মেনন নিশিরাতের ভোট নিয়ে মহাসত্যটা তুলে ধরেছেন: রিজভী

0

সময় এখন ডেস্ক:

‘আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি- গত নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারেনি’, ১৪ দলের শরিক বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেননের এই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, মেনন নিশিরাতের ভোট নিয়ে মহাসত্যটা তুলে ধরেছেন।

রোববার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

রিজভী বলেন, অবশেষে স্বীকার করতে হলো মেনন সাহেবকে। বিবেকের তাড়নায় মেনন সাহেব যে কথাগুলো বলতে শুরু করেছেন, হয়তো কয়েক দিন পর ওবায়দুল কাদের এবং হাছান মাহমুদরাও বলবেন। আর এই কথাগুলো যতই তাদের নিকট থেকে বেরিয়ে আসবে, ততই বন্ধক রাখা আত্মা মুক্ত হবে।

রিজভী আরও বলেন, চুনো’পুঁটিদের ঘাড়ে দায় চাপিয়ে সরকার দুর্নীতির রাঘব বোয়ালদের বাঁচানোর চেষ্টা করছে। জনমনে প্রশ্ন- এই সম্রাটদের কারা তৈরি করেছিল? তারা তো একদিনে তৈরি হয়নি। যেসব রাজা-বাদশাহরা এই ক্যাসিনো সম্রাটদের তৈরি করেছিল, তারা এখন নিজেদের গা বাঁচানোর চেষ্টা করলেও জনগণ জানে, সরকারের উচ্চমহলের আনুকুল্য না পেলে রাষ্ট্রের এত লাখ কোটি টাকা লো’পাট সম্ভব নয়।

ব্যাংকগুলোকে খালি করে দেয়া সম্ভব নয়। ঋণখে’লাপি হওয়া সম্ভব নয়। উচ্চপর্যায়ের আনুকুল্য না থাকলে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে ৮১০ কোটি টাকা গায়েব হওয়ার পরও জনগণকে ২৪ দিন পর্যন্ত জানতে না দেয়া সম্ভব ছিল না।

ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, এখন বিপদ টের পেয়ে দু-একটা সম্রাট ধরে নিজেদের চেহারা ঢাকা সম্ভব নয়। কারণ শীর্ষ নেতাদের আনুকুল্য থাকার কারণেই রাজধানীতে ৬০টি অ’বৈধ ক্যাসিনো তৈরি হতে পেরেছিল, খালেদ-শামীম-সম্রাট তৈরি হয়েছিল। দেশের আনাচে-কানাচে আরও যে কত খালেদ-শামীম-সম্রাট রয়েছে, তারা অ’ধরাই থেকে গেল।

উচ্চপর্যায়ের আনুকুল্য থাকার কারণেই এসব ক্যাসিনো হোতাদের জন্ম হয়েছে। এদের মধ্য থেকেই অনেকেই এমপিসহ সরকারের পদও বাগিয়ে নিয়েছেন। এটি প্রমাণিত গত একদশকে গণভবনের উৎসাহ ও প্র’ণোদনায় চলেছে এসব। সুতরাং বর্তমানে আসল সমস্যা গণভবনে।

এখন দেশকে বাঁচাতে হলে, জনগণকে বাঁচাতে হলে দেশে দুর্নীতিবাজদের লালনকারী নেপথ্য রাজা-বাদশাহ-আমির-ওমরাদের সরাতে হবে। জনগণের গণভবন জনগণের কাছে ফিরিয়ে দেয়া এখন সময়ের দাবি।

বিএনপির এই জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, এখন যারা গণভবন দখ’লে রেখে দুর্নীতির বিরু’দ্ধে কথাবার্তা বলছেন, ৯ লাখ কোটি টাকা পাচা’রের দায়দায়িত্ব তারা এড়াতে পারবেন না, যা মেনন সাহেব উল্লেখ করেছেন। খালেদ, শামীম কিংবা ক্যাসিনো সম্রাটদের কাঁধে টাকা পাচা’রের দায়দায়িত্ব চাপিয়ে রক্ষা পাবেন না।

গত এক দশকে লু’টেরাদের বিরু’দ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে সরকার প্রমাণ করেছে, এর সঙ্গে তারা জড়িত। এখন দু-একটা ইমিটেশন সম্রাটর ধরে তাদের ঘাড়ে সব চাপিয়ে দেয়ার কৌ’শল জনগণ ঠিকই বুঝতে পারে।

দেশ চলছে সম্পূর্ণ উল্টো পথে- উল্লেখ করে রিজভী বলেন, যারা অপরাধী, ক্ষমতা তাদের হাতে। নিরপরাধরা থাকেন কা’রাগারে। গণতন্ত্র ও দেশের পক্ষে কথা বলার কারণেই আজ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কা’রাগারে। শেখ হাসিনার পলিটিক্যাল মনোপলি নীতির কারণেই নিহ’ত সংবিধান, স্বাধীন বিচারব্যবস্থা ও স্বচ্ছ নির্বাচন।

শেয়ার করুন !
  • 43
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply