ভূতের আড্ডা রেস্তোরাঁয় বাতি জ্বেলে আক্কেল গুড়ুম ম্যাজিস্ট্রেটের!

0

সময় এখন ডেস্ক:

ভূতের আড্ডা। উঠতি বয়সী ছেলে মেয়েদের কাছে পছন্দের একটি রেস্তোরাঁ। ভেতরে ঢুকলেই যেন এক ভিন্ন জগৎ। চারদিকে অন্ধকার, নিরিবিলি ও সুন্দর পরিবেশ, কোনো হৈ চৈ নাই।

কিন্তু আলো জ্বালাতেই আক্কেল গুড়ুম! চোখে পড়ল অ’প্রীতিকর অবস্থা। জোড়ায় জোড়ায় বসে আছেন তরুণ তরুণী। বেশিরভাগই লিপ্ত অ’সামাজিক কর্মকাণ্ডে।

পরিবারের বিভিন্ন বয়সী সদস্যদের নিয়ে রেস্তোরাঁয় গিয়ে বিব্রত অবস্থায় পড়েছিলেন একজন সাধারণ ভোক্তা। খাবার নয় অ’নৈতিক কাজেরই যেন সুব্যবস্থা করে রেখেছে রেস্তোরাঁটি। নিরাপদ বন্দোবস্ত সবদিকে।

শনিবার রাজধানীর শনির আখড়ায় অবস্থিত রেস্তোরাঁটিত গিয়ে এমন দৃশ্যই নজরে পরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক পরিচালিত এক ঝটিকা অভিযানে। অভিযানটি পরিচালনা করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মণ্ডল।

তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, রাজধানীর কদমতলীর শনির আখড়ায় এই অভিযান চালানো হয়। এ সময় ভূতের আড্ডা রেস্তোরাঁর ভেতরে গিয়ে দেখি আ’পত্তিকর অবস্থায় তরুণ তরুণীরা বসে আছেন। খাবার বিক্রির চেয়ে অ’নৈতিক কার্মকাণ্ডে বেশি উৎসাহ দিচ্ছে রেস্তোরাঁটি। এখানে পরিবার নিয়ে বিব্রত হচ্ছেন সাধারণ ভোক্তারা। খাবারের প্রতিষ্ঠান বললেও খাওয়ার পরিবেশ নেই।

আব্দুল জব্বার মণ্ডল বলেন, রেস্টুরেন্টের বাইরে জাঁকজমক আর চাকচিক্য দেখা গেলেও রান্নাঘরের উল্টো চিত্র। নামকরা প্রতিষ্ঠানটির রান্নাঘরে ঢুকেই দেখা যায় নোং’রা অ’স্বাস্থ্যকর পরিবেশ। চারদিকে ময়লা আবর্জনার মধ্যেই তৈরি করছে সব খাবার। এসব অপরাধে ভূতের আড্ডা রেস্টুরেন্টটিকে ৫০ হাজার টাকা জরি’মানা করা হয়েছে।

এছাড়া আজ নোং’রা অ’স্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্যপণ্য তৈরি, মোড়কজাত পণ্যের উৎপাদন ও মেয়াদোত্তীর্ণের তারিখ লেখা না থাকা ও প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী পণ্য সরবরাহ না দেয়ার অপরাধে রস ভান্ডারকে ৫ হাজার টাকা, বিক্রমপুর মিষ্টান্ন ভান্ডারকে ১০ হাজার টাকা, আজওয়া বেক অ্যান্ড পেস্ট্রিকে ২০ হাজার টাকা, সূর্যে বানু রেস্তোরাঁকে ১৫ হাজার টাকাসহ ৫ প্রতিষ্ঠানকে ১ লাখ টাকা জরি’মানা করা হয়।

বাজার তদারকি কাজে সার্বিক সহযোগিতা করেন কদমতলী থানা পুলিশ সদস্যরা।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!