সাংবাদিক-পুলিশ পরিচয়ে মোটরসাইকেল দাপিয়ে বেড়াতেন লিপি

0

যশোর প্রতিনিধি:

আঁটসাট জিন্স প্যান্ট আর বাহারি শার্ট পড়ে ইয়ামাহা এফজেডএস বাইক দাপিয়ে যশোরে প্রত্যন্ত অঞ্চলে ঘুরে বেড়ান এক তরুণী। সুন্দরী এই তরুণী যেদিকে যান সেদিকেই মাত করেন। সহজেই নজর কাড়েন তরুণদের। তবে তার সৌন্দর্যের মায়াজালে যে একবার আটকে গেছে তার আর র’ক্ষা নেই। ছলে বলে তাকে ফতুর করে ছাড়েন।

বাইকার এই তরুণী কখনো নিজেকে পরিচয় দেন সাংবাদিকের। কখনো পুলিশ পরিচয় দিয়ে ফাঁ’দে ফেলেন মানুষকে। স্বার্থ হাসিল হলেই কেটে পড়েন। প্র’তারণা ও মা’দক বিক্রির অভিযোগে ৪ সহযোগীসহ অবশেষে ধরা পড়েছেন এই তরুণী। গ্রেপ্তারের সময় তার সহযোগীদের কাছ থেকে ২টি ওয়াকিটকি সেট উদ্ধার করা হয়েছে।

তার নাম রেহেনা ওরফে লিপি (২৫)। তিনি চৌগাছা উপজেলার মাশিলা নারায়ণপুর গ্রামের মিঠুর স্ত্রী। মাশিলা গ্রামের হানিফের মেয়ে। যশোর শহরের রেলগেট এলাকায় তার বসবাস। বুধবার বিকেলে যশোর জিলা স্কুলের সামনে থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে কোতোয়ালি থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তারের সময় নিজেকে সাপ্তাহিক স্মৃতি পত্রিকার সাংবাদিক হিসেবে দাবি করেন লিপি। পুলিশ জানিয়েছে লিপি সাংবাদিক পরিচয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে এলাকায় দাপিয়ে বেড়াতেন। তিনি ইয়া’বা বিক্রির সঙ্গে জড়িত। এছাড়া রূপের জালে বহু যুবককে ফাঁ’দে ফেলেছেন লিপি। তাকে যারা চিনেন তাদের পরিচিতি ‘কলগার্ল’।

কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) সমীর কুমার সরকার জানান, পুলিশ জানতে পারে এক নারী মোটরসাইকেল চালিয়ে শহরময় ঘুরে বেড়ায়। তার ইয়ামাহা এফজেডএস ব্র্যান্ডের মোটরসাইকেলের সামনে প্রেস লেখা আছে।

তিনি নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে থাকেন। এই পরিচয় ব্যবহার করে শহরের বিভিন্ন এলাকায় ইয়া’বা বিক্রি করে থাকেন। কক্সবাজার থেকে ইয়া’বার চালান নিয়ে এসে মোটরসাইকেল চালিয়ে যশোরে বিক্রি করেন। আবার কলগার্ল হিসেবে তার পরিচিতি রয়েছে।

বুধবার বিকালে যশোর জিলা স্কুলের সামনে তার সঙ্গীরা কোনো একটি অপরাধ করার জন্য দাঁড়িয়ে আছে, এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়।

সেখানে গিয়ে প্রিয়া, সোহেল, বাবু ও ওহিদুলকে আটক করা হয়। সোহেলের কাছ থেকে ২টি ওয়াকিটকি জব্দ করা হয়েছে। তিনি ওই ওয়াকিটকি লিপির কাছ থেকে পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

সোহেল পুলিশকে জানিয়েছেন, রেহেনা প্রেসক্লাব যশোরের সদস্য। কিন্তু রেহেনা বা লিপি নামে প্রেসক্লাব যশোরে কোনো সদস্য নেই বলে জানতে পারে পুলিশ। পুলিশ সোহেলের মিথ্যা তথ্য পেয়ে তাকে থানায় নিয়ে এসে জিজ্ঞাসা’বাদ করে। পরে রেহেনা ওরফে লিপিকে আটক করে।

সমীর কুমার সরকার আরও জানান, রেহেনাকে জিজ্ঞাসা’বাদ করা হয়। তার কাছ থেকে যশোর থেকে প্রকাশিক ‘সাপ্তাহিক স্মৃতি’ নামে একটি পত্রিকার পরিচয়পত্র পাওয়া গেছে। তিনি ওই ওয়াকিটকি সেট একটি অনলাইন শপ থেকে কিনেছেন বলে প্রাথমিকভাবে পুলিশকে জানিয়েছেন।

লিপি চৌগাছা সীমান্ত থেকে ফেন্সি’ডিল ও কক্সবাজার থেকে ইয়া’বার চালান নিয়ে যশোর এনে বিক্রি করতেন বলে পুলিশের কাছে তথ্য আছে। লিপি একজন কলগার্ল হিসেবে এলাকায় পরিচিত। ওয়াকিটকি দেখিয়ে সাধারণ মানুষের কাছে পুলিশ পরিচয় দিয়ে প্র’তারণা করে থাকে লিপি ও তার সহযোগীরা।

বছরখানেক আগে ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার একজন ভাইস চেয়ারম্যানের সঙ্গে লিপিকে আটক করেছিল পুলিশ। কয়েক মাস আগেও যশোর শহরের দড়াটানা থেকে পুলিশ তাকে আটক করেছিল।

শেয়ার করুন !
  • 146
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!