ভোলায় হিন্দু যুবকের আইডি হ্যাক করে ফেসবুক পোস্ট দিয়ে না’শকতা, হ্যাকার আটক

0

ভোলা প্রতিনিধি:

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার বিপ্লব চন্দ্র শুভ নামের এক যুবকের ফেসবুক আইডি হ্যাক করে সেখান থেকে ধর্মীয় বিষয়ে আপ’ত্তিকর পোস্ট দিয়ে নাশ’কতাচেষ্টা করা হয়। এতে উত্তে’জিত জনতার সমাবেশে পুলিশের সাথে সংঘ’র্ষে ৪ জন নিহ’ত হন। এ সময় ১০ পুলিশসহ প্রায় দেড় শতাধিক আহত হয়েছে। তবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে আইডি হ্যাকিংয়ের সাথে জড়িত ১ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, বোরহানউদ্দিন উপজেলার কাচিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের চন্দ্র মোহন বৈদ্যের পুত্র বিপ্লব চন্দ্র শুভ’র ফেসবুক আইডি হ্যাক করে একটি চক্র। সেই আইডি থেকে ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম বিষয়ে একটি পোস্ট বার্তার মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে বিপ্লব এবং তার পরিবারের ওপর বিষো’দ্গার করা হয়।

বিপ্লবের বন্ধু তালিকায় থাকা কয়েকজন এই কাজটি করে বলে জানা গেছে। তারা কয়েকটি আইডি থেকে পোস্টের স্ক্রিনশট নিয়ে ছড়িয়ে দিলে এলাকায় উত্তে’জনা সৃষ্টি হয়।

গতকাল সন্ধ্যার পর বিপ্লব চন্দ্র বোরহানউদ্দিন থানায় আইডি হ্যাক হয়েছে মর্মে জিডি করতে আসলে পুলিশ বিষয়টি তদন্ত ও জিজ্ঞাসা’বাদের জন্য বিপ্লব চন্দ্রকে নিরাপত্তা’জনিত কারনে তাদের হেফাজতে রাখেন। তার তথ্য অনুযায়ী পুলিশ এক হ্যাকারকে আটক করে।

এ বিষয়ে ভোলার পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়ছার বলেন, বিপ্লব চন্দ্র শুভ নামের এক যুবকের ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছে। আমরা হ্যাকের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের একজনকে আটক করেছি। আমরা এ নিয়ে গত রাতে স্থানীয় আলেমদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা বলেছে আজকের প্রোগ্রাম হবে না।

কিন্তু সকাল থেকে আমাদের কাছে খবর আসে সেখানে মাইকিং হচ্ছে এবং স্টেজ বানানো হচ্ছে। সেখানে গিয়ে আমরা উপস্থিত মুসল্লীদের সঙ্গে কথা বলি এবং আমি নিজে সেখানে বক্তব্য দিয়েছি। তারা সবাই আমার বক্তব্য শুনেছে। যখন আমি স্টেজ থেকে নেমে আসি তখন এক দল জনতা আমাদের ওপর হাম’লা চালায়।

এসপি বলেন, আত্ম’রক্ষার্থে একটি রুমে গিয়ে আশ্রয় নিই। যখন তারা আমাদের রুমের জানালা ভে’ঙে ফেলে, তখন আমরা প্রথমে শটগানে ব্ল্যাঙ্ক ফায়ার করি। এতে কাজ না হওয়ায় ওপরের দিকে ফায়ার করি। এতে আমার জানামতে একজন পুলিশ সদস্যও আহত হন।

আমরা আহত অবস্থায় যাদের হাসপাতালে পাঠিয়েছি তাদের মধ্যে ৩ জন নিহ’ত হয়েছেন। তবে বাকি আরও থাকতে পারে সেটা আমাদের কাছে তথ্য নেই। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

এদিকে আহত কয়েকজন মুসল্লীকে বোরহানউদ্দিন হাসপাতালে, বাকিদেরকে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কয়েকজনকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

নিহতরা হলেন- বোরহানউদ্দিন উপজেলার মহিউদ্দিন পাটওয়ারীর ছেলে মাহবুব (১৪), উপজেলার কাচিয়া ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের দেলওয়ার হোসেনের ছেলে শাহিন (২৩), বোরহানউদ্দিন পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মাহফুজ (৪৫), মনপুরা হাজিরহাট এলাকার বাসিন্দা মিজান (৪০)।

জানা গেছে, বিপ্লব চন্দ্র শুভ’র নামে ছড়িয়ে দেয়া পোস্টকে কেন্দ্র করে রোববার বেলা ১১টার দিকে বোরহানউদ্দিন ঈদগাহ মাঠে কিছু মানুষ বিক্ষো’ভ করে।

আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বিক্ষো’ভ মিছিল না করার জন্য বোরহানউদ্দিন ঈদগাহ মসজিদের ইমাম মাওলানা জালাল উদ্দিন, বাজার মসজিদের ইমাম মাওলানা মিজানকে পুলিশ অনুরো’ধ জানায়। সাধারণ মানুষ আসার আগেই বিক্ষো’ভটি বন্ধ ঘোষণা করতে বলেন। তাদের অনুরো’ধে এ দুই ইমাম সকাল ১০টার দিকেই যে সব লোক এসে পড়েছে, তাদের নিয়ে দোয়া মোনাজাতের মাধ্যমে বিক্ষো’ভ মিছিলটি সমাপ্ত ঘোষণা করেন।

কিন্তু ততক্ষণে বোরহানউদ্দিনের বিভিন্ন গ্রাম থেকে দলে দলে লোক এসে ঈদগাহে জড়ো হয়। এক পর্যায়ে তারা ওই ২ ইমামের ওপর ক্ষি’প্ত হয়। সেখানে থাকা পুলিশের ওপর চড়া’ও হয়। পুলিশ আত্ম’রক্ষার্থে ওই মসজিদের ইমামের রুমে আশ্রয় নেয়। এক পর্যায়ে জনতা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষে’প করতে থাকে। পুলিশ আত্ম’রক্ষার্তে ব্ল্যাঙ্ক ফায়ার করে।

এতে সেখানে থাকা মুসল্লীরা আরও উত্তে’জিত হয়ে পুলিশের ওপর সরাসরি আক্র’মণ করে। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত দফায় দফায় পুলিশের সঙ্গে মুসল্লীদের সংঘ’র্ষ হয়। এতে ৪ মুসল্লী নিহ’ত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১০ পুলিশ সদস্যসহ শতাধিক মুসল্লী।

শেয়ার করুন !
  • 44.9K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!