বৃদ্ধ মা-ছেলেকে ধাক্কা দিয়ে বাস থেকে ফেলে দেওয়া হলো

0

বরগুনা প্রতিনিধি:

বরগুনার আমতলীতে যাত্রীবাহী বাসে বসার সিট না দেওয়ায় শুরু হয় তর্কাতর্কি। এরপর এক পর্যায়ে বাসের হেলপার ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় বৃদ্ধ মা ও তার ছেলেকে। এতে মা-ছেলে দুজনই আহত হয়েছেন।

আজ সোমবার আমতলী-পটুয়াখালী মহাসড়কের একে স্কুল চৌরাস্তায় এ ঘটনাটি ঘটেছে।

জানা গেছে, আজ বেলা ১১টার দিকে বাঁধঘাট বটতলা থেকে আমতলী সরকারি কলেজের হিসাব বিজ্ঞানের প্রভাষক মো. মনিরুল ইসলাম তার অসুস্থ বৃদ্ধ মাকে ডাক্তার দেখাতে পটুয়াখালী নিয়ে যাচ্ছিলেন। পটুয়াখালী যাওয়ার জন্য তারা কুয়াকাটা-বরিশালগামী যাত্রীবাহী বাস মিশুক পরিবহনে ওঠেন।

গাড়িতে উঠে মনিরুল ইসলাম তার মায়ের বসার জন্য একটি সিট চাইলে সুপারভাইজার কোনো সিট না দিয়ে তার সঙ্গে তর্ক শুরু করে। এক পর্যায়ে গাড়িটি একে স্কুল চৌরাস্তায় পৌঁছালে হেলপার তাদের দুজনকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এতে মনিরুল ইসলামের পায়ের গোড়ালি ভেঙে যায় এবং তার বৃদ্ধ মাও আঘাত পান। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

আহত প্রভাষক মনিরুল ইসলাম বলেন, আমি সকালে আমার মাকে চিকিৎসা করানোর জন্য পটুয়াখালী যেতে মিশুক পরিবহনে উঠি। গাড়িতে উঠে আমার অসুস্থ, বৃদ্ধ মায়ের জন্য ১টি সিট খুঁজলে সুপারভাইজার আমার সঙ্গে অহেতুক তর্ক শুরু করে দেয়। একে স্কুল চৌরাস্তায় এসে আমাকে ও আমার মাকে গাড়ির হেলপার ধাক্কা দিয়ে গাড়ি থেকে ফেলে দেয়। এতে আমার বৃদ্ধ মা শরীরে আঘাত প্রাপ্ত হন ও আমার বাম পায়ের গোড়ালি ভেঙে গেছে।

এদিকে এ ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে আমতলী সরকারি কলেজের ছাত্র সংসদ। শিক্ষার্থীরা অভিযুক্ত বাস মালিক সমিতিকে আল্টিমেটাম দিয়েছে। দ্রুত অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে কঠোর পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হবে বলে জানানো হয়।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার আলহাজ্ব মো. হারুন অর রশিদ জানান, আহত প্রভাষক মনিরুল ইসলাম ও তার বৃদ্ধ মাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন !
  • 29
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply