আবরার হ’ত্যার আসামি মুন্নার বাবা চুনারুঘাট বিএনপি সভাপতি!

0

সময় এখন ডেস্ক:

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্র আবরার ফাহাদ হ’ত্যায় জড়িত ছাত্রলীগ নেতা ইশতিয়াক আহমেদ মুন্নার বাবা বিএনপির সভাপতি। তাদের পরিবারের সদস্যরা বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।

মুন্না নিজেও ছাত্রদল ঘরানার। কিন্তু বুয়েটে গিয়ে তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। যদিও মুন্নার পরিবারের সদস্যদের দাবি, হ’ত্যার ঘটনার সময় সে বাড়িতে ছিল।

জানা গেছে, হবিগঞ্জের চুনারুঘাটের ঘরগাঁও গ্রামের আহাদ আলী মেম্বারের মেজ ছেলে মুন্না। বুয়েটে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়া মুন্না ছাত্রলীগ বুয়েট শাখার গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক। তার বড় ভাই ক্যাপ্টেন আশরাফ আহমেদ মনির সিলেট ক্যান্টনমেন্টে কর্মরত, ছোট ভাই ইফতেখার আহমেদ সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র।

তাদের বাবা আহাদ চুনারুঘাট ইউনিয়ন বিএনপির ৫নং ওয়ার্ডের সভাপতি ছিলেন। তার চাচা ওয়াহেদ আলী মেম্বার বর্তমানে ৫নং ওয়ার্ড বিএনপির সহ-সভাপতি।

বিএনপি পরিবারের সন্তান হয়ে মুন্না বুয়েটে গিয়ে কীভাবে ছাত্রলীগের নেতা হন এ নিয়ে তোলপাড় চলছে। এ বিষয়ে চুনারুঘাট সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ ফারুক আহমেদ বলেন, আহাদ আলী বিএনপি করতেন। তার পরিবারও বিএনপি সমর্থক। কিন্তু মুন্না কীভাবে ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত হল তা আমরা জানি না।

আবারের পিতার দায়েরকৃত মামলার তালিকাভুক্ত অপর আসামীরা হলেন-

মেহেদী হাসান (কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং ১৩তম ব্যাচ), মুহতাসিম ফুয়াদ (১৪তম ব্যাচ, কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ), অনীক সরকার (কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং ১৫তম ব্যাচ), মেহেদী হাসান রবিন (কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং, ১৫তম ব্যাচ), ইফতি মোশারফ হোসেন (বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং, ১৬তম ব্যাচ), মনিরুজ্জামান মনির (পানিসম্পদ বিভাগ, ১৬তম ব্যাচ),

মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন (মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং, ১৫তম ব্যাচ), মাজেদুল ইসলাম (এমএমই বিভাগ, ১৭তম ব্যাচ), মোজাহিদুল (ইইই বিভাগ, ১৬তম ব্যাচ), তানভীর আহম্মেদ (এমই বিভাগ, ১৬তম ব্যাচ), হোসেন মোহাম্মদ তোহা (এমই বিভাগ, ১৭তম ব্যাচ), জিসান (ইইই বিভাগ, ১৬তম ব্যাচ), আকাশ (কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, ১৬তম ব্যাচ),

শামীম বিল্লাহ (মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, ১৭তম ব্যাচ), শাদাত (এমই বিভাগ, ১৭তম ব্যাচ), তানীম (কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ, ১৭তম ব্যাচ), মোর্শেদ (এমই বিভাগ, ১৭তম ব্যাচ) এবং মোয়াজ মনতাসির আল জেমি (এমআই বিভাগ)।

শেয়ার করুন !
  • 1K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply