ভাস্কর্য ভেবে সেলফি, পর্যটককে টেনে নিয়ে গেল আসল কুমির (ভিডিও)

0

অনলাইন ডেস্ক:

বিনোদন পার্কগুলোতে বিভিন্ন ধরনের প্রাণীর ভাস্কর্য থাকে। আর পার্কে ঘুরতে আসা দর্শনার্থীদের সবাই কম-বেশি এসব ভাস্কর্যের সঙ্গে ছবি কিংবা সেলফি তুলে থাকেন।

তেমনিভাবে ফিলিপাইনের একটি বিনোদন পার্কে একজন দর্শনার্থী একটি জীবন্ত কুমিরকে ভাস্কর্য ভেবে সেটির সঙ্গে সেলফি তুলতে গিয়ে প্রায় হিংস্র প্রাণীটির পেটে চলে যাচ্ছিলেন। যদিও ভাগ্য সুপ্রসন্ন হওয়ায় তিনি বড় দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পান।

ঘটনাটি ঘটেছে ফিলিপাইনের মিন্দানাও দ্বীপের কাগায়ান ডি ওরো শহরের অ্যামায়া ভিউ নামের একটি বিনোদন পার্কে। যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম ডেইলি মেইল এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, ৬৮ বছর বয়সী নেহেমিয়াস চিপাদা তার জন্মদিন উদযাপন করতে ওই বিনোদন পার্কে ঘুরতে গিয়েছিলেন। কিন্তু এ ঘটনার কারণে তার দিনটি আরও বিষাদে পরিণত হয়।

প্রায় ১২ ফুট লম্বা ওই কুমিরটিকে তিনি ভাস্কর্য মনে করে সেলফি তোলার জন্য তার ফোনটি বের করে সেটির একেবারে কাছে যেতেই কুমিরটি তার হাত কামড়ে ধরে পানির দিকে টেনে নিতে থাকে।

তবে সৌভাগ্যক্রমে তিনি কুমিরের মুখ থেকে বেঁচে ফিরতে সক্ষম হন। সে সময় পার্কে থাকা এক দর্শনার্থী তার মোবাইলের ক্যামেরায় ওই ঘটনার ভিডিও ধারণ করেন। কুমিরটি তাকে পানির নিচে টেনে নিয়ে “ডেথ রোল” (পানির নিচে নিয়ে মোচড় দিয়ে শিকারকে হত্যা করা) দেওয়ার চেষ্টা করেছিল সেসময় চিপাদা সাহায্যের জন্য চিৎকার করেন।

ভিডিওতে দেখা যায়, নেহেমিয়াস চিপাদাকে কুমিরের মুখ থেকে নিজেকে ছাড়িয়ে নিরাপদ দূরত্বে এসে মাটিতে শুয়ে পড়েন। এ সময় তার বাম হাত থেকে অঝোরে রক্ত ঝরছিল। পার্কের মেডিকেল টিমের কর্মীরা তার রক্ত বন্ধ করার জন্য দ্রুত কাজ শুরু করেন।

পরে জানা যায়, চিপাদার বাহুতে কুমিরের ৮ সেন্টিমিটার আকারের একটি দাঁত আটকে রয়েছে। বর্তমানে তিনি উত্তর মিন্দানাও মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসাধীন। তিনি সুস্থ হয়ে উঠছেন বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

ভয়ঙ্কর এ ঘটনার পরে চিপাদার পরিবার পার্ক কর্তৃপক্ষের ওপর দোষ চাপিয়েছে। তাদের দাবি, পর্যটকদের জন্য পার্কে মারাত্মক প্রাণী সম্পর্কে কোনো সতর্কতামূলক প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিংবা সাইনবোর্ডে সাবধানবাণীও ছিল না।

ভিডিও:

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!