ডিএনসিসির বর্জ্য থেকে উৎপাদন হবে বিদ্যুৎ

0

সময় এখন ডেস্ক:

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে (ডিএনসিসি) দৈনিক জমা হওয়া গৃহস্থালি ও সাধারণ বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

উত্তর সিটির বর্জ্যকে কাজে লাগিয়ে আমিনবাজার ল্যান্ডফিলে এ বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে বলে জানা গেছে। সফলতা পেলে পরবর্তীতে ঢাকা দক্ষিণে এমন বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র স্থাপন করার পরিকল্পনা রয়েছে।

বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে যৌথভাবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগ, বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয় ও ডিএনসিসি এ প্রকল্পটি হাতে নিয়েছে। ডিএনসিসির এ প্রকল্পের আওতায় বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে আগ্রহ প্রকাশ করে আবেদন করেছে দেশি বিদেশি ১৭টি প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে প্রাথমিকভাবে যাচাই বাছাই শেষে ৪টি প্রতিষ্ঠানের নাম প্রস্তাব করা হয়েছে।

সূত্র জানায়, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ১ সেপ্টেম্বর বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব বরাবর বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে ডিএনসিসির প্রস্তাব যাচাই বাছাই শেষে পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের চিঠি দেয়।

অন্যদিকে বছরখানেক আগে ভিন্ন আরেক প্রকল্পের উদ্যোগ গ্রহণ করেছিল ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন। সে প্রকল্পের আওতায় বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যে ৭২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘মাতুয়াইল স্যানিটারি ল্যান্ডফিল সম্প্রসারণসহ ভূমি উন্নয়ন’ প্রকল্পের জন্য প্রায় ৮১ একর ভূমি অধিগ্রহণ কার্যক্রম চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে বলে ডিএসসিসি সূত্রে জানা গেছে।

এ প্রকল্পে নতুন সম্প্রসারিত ৮১ একরের মধ্যে ৫০ একর ল্যান্ডফিল ও ৩১ একর জায়গা বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যবহার করা হবে। এতে বড় ধরনের একটি দগ্ধ’করণ অংশ নির্মাণ করা হবে। যেখানে দুটি পৃথক অংশ থাকবে, যার একটিতে সাধারণ বর্জ্য এবং অন্যটিতে ইলেক্ট্রনিক বর্জ্য দগ্ধ করা হবে।

এ বিষয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের অতিরিক্ত প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা খন্দকার মিল্লাতুল ইসলাম জানিয়েছেন, মাতুয়াইল ল্যান্ডফিল সম্প্রসারণের জন্য ৮১ একর জমি অধিগ্রহণের কাজ শেষের দিকে। অধিগ্রহণ শেষে ল্যান্ডফিল সম্প্রসারণ শুরু হবে।

ইনসিনারেশন প্রক্রিয়ায় বিদ্যুৎ উৎপাদনের উদ্যোগ ছাড়াও ৮২৬ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে ‘আমিনবাজার ল্যান্ডফিল সম্প্রসারণ ও আধুনিকীকরণ প্রকল্প’ হাতে নিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন।

এ বিষয়ে মেয়র আতিকুল ইসলাম চলতি অর্থবছরের বাজেট ঘোষণার মাধ্যেমে জানিয়েছে, এ প্রকল্পের আওতায় ২.৭ কিলোমিটার বাঁধ, ৩.৬ কিলোমিটার রাস্তা, ৫ হাজার ৪০০ বর্গমিটার ডাম্পিং প্লাটফর্ম, ৭৭৮টি প্লানটেশন এবং ৩.২২ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ করা হবে।

তিনি বলেন, ১ হাজার ৩১৯ কোটি ৮৯ লাখ টাকা ব্যয়ে বর্জ্য রিসোর্স রিকোভারি সুবিধাদিসহ ডিএনসিসির বর্ধিতাংশের জন্য আধুনিক স্যানিটারি ল্যান্ডফিল নির্মাণ প্রকল্পের মাধ্যমে ২টি টায়ার ডোজার, ৬টি হাইড্রলিক স্ক্যাভেটর, ২টি হাইড্রলিক লং বুম স্ক্যাভেটর, ৬টি বুলডোজার-চেইন ডোজার, ২টি পে-লোডার, ৫টি ডাম্প ট্রাক (১০ টন) ও ২টি ওয়েস্ট কম্প্যাক্টর ক্রয় করা হবে।

এছাড়াও ওয়ার্কশপ বিল্ডিং, স্টোরেজ হাউজ, সাব-স্টেশন রুম ও সিকিউরিটি ব্যারাক নির্মাণ করা হবে।

শেয়ার করুন !
  • 49
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply