ড. অভিজিৎ রায় হ’ত্যা: মামলার সাক্ষ্য দিতে আদালতে বাবা

0

আইন আদালত ডেস্ক:

ছেলে ব্লগার ও লেখক ড. অভিজিৎ রায়ের হ’ত্যার ঘটনায় সাক্ষ্য দিতে আদালতে হাজির হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক অজয় রায়।

সোমবার বেলা ২টায় ঢাকার সন্ত্রা’বিরো’ধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমানের আদালতে তার সাক্ষ্যগ্রহণের কথা ছিল। সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী গোলাম ছারোয়ার খান জাকির।

আসামিরা হলেন- মেজর (বরখা’স্ত) সৈয়দ মোহাম্মদ জিয়াউল হক ওরফে জিয়া, মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন (সাংগঠনিক নাম শাহরিয়ার), আবু সিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব ওরফে সাজিদ ওরফে শাহাব, আকরাম হোসেন ওরফে আবির, মো. আরাফাত রহমান ও শফিউর রহমান ফারাবি।

গত ১৩ মার্চ এ মামলায় আদালতে চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করা হয়। পরে গত ১ আগস্ট অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বিচারকার্য শুরু হয়।

প্রসঙ্গত, ব্লগার, লেখক ও গবেষক ড. অভিজিৎ রায়কে ২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি রাত সোয়া ৯টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পাশে জ’ঙ্গিরা সস্ত্রীক কু’পিয়ে জ’খম করে।

আহতাবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হলে রাত সাড়ে ১০টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মা’রা যান।

পরে ২৭ ফেব্রুয়ারি ড. অভিজিতের বাবা বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. অজয় রায় শাহবাগ থানায় একটি হ’ত্যা মামলা করেন।

চলতি বছরের ১৩ মার্চ ঢাকা মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনসারীর আদালতে ৬ জনের বিরু’দ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের পরিদর্শক মনিরুল ইসলাম। মামলায় সাক্ষী করা হয় ৩৪ জনকে।

ড. ইউনূসকে ৭ নভেম্বরের মধ্যে সারেন্ডারের নির্দেশ

নির্বি’ঘ্নে আদালতে এসে আত্ম’সমর্পণ করতে হাইকোর্ট থেকে সময় পেয়েছেন ৩ মামলার আসামি নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূস। বিমানবন্দরে এসে কোনো প্রকার হয়রা’নি ছাড়া যাতে নির্বি’ঘ্নে আদালতে এসে আত্ম’সমর্পণ করতে পারেন সেজন্য আগামী ৭ নভেম্বর পর্যন্ত সময় দেয়া হয়েছে তাকে।

ওই সময়ের মধ্যে তাকে গ্রেপ্তার বা হয়রা’নি না করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দেশে এসে ৭ নভেম্বরের মধ্যে সুবিধাজনক সময়ে তাকে নিম্ন আদালতে আত্ম’সমর্পণ করতে বলা হয়েছে।

সোমবার ড. ইউনূসের ভাই ড. মুহাম্মদ ইব্রাহিমের করা এক রিট আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে ইউনূসের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সাইফুদ্দিন খালেদ। এর আগে হাইকোর্টের আরেকটি বেঞ্চ ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত ড. ইউনূসকে গ্রেপ্তার না করতে নির্দেশ দিয়েছিলেন।

শেয়ার করুন !
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!