প্রধানমন্ত্রী সুষ্ঠু ভোট চেয়েছেন তাই আমি নির্বাচিত: বিএনপি নেতা সিরাজ

0

সময় এখন ডেস্ক:

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট ডা’কাতির অভিযোগ করলেও বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে সুষ্ঠু ভোট হয়েছে বলে দাবি করেছেন ওই আসনে দলটির সংসদ সদস্য জি এম সিরাজ।

তিনি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী চেয়েছেন বলে বগুড়ায় উপনির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে, আর সে কারণে তিনি নির্বাচিত হয়েছেন।

সোমবার জাতীয় সংসদের অধিবেশনে নতুন সংসদ সদস্য হিসেবে শুভেচ্ছা বক্তব্যে জিএম সিরাজ এ কথা বলেন। রেওয়াজ অনুযায়ী সংসদের প্রথম বৈঠকের পর কেউ নতুন সদস্য হিসেবে যোগ দিলে তাকে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়।

৩০ ডিসেম্বর জাতীয় নির্বাচনে বগুড়া-৬ আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। নির্ধারিত সময়ে তিনি শপথ না নেওয়ায় ওই আসনটি শূন্য হয়। পরে এই আসন থেকে নির্বাচিত হন সিরাজ।

সোমবার জিএম সিরাজকে সংসদে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেওয়ার জন্য ৩ মিনিট সময় দেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। নির্ধারিত সময় শেষে তার মাইক বন্ধ হয়ে যায়। তখন বিএনপির সাংসদেরা হইচই শুরু করেন। পরে স্পিকার তাকে আরও ১ মিনিট সময় দেন।

এ সময়ের মধ্যেও তার বক্তব্য শেষ না হলেও মাইক বন্ধ হয়ে যায়। তখন আবার বিএনপির সাংসদেরা হইচই শুরু করেন। জিএম সিরাজ মাইক ছাড়াই বক্তব্য দিতে থাকেন। স্পিকার বারবার তাকে থামানোর চেষ্টা করেন।

স্পিকার এ সময় জিএম সিরাজের উদ্দেশে বলেন, আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আপনি শুভেচ্ছা বক্তব্য দিতে চেয়েছেন। প্রথমে ৩ মিনিট ও পরে আরও ১ মিনিট সময় দেওয়া হয়েছে। পরে আরও বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ পাবেন।

বক্তব্যে জি এম সিরাজ বলেন, ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে বিএনপি হারেনি, হেরেছে ১০ কোটি ভোটার, ১৬ কোটি মানুষ। সরকার চাইলে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হয়। প্রধানমন্ত্রী চেয়েছেন, আমি নির্বাচিত হয়েছি।

কয়েকবারের সংসদ সদস্য সিরাজের এবারের সংসদে যোগ দেওয়ার প্রথম দিন রোববার সদ্যপ্রয়াত বিরোধীদলীয় নেতা এইচ এম এরশাদের জন্য শোক প্রস্তাবের উপর আলোচনা ও তা পাস হওয়ার পর মুলতবি হয়ে গিয়েছিল।

সিরাজ বলেন, এখন সংসদে আর আগের মতো জৌলুস নেই।

তার বক্তব্যের পর জাতীয় পার্টির পীর ফজলুর রহমান বলেন, বিএনপির সংসদ সদস্য শোক প্রস্তাবকে বলছেন জৌলুসহীন। যেদিন ১ টাকায় বাড়ি দিয়েছিলেন, সেদিন সংসদের জৌলুস ছিল।

দুর্নীতি তদন্তে কমিটি গঠনের দাবি

দুর্নীতি তদন্তে কমিটি গঠনের দাবি জানিয়ে পীর ফজলুর বলেন, প্রতিষ্ঠানিক দুর্নীতি ও অনিয়মগুলো সরকারের অর্জনকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দিয়েছে। অর্জনগুলোকে ম্লান করে দিচ্ছে। একের পর একেক ঘটনা আসছে জাতির সামনে। দুর্নীতি হয়ে গেছে একটি হাস্যরসের বিষয়। অদ্ভুত ধরনের দুর্নীতি হচ্ছে।

৫ হাজার ৫’শ টাকার বই স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কিনেছে ৮৫ হাজার ৫ টাকায়। পুকুর খনন শিখতে বিদেশে যাবেন ১৬ জন কর্মকর্তা। এজন্য ব্যয় ১ কোটি ২৮ লাখ টাকা। রূপপুরের বালিশকে তোশকের নিচে নিয়ে গেছে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে একটি পর্দা কেনার ঘটনা। ১টি পর্দার দাম ধরা হয়েছে ৩৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

এই রকম কয়েকটি ঘটনা তুলে ধরেন তিনি।

পরে বিএনপির হারুনুর রশীদ বলেন, আমরা চরম উদ্বেগে আছি। সারাদেশে ডেঙ্গু ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। ডেঙ্গু প্রতিরোধের কার্যকর পদক্ষেপ ঘোষণার মধ্যেই আছে। ইতোমধ্যে শত শত কোটি টাকা লোপাট হয়ে গেছে। অকার্যকর ওষুধ ছিটিয়ে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে আসেনি। জেলা উপজেলায় জনবল সঙ্কটে রোগীদের সেবা দিতে স্বাস্থ্য বিভাগ হিমশিম খাচ্ছে।

কুরবানির পশুর চামড়া মানুষ মাটিতে পুঁতে দিচ্ছে। মন্ত্রী বলেছেন, বিএনপির নেতারা নাকি চামড়া কিনে মাটিতে পুঁতে দিচ্ছে। এ ধরনের বক্তব্য মানুষের মধ্যে কী দৃষ্টিভঙ্গী সৃষ্টি করবে, জানি না।

হারুন বলেন, সব ধরনের দুধে সিসা পাওয়া গেছে। প্রধানমন্ত্রী বলছেন দুধ নিয়ে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। মানুষ বিক্রি করতে না পেরে দুধ মাটিতে ফেলে দিচ্ছে। এসব আলামত ভালো নয়।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে এনজিওকর্মী প্রিয়া সাহার নালিশের বিষয় ধরে তিনি বলেন, হু ইজ প্রিয়া সাহা। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এখানে আছেন। উত্তর দিতে হবে আপনাকে। এই সংসদে বিবৃতি দিতে হবে। প্রিয়া সাহা কীভাবে মার্কিন প্রেসিডেন্টের কাছে পৌঁছাল। সে রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে এ ধরনের বক্তব্য দিয়েছে।

এখনো পর্যন্ত এ বিষয়ে রাষ্ট্রের থেকে সুস্পষ্ট বক্তব্য পাইনি। এ ব্যাপারে আমাদের সজিব ওয়াজেদ জয় একটি বিবৃতি দিয়েছেন। প্রিয়ার মিথ্যার দাবির পেছনে মার্কিন দূতাবাসের দুরভিসন্ধি রয়েছে।

শেয়ার করুন !
  • 1K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply