‘নৌকার নেতা হবেন, আর ভোটের সময় অন্য গীত গাইবেন, তা সহ্য করা হবে না’

0

রাজশাহী প্রতিনিধি:

নৌকার মাধ্যমে নেতা হবেন। আর ভোটের সময় অন্য গীত গাইবেন, এটা সহ্য করা হবে না। যারা নৌকার সঙ্গে বেইমানি করবে, তাদের হাত-পা ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়া হবে। এমন মন্তব্য করেছেন রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম।

উপজেলার দেওপাড়া ইউনিয়নের ঈশ্বরীপুরে যুবলীগ আয়োজিত এক নির্বাচনি জনসভায় শনিবার বিকেলে তিনি নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে এ কথা বলেন।

জাহাঙ্গীর আলমের বক্তব্যের এই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

দেওপাড়া ইউনিয়নে পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে জনসভায় জাহাঙ্গীর বলছেন, ভোটের দিন ভোটকেন্দ্র পাহারা দিতে হবে। আপনারা আজকে থেকেই প্রস্তুত থাকুন। নৌকার সঙ্গে যারা বেইমানি করবে, তাদের হাত-পা ভেঙে গুঁড়িয়ে দিতে হবে। সম্মান দিতে দিতে আমাদের পিঠ ঠেকে গেছে।

জাহাঙ্গীর বলেন, আমি উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে একটি কথাই বলতে চাই, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী গোদাগাড়ীর এই ইউনিয়নগুলোর বরাদ্দ উপজেলার মাধ্যমেই দেন। আমি আপনাদের মাধ্যমেই নৌকার ভোটে নির্বাচিত হয়েছি। আমি কথা দিচ্ছি, এই দেওপাড়া ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করলে আমি এই ইউনিয়নে সর্বোচ্চ বরাদ্দ দেব।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত গোদাগাড়ী পৌরসভা নির্বাচনের উদাহরণ টেনে জাহাঙ্গীর বলেন, গোদাগাড়ী নির্বাচনি এলাকা রাজাকারের মতো এলাকা। আমার বাড়িও ওখানে, কিছু মনে কইরেন না। সেখানেই যদি সব সেন্টারে নৌকার প্রার্থী জিততে পারে, আপনারা পারবেন না?

দেওপাড়া তো আমাদের নৌকার ঘাঁটি। আপনারা পারবেন না? যুবলীগের নেতাকর্মীরা, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা পারবেন না? মহিলা লীগের নেতাকর্মীরা পারবেন না?

গোদাগাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন, আমাদের অবশ্যই ১১ তারিখে দেখায়ে দিতে হবে, আমরা অবশ্যই ন্যায়ের পথে আছি, আমরা জননেত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আছি, আমরা আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরীর সঙ্গে আছি, আমরা বেলাল উদ্দিন সোহেলের (দেওপাড়া ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী) পক্ষে আছি।

ইউপি সদস্য পদে যেসব যুবলীগ নেতা নির্বাচন করছেন, তাদের উদ্দেশে জাহাঙ্গীর বলেন, আপনারা ভোট করেন, তাতে আমার আপত্তি নাই। তবে আপনাদের প্রথমেই নৌকার জন্য ভোট চাইতে হবে। বলতে হবে, নৌকা না জিতলে কোনো উন্নয়ন হবে না। নৌকা জিতলেই আপনার দাম আছে।

অনেকেই ভাবে, সব দলের ভোট আছে। এই চিন্তা করলে হবে না। ডিজিটাল যুগে আপনাদের চেঞ্জ হতে হবে। আপনি নৌকার সঙ্গে থাকবেন। নৌকার মাধ্যমে নেতা হবেন। আর ভোটের সময় অন্য গীত গাইবেন, এটা সহ্য করা হবে না।

এ বক্তব্যের বিষয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, যুবলীগের সভা ছিল। আমি যুবলীগের সভাপতি হিসেবে সেখানে গেছি। যুবলীগের নেতা কর্মীদের আমি মঞ্চে উঠে কি একটু উজ্জীবিত করতে পারব না?

তিনি বলেন, আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। গোদাগাড়ীতে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আমি ভোট কেন্দ্র পাহারা দেয়ার কথা বলেছি যাতে কেউ বিশৃঙ্খলা করতে না পারে।

আগামী ১১ নভেম্বর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ঐ দিন গোদাগাড়ী উপজেলার দেওপাড়া ইউনিয়নের নির্বাচন হবে। এর প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা যাবে ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত। পরদিন ২৭ অক্টোবর প্রতীক বরাদ্দ।

এই ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগের বেলাল উদ্দিন সোহেল। স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণবিষয়ক সম্পাদক আখতারুজ্জামানের ভাতিজা মাসুদ ইকবাল। নিউজবাংলা।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!