লোহার পাইপে ৪৭০০ ইয়াবাসহ শিবির নেতা আটক

0

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:

নারায়ণগঞ্জের নিতাইগঞ্জ থেকে ৪ হাজার ৭০০ পিস ইয়াবাসহ মো. গাজী বিশ্বাস (৩২) নামে এক মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১১।

এ সময় তার কাছ থেকে মাদক বিক্রির ৫ হাজার ৩২০ টাকা এবং ২টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তার গাজী বিশ্বাস ফরিদপুরের মধুখালীর পশ্চিম গারাখোলা এলাকার জামায়াত নেতা মো. মালেক বিশ্বাসের ছেলে।

গাজী বিশ্বাস স্থানীয় ছাত্র শিবিরের অন্যতম শীর্ষ নেতা। তার বিরুদ্ধে সহিংসতার বেশ কয়েকটি অভিযোগ রয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব-১১’র স্কোয়াড্রন লিডার এ কে এম মুনিরুল আলম জানান, গ্রেপ্তার আসামি একটি প্লাস্টিকের বাজারের ব্যাগে ৩টি লোহার তৈরি মোটা পাইপের ভেতর কৌশলে স্কচটেপ দিয়ে পলিথিনে মোড়ানো অবস্থায় ইয়াবা সরবরাহ করছিলেন। সোমবার সকালে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি দীর্ঘদিন ধরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়ে কৌশলে কক্সবাজার থেকে ইয়াবা এনে নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকার আশপাশের এলাকায় সরবরাহ করে আসছিলেন।

তার বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা হয়েছে।

ফোনালাপ ফাঁস: ইমনকে এবার র‍্যাবের জিজ্ঞাসাবাদ

সদ্য পদত্যাগী তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের সঙ্গে চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির ফাঁস হওয়া ফোনালাপের বিষয়ে চিত্রনায়ক মামনুন হাসান ইমনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে র‍্যাব।

মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, সাম্প্রতিক অডিও ক্লিপ ফাঁসের ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চিত্রনায়ক মামনুন হাসান ইমনকে র‍্যাব সদরদপ্তরে ডাকা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাতে রাজধানীর মিন্টু রোডে ডিবি কার্যালয়ে ফোনালাপের বিষয়ে ইমনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। সেখানে তার সঙ্গে প্রায় ৪০ মিনিট কথা বলেন ডিবি কর্মকর্তারা। এরপর তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মাহি ও মুরাদ হাসানের একটি ফোনালাপ ফাঁস হয়। সেই ফোনে অশ্লীল-আপত্তিকর ভাষায় মাহির সঙ্গে কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি মাহিকে তার সঙ্গে দেখা করতে বলেন। নিজের অনৈতিক ইচ্ছার কথা জানান। এমনকি চিত্রনায়িকাকে মেরে ফেলার হুমকিও দেন।

এসব ঘটনায় ইতোমধ্যে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন ডা. মুরাদ হাসান। মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় তার পক্ষে জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন মন্ত্রিপরিষদ সচিবের দপ্তরে পদত্যাগপত্রটি জমা দেন।

এদিকে জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে ডা. মুরাদকে। তিনি জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য, জনসংখ্যা ও পরিবারকল্যাণ সম্পাদকের পদে ছিলেন। বিকেলে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!