আমার কোনো ধর্ম নেই, আমি ভারতীয়: অমিতাভ বচ্চন

0

বিনোদন ডেস্ক:

বয়সকে হার মানিয়ে সমান তালে ৫ দশক ধরে অভিনয় করে চলছেন। এখনো তার সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায় দিন গোনেন দর্শক। তার ছবি ঝড় তোলে বক্স অফিসেও। তরুণদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে তার নাম মনোনীত হয় সেরা অভিনেতার তালিকায়। তিনি ৭৬ বছর বয়সী বলিউড শাহেনশাহ অমিতাভ বচ্চন।

সিনেমা ছাড়াও নানা ব্যক্তিগত বিষয় ভক্তদের সঙ্গে শেয়ার করেন বলিউড মেগাস্টার অমিতাভ বচ্চ। এবার তিনি বলেছেন তার কোনো ধর্ম নেই। গান্ধীজয়ন্তি উপলক্ষে ‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি’ অনুষ্ঠানে একথা বলেছেন তিনি।

অমিতাভ বচ্চন বলেন, আমার নামের শেষে বচ্চন কোনো ধর্মীয় পদবি নয়। আমার বাবা এসব পদবিতে বিশ্বাস করতেন না। আমার বংশনাম শ্রীবাস্তব ছিল, কিন্তু সেটি নিয়ে আমাদের কোনো মাথা ব্যথা ছিল না।

অমিতাভ বচ্চন বলেন, আমি যখন কিন্ডারগার্টেনে ভর্তি হতে গেলাম। আমার বাবাকে বংশের নাম জিজ্ঞেস করা হয়। তিনি আমার নামের শেষে ‘বচ্চন’ রাখার সিদ্ধান্ত নেন। আদমশুমারির লোকেরা আমার বাড়িতে এসে ধর্ম সম্পর্কে জিজ্ঞেস করলে সবসময়ই বলতাম, আমার কোনো ধর্ম নেই, আমি ভারতীয়।

অমিতাভ জানান, তার বাবা হরিবংশ রাই বচ্চন মানুষকে খুবই সম্মান করতেন। হোলি উৎসবের সময় বয়স্ক এক সুইপারের পায়ে প্রণাম করে উৎসব শুরু করতেন তিনি।

অমিতাভ বচ্চন, জনপ্রিয় ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা, প্রযোজক, টেলিভিশন উপস্থাপক ও সাবেক রাজনীতিবিদ। ৫ দশকের অধিক সময়ের কর্মজীবনে ১৯০টির অধিক চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।

বচ্চনকে ভারতীয় চলচ্চিত্র তথা বিশ্ব চলচ্চিত্রের অন্যতম সেরা ও প্রভাবশালী অভিনেতা হিসেবে গণ্য করা হয়। এবার ভারতীয় চলচ্চিত্রের সর্বোচ্চ সম্মান ‘দাদা সাহেব ফালকে’ পুরস্কার পাচ্ছেন এই বর্ষীয়ান অভিনেতা।

১৯৭০ ও ১৯৮০-এর দশকে ভারতীয় চলচ্চিত্রে একচ্ছত্র আধিপত্যের জন্য বলিউডের শাহেনশাহ ও সহস্রাব্দের সেরা এই তারকাকে ফরাসি চলচ্চিত্র সমালোচক ও পরিচালক ফ্রঁসোয়া ত্রুফো “ওয়ান ম্যান বেজড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি” বলে অভিহিত করেন।

বচ্চন কর্মজীবনে অসংখ্য পুরস্কার অর্জন করেছেন; তন্মধ্যে রয়েছে ৪টি শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার এবং ১৫টি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক পুরস্কার। ফিল্মফেয়ারে অভিনয়ের জন্য প্রদত্ত পুরস্কারের বিভাগে তিনি সর্বাধিক মনোনয়ন পাওয়ার রেকর্ড করেছেন। অভিনয় ছাড়াও তাকে নেপথ্য গায়ক, চলচ্চিত্র প্রযোজক, টেলিভিশন সঞ্চালক হিসেবেও দেখা গেছে।

তিনি গেম শো ফ্র্যাঞ্চাইজ হু ওয়ান্টস টু বি আ মিলিয়নিয়ার-এর ভারতীয় সংস্করণ কৌন বনেগা ক্রোড়পতি অনুষ্ঠানের কয়েকটি মৌসুমের সঞ্চালনা করেন। ১৯৮০-এর দশকে তিনি রাজনীতিতে প্রবেশ করেন এবং ১৯৮৪ থেকে ১৯৮৭ পর্যন্ত ভারতীয় সংসদে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি ছিলেন।

শিল্পকলায় তার অবদানের জন্য ১৯৮৪ সালে ভারত সরকার তাকে ভারতের ৪র্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা পদ্মশ্রী, ২০০১ সালে ৩য় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা পদ্মভূষণ, এবং ২০১৫ সালে ২য় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা পদ্মবিভূষণে ভূষিত করে।

বিশ্ব চলচ্চিত্রে তার অনন্য কর্মজীবনের স্বীকৃতি হিসেবে ২০০৭ সালে ফ্রান্স সরকার তাকে ফ্রান্সের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা লেজিওঁ দনরের নাইট উপাধিতে ভূষিত করে।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!