সরকার ও প্রশাসনকে চাপে ফেলতেই কুমিল্লার ঘটনা

0

স্পেশাল করেসপন্ডেন্স:

কুমিল্লায় কোরান অবমাননার ঘটনাটি উদ্দেশ্যমূলক। দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করতে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। এ মন্তব্য করে ঘটনাটিতে বিএনপি-জামায়াত-হেফাজতের সম্পর্ক রয়েছে বলে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ইউনাইটেড ইসলামী পার্টির নেতারা।

ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ইউনাইটেড ইসলামী পার্টির নেতারা এ কথা বলেন। দলটির চেয়ারম্যান মো. ইসমাইল হোসাইন বলেন, সরকার ও প্রশাসনকে বিপদগ্রস্ত করার জন্য ওই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। যা ঘটেছে, তা নাটক। ষড়যন্ত্র ও অশান্তির জন্য করা হয়েছে।

ইসমাইল হোসাইন অভিযোগ করে বলেন, আলেম সমাজকে সমালোচিত করার জন্য জামায়াত-বিএনপি-হেফাজত এই ষড়যন্ত্র করেছে।

ওই ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তিদের পরিচয় প্রকাশ করার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, তাদের দ্রুত গ্রেপ্তার করা না হলে মিছিল, মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি দেওয়া হবে।

সরকার সমর্থিত দল হওয়া স্বত্ত্বেও কেন আন্দোলনের ডাক দেওয়া হয়েছে, এমন প্রশ্নের জবাবে নেতারা বলেন, পবিত্র কোরানের বিরুদ্ধে কেউ ষড়যন্ত্র করলে তাকে রাজপথে রুখে দেওয়া হবে, সে যে–ই হোক। সরকার যদি ওই ঘটনার রহস্য উদ্‌ঘাটন করতে না পারে, তাহলে অবশ্যই আন্দোলন হবে।

সংবাদ সম্মেলনে দলের মহাসচিব শাহাদাত হোসাইন, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ শোয়াইব, উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ওবাইদুল্লাহ ফারুকি, সহসভাপতি আবদুস সাত্তার, যুগ্ম মহাসচিব ওমর ফারুক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পূজা মণ্ডপে কোরান, আমানউল্লাহ আমানের ফোনালাপ ফাঁস (অডিও)

বাঙালি হিন্দুদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গা পূজা চলার মধ্যেই বুধবার সকালে কুমিল্লায় নানুয়ারদীঘি এলাকার একটি পূজা মণ্ডপে কোরান অবমাননার কথিত অভিযোগ নিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। যা ছড়িয়ে দেয়া হয় সারাদেশে।

এক পর্যায়ে স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশ পরিস্থিতি শান্ত করতে গেলে তারা তোপের মুখে পড়ে, বাধে ব্যাপক সংঘর্ষ।

এর জের ধরে চাঁদপুরেও পূজা মণ্ডপে ভাঙচুর ও সংঘর্ষ হয়, সেখানে প্রাণহানিও ঘটে। মণ্ডপে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে চট্টগ্রামের বাঁশখালী ও কর্ণফুলী উপজেলা, কক্সবাজারের পেকুয়া, মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ ও কুলাউড়া এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জেও।

এ ঘটনার উত্তেজনায় সারাদেশে এক থমথমে অবস্থা বিরাজামন। তবে এরমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়েছে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য এবং দলের ঢাকা মহানগর উত্তর কমিটির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমানের একটি ফোনালাপ ফাঁস হয়।

যোগাযোগ মাধ্যম হোয়াটসঅ্যাপের একটি ফোনালাপে কুমিল্লার উক্ত পূজা মণ্ডপে মুসলমানদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ কোরান গোপনে রেখে আসার বিষয়ে বিএনপির এই নেতার সংশ্লিষ্টতার তথ্য পাওয়া যায়। কুমিল্লার ওই এলাকার ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিএনপি নেতার সাথে ফোনালাপে আমান উল্লাহ আমানকে যা বলতে শোনা যায়-

আমান- রাতে আমার লোকজন তো কোরআন রেখে আসল। আপনাকে তো আগেই জানায়ে রাখলাম যে ঘটনার সাথে রাথে রাস্তায় মাদ্রাসার ছেলে আর জামায়াতের লোকজন নামান। আর আমাদের লোকজন তো কাল বিকেল থেকেই মাঠে ছিল।

কাউন্সিলর- না ভাই, আমরা তো… যা যা কইছিলেন…

আমান- শুনেন, আপনাদের কাজ মানুষকে রাস্তায় নামানো। সকালের মধ্যে দেশ অচল হয়ে যাওয়ার কথা ছিল। লন্ডন থেকে বার বার আমার কাছে ফোন আসতেছে। আমি কী জবাব দিবো? ফোনও ধরতে পারতেছি না লজ্জায়।

কাউন্সিলর- চেষ্টা করে দেখি ভাই, কিছু করন যায় কি না।

আমান- বুঝলাম, ভাই দ্রুত কিছু করেন। বুঝতেছেন না কেন। এটাতেই তো দেশ অচল হয়ে যায়।

কাউন্সিলর- দেখতেছি ভাই। আমরা অলরেডি ফেসবুকে দিছি।

ফোনালাপ:

তথ্যসংগ্রহ: লন্ডনবাংলা নিউজ।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!