‘শয়’তানের প্ররোচনায় কলিগের সাথে এসব করেছি’- ভিডিও প্রকাশের পর কৃষি কর্মকর্তার দাবি

0

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি:

নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলায় এক কৃষি কর্মকর্তার সঙ্গে তারই অফিসের নারী সহকর্মীর আপ’ত্তিকর ভিডিও প্রকাশ হয়েছে। ১৭ মিনিটের ওই সিসিটিভি ফুটেজে কৃষি কর্মকর্তার সঙ্গে নারী সহকর্মীকে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখা যায়।

এ নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে তোলপাড় চলছে। তাদের ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ১৭ মিনিট ৬ সেকেন্ডের ভিডিওটি এখন সবার হাতে হাতে ঘুরছে। ভিডিওটি প্রকাশিত হওয়ার পর উপজেলা কৃষি অফিসে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। সেই কর্মকর্তা এই ঘটনায় নিজের দায় এড়িয়ে শয়’তানের ঘাড়ে দোষ চাপাচ্ছেন।

ঘটনায় জড়িত উপজেলা কৃষি অফিসের উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন এবং তার নারী সহকর্মীকে পৃথক স্থানে বদলি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, গত ৮ আগস্ট দুপুরে উপজেলা কৃষি অফিসের উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন নিজ কক্ষে তার নারী সহকর্মীকে জড়িয়ে ধরেন। একপর্যায়ে তারা অতিঘনিষ্ঠ সম্পর্কে লি’প্ত হন। তাদের এই সম্পর্কের ঘটনার ১৭ মিনিট ৬ সেকেন্ডের একটি ভিডিও প্রকাশিত হয়। পরে তাদের ওই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে ভাইরাল হয়ে যায়।

ভিডিওতে তাদের দু’জনকে খোলামেলা এবং আপ’ত্তিকর অবস্থায় দেখা যায়। ভিডিওটি প্রকাশের হওয়ার পর স্থানীয়দের মধ্যে সমালোচনা শুরু হয়। যা নিয়ে বন্দর উপজেলাজুড়ে তোলপাড় চলছে।

অবশ্য বিষয়টি স্বীকার করে উপজেলা কৃষি অফিসের উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন বলেছেন, আমি ভুল করেছি। যা করেছি, শয়’তানের প্র’রোচনায় পড়ে করে ফেলেছি, কীভাবে কী হয়ে গেল, বুঝতে পারিনি।

এ বিষয়ে ওই নারীকর্মী বলেন, জয়নাল সাহেব আমার ঊর্ধ্বতন অফিসার। চাকরির ভ’য় দেখিয়ে তিনি আমার ইচ্ছার বিরুদ্ধে অ’নৈতিক কাজ করেছেন। চাকরির ভয়ে আমি চুপ ছিলাম।

বন্দর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ফারহানা সুলতানা বলেন, এ ব্যাপারে আমি কিছু বলতে চাইছি না। ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। তারাই যা ব্যবস্থা গ্রহণ করার করছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা কৃষি কর্মকর্তা কাজী হাবিবুর রহমান জানান, তার বিরু’দ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। এরই মধ্যে জয়নালকে বন্দর উপজেলা থেকে বদলি করা হয়েছে। ওই নারী চাইলে যৌ’ন হয়রা’নির ফৌজদারী মামলা করতে পারেন।

বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান এম এ রশিদ ঘটনা শুনে ও সিসিটিভি ফুটেজ দেখে হতবাক হয়ে বলেন, এ ধরনের অপরাধ মেনে নেয়া যায় না। বিষয়টি তিনি তাৎক্ষণিক জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক আবুল জাহেরকে সাথে নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শুক্লা সরকারকে অ’বহিত করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কৃষি কর্মকর্তাকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার নিদের্শ দেন। বর্তমানে বিষয়টি নিয়ে বন্দর উপজেলায় মুখরোচক আলোচনা চলছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে উপজেলার একাধিক কর্মকর্তা বলেন, নিজ অফিসে অ’নৈতিক কর্মকাণ্ডের কারনে জামালপুরের সাবেক ডিসির শা’স্তি হয়েছে। উপজেলা কৃষি অফিসের জয়নাল শুধু বদলি নয়। তার দৃষ্টান্ত’মূলক শা’স্তির প্রয়োজনর যাতে ভবিষ্যতে কোন নারী সহকর্মীর উপর কেউ এ ধরনের কাজ করতে সাহস না পায়।

বিষয়টি তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান তিনি।

শেয়ার করুন !
  • 692
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!