জায়েদ খানের ছবির দর্শক সারাদিনে ৫ জন, একজন বেঘোরে ঘুম!

0

বিনোদন ডেস্ক:

অভিনেতা জায়েদ খান অভিনীত সিনেমা “এ দেশ তোমার আমার” গত ৫ নভেম্বর মুক্তি পায়। তার এ সিনেমাও দর্শক টানতে ব্যর্থ হয়েছে বরাবরের মতোই। দেশের ৩০টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেলেও হলগুলো দর্শক খরায় ভুগছে।

ছবিটি পরিচালনা করেছেন এফ আই মানিক। এতে জায়েদের বিপরীতে অভিনয় করেছেন রোমানা হক।

হল মালিকরা হতাশা প্রকাশ করে বলেন, কেবল মেশিন সচল রাখতেই সিনেমাটি লোকসান দিয়ে চালানো হচ্ছে। এসব ছবি এখন আর কেউ দেখতে আসেন না।

রাজধানীর ফার্মগেটের আনন্দ সিনেমা হলে চলছে সিনেমাটি। শো চলাকালে সরেজমিনে সেখানে যান প্রতিবেদক। টিকেট কাউন্টার থেকে জানতে পারেন, এ মুহূর্তে শো দেখছেন ৪ জন। প্রজেকশন রুম থেকে দেখা যায় একজন দর্শক সামনের সিটের ব্যাকরেস্টে পা তুলে মুখ হাঁ করে ঘুমাচ্ছেন।

এমন অবস্থা কেন- প্রশ্নের জবাবে একজন ক্রু জানান, কোনো শোতে ৫-৬ জনের বেশি মানুষ হয় না। কেউই আসে না সিনেমা দেখতে। বিশেষ করে জায়েদ খানের মার্কেট ভাল না। কিছু মানুষ বান্ধবী বা অন্য কাউকে নিয়ে অন্ধকারে সময় কাটাতে ঢোকেন হলে।

টিকেট চেকার আলী হোসেন জানালেন, শাকিব খানের ১০ বছর আগের পুরানা ছবি চালালেও অল্প কিছু দর্শক পাওয়া যায়। তবে জায়েদ খানরে দেখতে কেউ আসে না।

টাঙ্গাইল শহরের মালঞ্চ হলের কর্মকর্তা জাহিদুর রহমান জানান, “এ দেশ তোমার আমার” ছবিটির জন্য বেশ প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছেন তিনি। কিন্তু কাজ হয়নি। মুক্তির প্রথম দিন সারাদিনে মাত্র ৬ জন দর্শক ছিল। পরের দিনগুলোও এভাবেই চলছে।

এই ছবির কেন্দ্রীয় দুই চরিত্রে অভিনয় করেছেন জায়েদ খান আর তার নায়িকা হিসেবে আছেন রোমানা হক। সিনেমায় গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন ডিপজল। সিনেমায় আরও অভিনয় করেছেন- সোহেল রানা, ডিপজল, প্রয়াত দিতি, মিজু আহমেদ প্রমুখ।

পরিচালক এফ আই মানিক জানান, ৩৫ মিলিমিটারে সিনেমাটির শুটিং করা হয়েছিল। পরে ডিজিটালে ট্রান্সফার করে সম্পাদনাসহ নানা জটিলতার কারণে কাজ শেষ করতে দেরি হয়ে যায়।

রাজধানীর ঐতিহ্যবাহী হল “মধুমিতা” হলের কর্ণধার ও প্রবীণ প্রযোজক ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, আমি মূলত অপেক্ষা করছি “রেহানা মরিয়ম নুর” ছবির জন্য। আরও অপেক্ষায় আছি “শান” ও “মিশন এক্সট্রিম” ছবির জন্য।

দর্শকরা কি বোকা? তারা “এ দেশ তোমার আমার” ছবির পেছনে হুদাই কেন পকেটের পয়সা খরচ করবেন? ছবির কিছুই তো ঠিক নেই। তাও চালাচ্ছি মেশিন সচল রাখার জন্য। সিনেমা হল বন্ধ রাখলেও তো লোকসান হয়। সে লোকসানটা না হয় সিনেমা চালিয়েই দিলাম।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!