ধ চা বিক্রেতা মো. জাহাঙ্গীর মিয়া। তাই সকাল থেকে অবস্থান নিয়েছেন আদালতের এজলাস কক্ষের সামনে। তার ইচ্ছা, পরীমনিকে এক কাপ চা খাওয়ানো।

তিনি বলেন, ‘পরীমনিকে এক কাপ চা খাওয়াইতে চাই।’

জাহাঙ্গীর মিয়ার বয়স প্রায় ৭০ বছর। তার বাড়ি কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রাম উপজেলায়। তিনি ১৭ বছর ধরে পুরান ঢাকার আদালত পাড়াসহ বিভিন্ন স্থানে ফেরি করে চা-বিস্কুট বিক্রি করেন।

জাহাঙ্গীর জানান, এর আগে একবার আদালতে পরীমনির সঙ্গে দেখা হয়েছিল তার। সে সময় নায়িকার সঙ্গে তার কুশল বিনিময় হয়।

‘আগের তারিখ দেখা হলে সে আমাকে ভাল-মন্দ জিগাইছে। তাই আমার খুব ইচ্ছা, তারে এক কাপ চা খাওয়ানোর’, বলেন জাহাঙ্গীর।

এদিকে পরীমনির জামিন আবেদন গ্রহণ করে ৫০ হাজার টাকা বন্ডে রোববার জামিন বাড়ানোর আদেশ দেয় ঢাকার মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদারের আদালত।

মামলাটির অভিযোগপত্র তৈরির পর রোববার শুনানির দিন ধার্য ছিল। পরীমনিসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে সিআইডির দেয়া অভিযোগপত্র আদালতে উপস্থাপন করা হয়। আদালত অভিযোগপত্র গ্রহণ করে পরবর্তী বিচারের জন্য মামলাটি মহানগর দায়রা জজ আদালতে বদলির আদেশ দেয়।

গত ৪ অক্টোবর মামলাটির তদন্ত সংস্থা সিআইডি ঢাকার মুখ্য মহানগর আদালতের সাধারণ নিবন্ধন শাখায় অভিযোগপত্র জমা দেয়। এতে পরীমনিসহ ৩ জনকে অভিযুক্ত করা হয়। অপর দুজন হলেন পরীমনির সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দিপু ও পরীমনির খালু কবীর হাওলাদার। আসামিদের সবাই আগে থেকেই জামিনে আছেন।

আদালতে পরীমনির পক্ষে জামিন শুনানি করেন নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভী। রাষ্ট্রপক্ষে ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু জামিনের বিরোধিতা করেন।

উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত পরীমনির জামিনের আদেশ দেয় আদালত।

এদিকে বিচার শুরুর আগে গরমে অসুস্থ হয়ে পড়েন পরীমনি। এসময় তাকে আইনজীবীদের বেঞ্চিতে বসিয়ে ফাইল দিয়ে বাতাস করেন সহযোগীরা।

গত ৪ আগস্ট বিকেলে বনানীর ১২ নম্বর সড়কে পরীমনির বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাবের একটি দল। এ সময় ওই বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য জব্দ করা হয়। আটক করা হয় পরীমনিকে।

পরের দিন ব্রিফিংয়ে পরীমনিকে আটক করার কারণ জানানোর পাশাপাশি বনানী থানায় একটি মাদক মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখায় র‌্যাব। এরপর এই অভিনেত্রীকে তিন দফায় ৭ দিনের রিমান্ড শেষে ২১ আগস্ট কারাগারে পাঠানো হয়।

এই মামলায় পরীমনিকে বারবার রিমান্ডে দেয়ায় বিচারিক আদালতের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলে হাইকোর্ট। সমালোচনাও হয়।

এসবের মাঝে ৩১ আগস্ট জামিন পান পরীমনি। বিশ্রাম শেষে ফের লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশনের জগতে ফেরার প্রস্তুতি নিয়েছেন তিনি।

সোমবার থেকে ওয়েব ফিল্ম গুনিন এর শুটিং। সেখানে পরীমনির অংশ নেয়ার কথা রয়েছে। এ ছাড়া পরীমনির হাতে রয়েছে প্রীতিলতা, মা নামে সিনেমা ও ওয়েব সিরিজ।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!