সীমান্ত পেরোনোর আগ মুহূর্তেই গ্রেপ্তার হন সম্রাট

0

সময় এখন ডেস্ক:

ক্যাসিনো’কাণ্ডে আলোচিত যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি (বহি’স্কৃত) ইসমাইল হোসেন চৌধুরী ওরফে সম্রাট ও তার সহযোগী আরমানকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব।

রোববার ভোর ৫টার দিকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রাম থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সূত্র জানায়, কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের যে এলাকা থেকে সম্রাটকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে সেই কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রামটি সীমান্তের কাছাকাছি। ধারণা করা হচ্ছে, সীমান্ত দিয়ে ভারতে চলে যেতে চেয়েছিলেন তিনি। তাকে গ্রেপ্তার করতে যদি আর কিছুটা দেরি হতো, ততক্ষণে তিনি সীমানা পেরিয়ে ওপাড়ে চলে যেতেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শনিবার দিবাগত রাত ১২টার পর চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জশ্রীপুর গ্রামে কয়েক ঘণ্টা ধরে অভিযান চালায় র‍্যাব-১ এর একটি বিশেষ দল। পরে কুঞ্জশ্রীপুর গ্রামের পরিবহন ব্যবসায়ী মনির চৌধুরীর বাড়ি থেকে সম্রাট ও তার সহযোগী আরমানকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। গ্রেপ্তারের পর তাদের ঢাকায় আনা হয়।

আলোচিত যুবলীগ নেতা ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট ঢাকার জুয়া’ড়িদের কাছে ‘ক্যাসিনো সম্রাট’ হিসেবে পরিচিত।

সম্প্রতি রাজধানীতে ক্লাব ব্যবসার আড়ালে অ’বৈধ ক্যাসিনো পরিচালনার অভিযোগে র‍্যাবের হাতে ধরা পড়েন সম্রাটের ডান হাত হিসেবে পরিচিত যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া।

এর পর ধরা পড়েন রাজধানীর টেন্ডার কিং আরেক যুবলীগ নেতা (সাবেক যুবদল নেতা) জি কে শামীম। এ দুজনই অ’বৈধ আয়ের ভাগ দিতেন সম্রাটকে। তারা গ্রেপ্তার হওয়ার পর জিজ্ঞাসা’বাদে সম্রাটের ক্যাসিনো সাম্রাজ্য নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেন। এরপর গা ঢাকা দেন যুবলীগ নেতা সম্রাট।

সম্রাটের গ্রেপ্তারে সন্তষ্ট নন রিজভী!

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, জনগণের স্বার্থ জলা’ঞ্জলি দিয়ে ভারতের সঙ্গে একতরফা চুক্তি করে প্রধানমন্ত্রী তার সাংবিধানিক শপথ ভ’ঙ্গ করেছেন। এজন্য সরকারের পদ’ত্যাগ করা উচিত।

তিনি বলেন, চুক্তির বিষয়ে জনগণের দৃষ্টি অন্য দিকে ফেরাতে এতদিন পর সম্রাটকে গ্রেপ্তার দেখানোর নাটক মঞ্চস্থ হয়েছে।

রোববার (৬ অক্টোবর) দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

রিজভী আহমেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে চুক্তি ও সমঝোতা স্মারকে বাংলাদেশের স্বার্থ রক্ষা হয়নি, একতরফাভাবে সবকিছু দিয়ে আসা হয়েছে।

তিনি বলেন, সমুদ্রবন্দর, ফেনী নদীর পানি এবং জ্বালানি সং’কটময় দেশের গ্যাস ভারতের হাতে তুলে দেয়ার যে চুক্তি করা হলো, তা সুস্পষ্ট সংবিধান পরি’পন্থী। চুক্তির ব্যাপারে সংসদসহ কোনো পর্যায়েই আলোচনা করেনি সরকার। তিস্তাসহ কোনো সমস্যার সমাধান করতে না পারলেও ক্ষমতায় টিকে থাকতে দেশের স্বার্থ বিকিয়ে দিয়েছে সরকার।

নির্বাচন কমিশনের বিরু’দ্ধে অভিযোগ তুলে বিএনপির নেতা বলেন, নির্বাচনের নামে রংপুর-৩ আসনে প্রহসন হয়েছে, আমরা এই নির্বাচন প্রত্যা’খ্যান করছি।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূঁইয়া, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, সহ-দপ্তর সম্পাদক মুহাম্মদ মনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন !
  • 119
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!