টাঙ্গাইলে গৃহবধূর স্নানের দৃশ্য ভিডিও করে টাকা দাবি, গ্রেপ্তার ৩

0

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি:

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে এক গৃহবধূর স্নানের দৃশ্য মোবাইলে ভিডিও করে তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে টাকা দাবি করার অভিযোগে ৩ যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। উপজেলার ভাওড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই গৃহবধূর অভিযোগের ভিত্তিতে মির্জাপুর থানা পুলিশ চান্দুলিয়া ও কোটবহুরিয়া গ্রাম থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তার ৩ যুবক হলো- উপজেলার বহুরিয়া ইউনিয়নের চান্দুলিয়া গ্রামের বরকত, একই গ্রামের সোলাইমান এবং কোট বহুরিয়া গ্রামের আব্দুল আলীম।

পুলিশ জানায়, গ্রেপ্তার ৩ যুবক বেশ কিছুদিন আগে ওই গৃহবধূর নির্মাণাধীন বাড়িতে রাজমিস্ত্রীর কাজ করত। একদিন ওই গৃহবধূ বাথরুমে গোসল করতে গেলে ৩ যুবক গোপনে মোবাইলে স্নানের দৃশ্য ধারণ করে। পরে ফোন করে বিষয়টি জানিয়ে কয়েকটি স্থিরচিত্র ওই গৃহবধূর মোবাইলে পাঠায় এবং মোটা অংকের টাকা দাবি করে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার ওই গৃহবধূ মির্জাপুর থানায় অভিযোগ দিলে সন্ধ্যায় পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।

মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সায়েদুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেপ্তার ৩ জনকে জিজ্ঞাসা’বাদ করা হচ্ছে।

নাটোরে ধ’র্ষণ, শালিসে রফাদফার চেষ্টা

নাটোরের সিংড়ায় এক নারী ধ’র্ষণের শি’কার হয়েছেন। ১২ সেপ্টেম্বর উপজেলার দুর্গম পল্লী মুন্সি বাঁশবাড়িয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। এদিকে ধ’র্ষণের ঘটনাটি গ্রাম্য শালিসে রফাদফা করতে কালক্ষেপন করেন স্থানীয় এক সাবেক ইউপি সদস্য ও গ্রাম্য মাতবরদের একটি পক্ষ।

পরে সোমবার গভীর রাতে ধ’র্ষিতার মা জাহানারা বেগম স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও এলাকাবাসীর সহায়তায় মামলা করেন।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, ধ’র্ষিতা একজন স্বামী পরিত্যাক্ত মহিলা। অল্প সময়ের ব্যবধানে বাবা ও একমাত্র ছেলেকে হারিয়ে তার কিছুটা মানসিক সমস্যার সৃষ্টি হয়। ঘটনার দিন দুপুরে মায়ের অনুপস্থিতিতে বাড়িতে একা পেয়ে তাকে ধ’র্ষণ প্রতিবেশী অবিবাহিত যুবক জয়নাল হোসেন।

বিষয়টি এলাকার কয়েকজন দেখে ফেলায় ওই যুবক তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেল ঘটনাস্থলে রেখে পালিয়ে যায়। বিষয়টি নিয়ে পরপর ৫ দফা বসা হলেও ওই যুবক জয়নাল হোসেন অনুপস্থিত থাকায় সোমবার গভীর রাতে সিংড়া থানায় ধ’র্ষণ মামলা দেয়া হয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদ বলেন, বিষয়টি আপস হওয়ার কথা ছিল। তাই মামলা করতে দেরি হয়েছে। আর ধ’র্ষিতা মহিলা একজন স্বামী পরিত্যাক্তা ও অভিভাবকহীন। তার মাথায় কিছুটা সমস্যার কারণে আমরাও সিদ্ধান্তহীনতায় ছিলাম।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে দোষী যুবকের উপযুক্ত বিচার দাবি করছি।

সিংড়া থানার তদন্ত পরিদর্শক নেয়ামুল আলম বলেন, মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত যুবককে আটকের চেষ্টা চলছে।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!