ছেলে লন্ডনে তারেকের বডিগার্ড, বাবা দেশে নৌকার মাঝি!

0

সময় এখন ডেস্ক:

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন নিয়ে সিলেটে একের পর এক ঘটছে তুঘলকি কাণ্ড। তৃণমূলের সাথে অর্খকড়ির বিনিময়ে আঁতাত করে নৌকা মার্কা চলে যাচ্ছে সরকারবিরোধী পক্ষের হাতে।

কোথাও জনপ্রিয়তার অভাব বিবেচনায়, কোথাও প্রার্থী সংকট এবং কোথাও আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগারদের হাতছাড়া হচ্ছে নৌকা। এ কারণে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। ফাটল ধরেছে নেতা-কর্মীদের আত্মবিশ্বাসে।

সিলেটের চতুর্থ ধাপে নির্বাচনে এবার আলোচনায় সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের নির্বাচনী এলাকা সিলেট-৬ আসনের অন্তর্গত বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জ।

এবার বিয়ানীবাজারের কুড়ারবাজার ইউনিয়নে সাবেক বিএনপি নেতা হাজী বাহার উদ্দিন নৌকার প্রার্থী হওয়ার পর এবং গোলাপগঞ্জের বুধবারী বাজার ইউনিয়নে মাত্র ১ ভোট পাওয়া ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রকিব ফরনকে নৌকার প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছে।

অথচ তার ছেলে লাহিন আলম যুক্তরাজ্য শাখা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ সভাপতি। লন্ডনে বিএনপির পলাতক নেতা তারেক রহমানের ‘বডিগার্ড’ পরিচয়দানকারী স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা লাহিনের বাবার হাতে তুলে দেওয়া হলো নৌকা! এর ফলে নৌকার মনোনয়ন নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠেছে এলাকায়।

অভিযোগ রয়েছে, লাহিন আলম লন্ডনে তারেক রহমানের ঘনিষ্ট এবং বডিগার্ড বলে পরিচয় দিয়ে থাকেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও তারেক রহমানের সঙ্গে এবং দলীয় সভা-সমাবেশের একাধিক ছবি পোস্ট দেন। যেগুলো ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়েছে।

এদিকে দেশে অবস্থান করা আব্দুর রকিব ফরনের আরেক ছেলে ছয়ফুল আলম শাহিন জাতির পিতা ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃত করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে ধিকৃত হয়েছেন। বিএনপি নেতাদের সঙ্গে একাধিক ছবি রয়েছে তার।

নিজের রাজনৈতিক অবস্থান জানান দিতে সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের বিপক্ষে সংসদ নির্বাচনে পরাজিত বিএনপি প্রার্থী ফয়সল আহমদ চৌধুরীর সঙ্গেও একাধিক ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখা গেছে। সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রোপাগান্ডা ছড়ান এই শাহিন। ২ দিন আগেও চেয়ারম্যান প্রার্থী বিএনপি নেতা হেলাল উদ্দিনের পক্ষে ভোট চেয়ে ফেসবুকে প্রচারণা চালান তিনি।

বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত দুই ছেলের এসব কাণ্ডের পরও আব্দুর রকিব ফরন হয়েছেন ইউনিয়ন নির্বাচনে নৌকার মাঝি! এ নিয়ে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতা-কর্মীর মধ্যে আরেক দফা ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

অভিযোগ রয়েছে, ভোটের ব্যবধানে সবার পেছনে থাকা বিএনপি নেতাদের বাবার হাতে নৌকা তুলে দেওয়া নিয়ে সমালোচনার ঝড় বইছে এলাকায়। এ নিয়ে ক্ষোভের সংবরন করতে পারছেন না নেতা-কর্মীরা। বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে প্রার্থী বদল করার আহ্বান জানিয়েছেন কেন্দ্রে মনোনয়ন বোর্ডের কাছে।

দলীয় সূত্র জানায়, ১৫ নভেম্বর জেলা নেতাদের উপস্থিতিতে গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় তৃণমূলের সর্বোচ্চ ১৪ ভোট পেয়ে প্রথম হন ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি হালিমুর রশিদ রাপু, ৪ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় হন যুবলীগ নেতা শাহিন আহমদ এবং ১ ভোট পেয়ে তৃতীয় হন আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রহান ফরন।

মঙ্গলবার কেন্দ্র থেকে ঘোষিত তালিকায় আব্দুর রকিব ফরনের নাম দেখে আওয়ামী লীগ নেতারা বিস্মত হন।

আওয়ামী লীগ নেতাদের অনেকেই বলেন, আব্দুর রহমান ফরনের এক ছেলে লন্ডনে বিএনপির বড় নেতা, আমাদের দল, নেত্রী এবং জাতির পিতাকে নিয়ে কটূক্তি করে আরেক ছেলে শাহিন আলম বাংলাদেশে বিএনপির বড় নেতা। তাদের ঘরে স্বাধীনতার প্রতীক নৌকা বড়ই বেমানান।

এ বিষয়ে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নাসির উদ্দিন খান বলেন, তৃণমূলের ভোটে যারা এগিয়ে আছেন, তাদের নামসহ অন্যদের নামও কেন্দ্রে পাঠানো হচ্ছে। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ড কর্তৃক নৌকার প্রার্থী চূড়ান্ত করে দেওয়া হয়।

এর আগে, দ্বিতীয় ধাপে সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে সাবেক শিবির নেতা ইকবাল হোসেন ইমাদকে নৌকার প্রার্থী দেওয়া হয়। এ নিয়ে সিলেটজুড়ে তোলপাড় চলে। শক্তিশালী প্রার্থী হিসেবে ইমাদকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দেওয়ার কথা বলা হয়।

এবার সাবেক শিক্ষামন্ত্রীর এলাকা বিয়ানীবাজারের কুড়ারবাজারে সাবেক বিএনপি নেতার বাহার উদ্দিনকে নৌকার প্রার্থী চূড়ান্ত করা নিয়ে আরেক দফা বিতর্কের পর গোলাগঞ্জের বুধবারীবাজার ইউনিয়নে নৌকা প্রার্থী নিয়ে সমালোচনা ইউনিয়নের গণ্ডি পেরিয়েছে। বাংলানিউজ।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!