পিয়নকে দপ্তর সম্পাদক বানানো রাঘব বোয়ালদের কী হবে- ঢাবি শিক্ষক রাশেদা রওনক

0

মুক্তমঞ্চ ডেস্ক:

নেতার সংজ্ঞাটাই যেন বদলে গেলো এই কয়দিনে! নেতা তো হবে যিনি সম্রাটের মতো বীরদর্পে জনতার সামনে এসে তাদের সমস্যার কথা শুনবেন, সমস্যা সমাধান করবেন! এখন দেখি সম্রাটরা বেড়ালের মতো গর্তে ঢুকে আল্লাহ আল্লাহ করছেন, আর বাইরে লাঠিয়াল বাহিনী দিয়ে পাহারা বসিয়েছেন!

কিন্তু গ্রেপ্তার হচ্ছে না কেন? নাকি বেড়ালদের গ্রেপ্তার করা কঠিন বেশি? আগে তো জানতাম, রাঘব-বোয়ালদের গ্রেপ্তার করা কঠিন! তাহলে রাঘব-বোয়ালদের কি হবে যারা এসব বেড়ালদের পিয়ন হতে দপ্তর সম্পাদক বানিয়ে সমাজের শোষণখোর হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছেন?

আরেকটা কথা, ইহা একটি দুষ্টচক্র, এই চক্রে কেবল নেতারা নন, তাদের যারা রাষ্ট্রের সার্ভিস প্রোভাইডার হিসেবে সার্ভিস দিয়েছেন, তাদেরকেও আইনের আওতায় আনা উচিত! পত্রিকা মারফত জানতে পারলাম, পুলিশসহ রাষ্ট্রের বিভিন্ন সার্ভিস প্রোভাইডারদের জন্য ‘বিজনেস প্রমোশন’ হিসেবে প্রতিদিন/ প্রতিটি কাজে একটা বরাদ্দ রাখা হতো কমিশন হিসেবে, এই কমিশন গ্রহীতা সার্ভিস প্রোভাইডারদের কি আইনের আওতায় আনা জরুরি না?

সবশেষে বেড়াল থেকে রাঘব বোয়াল পর্যন্ত সকলের উদ্দেশে একটা অনুরোধ, অ’বৈধ উপায়ে প্রাপ্ত জনগণের টাকাগুলো ছিঁড়ে না ফেলে আশেপাশে বেকারদের মাঝে বিলিয়ে দিন অথবা বস্তিতে গরিব জনগোষ্ঠীর মাঝে ফেলে আসুন! যদিও অ’বৈধ টাকা, কিন্তু ছিঁড়ে ফেলার চেয়ে ঢের ভালো| আপনি গিলতে পারবেন না বলে অন্যকে একটু উপকৃত হতে দেবেন না, এটা কেমন দেখায়! সারাজীবন না ভাবলেও অন্তত আপনার এই আপদকালীন সময়ে একটু অন্যকে উপকার করার কথা ভাবতে শিখুন!

ক্যাসিনো অভিযান ও যুবলীগ নেতার বক্তব্য প্রসঙ্গে

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে এক হাত নিলেন যুবলীগের চেয়ারম্যান! তিনি এসব অ’বৈধ ক্যাসিনো ব্যবসায় তার সংগঠনের লোকজন এর সাথে সাথে আর কারা কারা জড়িত, সেই নিয়েও খুব উচ্চকণ্ঠ! যেসব এলাকায় ক্যাসিনো আছে, সেসব এলাকার থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের উদ্দেশ করে তার এই বক্তব্য যৌক্তিক। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দিকে পাল্টা দোষ চাপিয়ে দিয়ে মূল হোতাদের দোষ ঢাকার চেষ্টা যেন না হয়, সেদিকেও লক্ষ্য রাখা জরুরি।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ না পেলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আসলে কি করতে পারতো আর কী করতে পারতো না? বাংলাদেশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আসলে কতটা স্বাধীন? উন্নত বিশ্বের মতো, আমাদের বা আশে পাশের দেশগুলোতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী খুব কি স্বাধীন স্বত্বা? আমাদের পুলিশ বাহিনীর যে কাঠামো সেটার ব্যাকগ্রাউন্ড কিন্তু উপনিবেশিক পুলিশী চরিত্র, সেখানটায় আটকে আছি আমরা!

ধন্যবাদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, ভালোবাসা ও দোয়া রইলো আপনার এই পদক্ষেপের জন্য! আপনার পাশে আছে বাংলার সাধারণ জনগণ, সন্ত্রা’সবাদ, জ’ঙ্গিবাদ ও মা’দকের বিরু’দ্ধে যে জিরো টলারেন্স নীতি আপনি ঘোষণা করেছেন, তার শুরু দেখছি, নিশ্চয়ই শেষটাও দেখবো ইনশাল্লাহ। এখনো স্বপ্ন দেখুক কোটি মানুষ উঠে দাঁড়াবার, আরো একবার!

লেখক: রাশেদা রওনক খান
পরিচিতি: সহকারী অধ্যাপক, নৃবিজ্ঞান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

শেয়ার করুন !
  • 746
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply