মার্বেল দিয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট দিল গাম্বিয়ার জনগণ

0

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ব্যালট পেপার নয়, মার্বেল দিয়ে ভোট দিয়েছে গাম্বিয়ার জনগণ।

স্থানীয় সময় শনিবার সকালে দেশটিতে ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

গাম্বিয়ার স্বাধীন নির্বাচন কমিশন আইইসি জানিয়েছে, ২৫ লাখ জনগোষ্ঠীর মধ্যে ভোটার হচ্ছেন ১০ লাখ। নির্বাচনে বিপুলসংখ্যক মানুষ ভোট দেন।

রাজধানী বানজুলের একটি ভোটকেন্দ্রে কর্মকর্তাদের ভোটের ড্রাম বহন করে নিয়ে যান। ড্রামগুলোতে প্রার্থীর ছবি সেঁটে দেওয়া ছিল। সেই ছবি দেখে প্রার্থী বাছাই করে এসব ড্রামে মার্বেল ফেলে ভোটাররা।

আইইসির রিটার্নিং কর্মকর্তা মামাদু এ. ব্যারি জানিয়েছেন, গাম্বিয়ার জনগণ ভোট দেওয়ার জন্য কাচের মার্বেল ব্যবহার করার প্রক্রিয়াতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেছে। উচ্চ নিরক্ষরতার হারের দেশটিতে ব্যালট নষ্ট হওয়া বন্ধে ১৯৬০-এর দশকে ব্যবস্থাটি চালু করা হয়েছিল।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের পর এটি গাম্বিয়ায় প্রথম প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। ওই বছর নির্বাচনে পরাজিত হন প্রেসিডেন্ট ইয়াহইয়া জামেহ।

নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করলেও পরে ব্যাপক চাপের মুখে দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান তিনি। পরে সরকার গঠন করেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট আদামা ব্যারো।

বিশ্বে নিন্দার মুখে শাস্তি কমল সু’চির

করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত বিধি-নিষেধ ভঙ্গ এবং উসকানির অভিযোগে দেওয়া রায়ে মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত ও বন্দি নেত্রী অং সান সু চির সাজার মেয়াদ ৪ বছর থেকে কমিয়ে ২ বছর করেছে নেপিদোর একটি বিশেষ আদালত।

গতকাল সোমবার (৬ ডিসেম্বর) তার বিরুদ্ধে চলমান ১১টি মামলার মাঝে প্রথম মামলাটির রায় ঘোষণা করা হয়।

তবে রায় ঘোষণার পর বিশ্বজুড়ে শুরু হওয়া নিন্দার মুখে কয়েক ঘন্টা পরেই সু’চির রায় ২ বছর কমিয়ে দিয়েছে দেশটির আদালত। এ খবর নিশ্চিত করেছে দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম।

এর আগে, করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত বিধিনিষেধ ভঙ্গ এবং উসকানির অভিযোগে দেওয়া রায়ে অং সান সু চি’র বিরুদ্ধে ৪ বছরের কারাদণ্ড ঘোষণা করা হয়। এতে উসকানির বিরুদ্ধে ২ বছর এবং কোভিড-১৯ নিয়ম লঙ্ঘনের দায়ে আরও ২ বছরসহ মোট ৪ বছরের সাজা ঘোষণা করেন আদালত।

উল্লেখ্য, অং সান সু চি’র বিরুদ্ধে ১১টি মামলা রয়েছে। সবগুলোতে দোষী সাব্যস্ত হলে তার ১০০ বছরের বেশি কারাদণ্ড হতে পারে। এই বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে সামরিক বাহিনীর হাতে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার আগে ৭৬ বছর বয়সী অং সান সু চি মিয়ানমারের নির্বাচিত বেসামরিক সরকারের নেতৃত্বে ছিলেন।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!