এবার ভোটার হতে এসে আটক ৩ রোহিঙ্গা

0

কক্সবাজার প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের উখিয়ায় হালনাগাদ ভোটার তালিকায় নাম ওঠাতে গিয়ে ১ নারীসহ ৩ রোহিঙ্গা আটক হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে উখিয়ার জালিয়াপালং ইউনিয়নের সোনারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে তাদের আটক করা হয়।

পরে রাতে ৩ রোহিঙ্গাকে ১ মাস করে জেল দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। আটকরা হল- উখিয়ার জালিয়াপালং ইউনিয়নের ডেইলপাড়া গ্রামের আবদুল হামিদ (৩২), নুর হোসেন (২৮) ও মুর্শিদা বেগম (২৫)।

উখিয়ার অতিরিক্ত নির্বাচন কর্মকর্তা মো. বেদারুল ইসলাম জানান, জালিয়াপালং ইউনিয়নের ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের তথ্য সংগৃহীত ও যাচাইকৃত নাগরিকদের ভোটার অন্তর্ভুক্তির দিন ছিল বৃহস্পতিবার।

এদিন বিকেলে ছবি তুলতে আসা ওই ইউনিয়নের ডেইলপাড়া গ্রামের আবদুল হামিদ, নুর হোসেন ও মুর্শিদা বেগমকে স’ন্দেহ হলে উখিয়া নির্বাচন অফিসের ডাটা এন্ট্রি অপারেটর মো. ইসা জিজ্ঞাসা’বাদ করেন। এ সময় তারা রোহিঙ্গা বলে স্বীকার করলে ৩ জনকে বুথ থেকে পুলিশের মাধ্যমে আটক করা হয়।

উখিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী বলেন, আটক রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নাগরিক। তারা স্থানীয় এক ব্যক্তিকে টাকা দিয়ে ভোটার হতে চেয়েছিল বলেও স্বীকার করেছে।

সংশ্লিষ্ট স্থানীয় ব্যক্তিকেও এ ব্যাপারে আইনের আওতায় আনার উদ্যোগ চলছে। আটক রোহিঙ্গাদের নামে ইস্যুকৃত জন্ম নিবন্ধন সনদ বাতিলের জন্য সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানকে চিঠি দেয়া হচ্ছে বলেও জানান ইউএনও।

সীতাকুণ্ডে পলাতক অবস্থায় ৪৫ রোহিঙ্গা আটক

কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে পালিয়ে এসে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে লুকিয়ে থাকা ৪৫ রোহিঙ্গাকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাত পৌনে ১২টায় উপজেলার সোনাইছড়ি ইউনিয়নের কেশবপুর এলাকার মোল্লা বাড়ির মোবারক সওদাগরের কলোনি থেকে তাদের আটক করা হয়। এ বিষয়ে মামলা করা হবে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

সূত্রে জানা গেছে, ৪৫ রোহিঙ্গা দীর্ঘদিন ধরে ওই কলোনিতে অবস্থান নিয়ে বেসরকারি একটি কারখানায় কাজ করছিল। গোপন সূত্রে বিষয়টি জানার পর সীতাকুণ্ড থানার ওসি দেলওয়ার হোসেনের দিকনির্দেশনায় এসআই টিবলু কুমার মজুমদার ও এসআই হারুনুর রশিদ রোহিঙ্গাদের অবস্থানের বিষয়টি নিশ্চিত হন।

তাদের তথ্যের ভিত্তিতে ওসি (তদন্ত) শামীম শেখ ও ওসি (ইন্টেলিজেন্স) সুমন বণিক ফোর্স নিয়ে সেখানে উপস্থিত হন। তার পর কলোনিতে থাকা ৪৫ রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়।

সীতাকুণ্ডে থানার ওসি (তদন্ত) শামীম শেখ জানান, উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্প থেকে পালিয়ে ওই রোহিঙ্গারা সীতাকুণ্ডের কেশবপুর এলাকায় অবস্থান নিয়েছিল।

তাদের বিরু’দ্ধে মামলা করার প্রস্তুতি চলছে। এ ছাড়া তাদের আশ্রয়দাতাদের বিরু’দ্ধেও আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!