আ’লীগ নেতা হয়েও উ’চ্ছেদের হাত থেকে রক্ষা পাননি তারা

0

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার বড়হরণ এলাকায় রেলওয়ের প্রায় ৪৮ শতাংশ জায়গা দখ’ল করে দুই আওয়ামী লীগ নেতার বানানো অ’বৈধ মার্কেট উ’চ্ছেদ করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত আশুগঞ্জ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফিরোজা পারভীন রেলওয়ের ভূ-সম্পত্তি বিভাগকে নিয়ে এ উ’চ্ছেদ অভিযান চালান। ৩ বছর আগে নির্মিত ওই মার্কেটটিতে ১০৬টি দোকান রয়েছে।

অভিযানের সময় রেলওয়ের সহকারী ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা মো. অহিদুন নবী, কানুনগো মো. ইকবাল মাহমুদ ও সার্ভেয়ার ফারুক হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার নাটাই দক্ষিণ ইউনিয়নের বড়হরণ এলাকার ভাটপাড়া মৌজার ওই জায়গাটি কৃষিকাজের জন্য মাদ্রাসার নামে বন্দোবস্ত দেয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

কিন্তু সেই জায়গায় কৃষিকাজ না করে বড়হরণ ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার নামে মার্কেট নির্মাণ করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি, মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুস সালাম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এলেম খাঁ ও মাদ্রাসার সুপার সুলতান উদ্দিন আহমেদ। তারা একাধিক দোকান নিয়ে সেগুলো বিক্রি করে দেন।

দখ’লকারীদের একজন বড়হরণ ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপার মো. সুলতান উদ্দিন আহমেদ বলেন, কৃষিজমির নামে জায়গাটি বন্দোবস্ত নিয়েছিলাম। বাণিজ্যিক লিজের জন্য আবেদন করলেও সেটি গ্রহণ করা হয়নি। অবশেষে উ’চ্ছেদ করে দেয়া হলো।

রেলওয়ের সহকারী ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা মো. অহিদুন নবী বলেন, মার্কেট উ’চ্ছেদ করার জন্য দখ’লদারদের আগেই নোটিশ দেয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা জায়গাটি দখ’লমুক্ত করেনি। সেজন্য ভ্রাম্যমাণ আদালত উ’চ্ছেদ অভিযান চালিয়েছেন।

রেলেওয়ের জায়গা অ’বৈধভাবে দখ’লকারীদের বিরু’দ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান রেলওয়ের এই কর্মকর্তা।

বিনা টিকেটে ট্রেনে উঠে জরি’মানা দিলেন রেল পরিচালক!

বিনা টিকিটে ট্রেন ভ্রমণ করার দায়ে এবার ভাড়াসহ জরি’মানা গুণতে হলো বাংলাদেশ রেলওয়ের পাকশী বিভাগীয় দপ্তরের গার্ড ও রেল পরিচালক রুবেল আলীকে।

খুলনা থেকে ছেড়ে আসা ঈশ্বরদী হয়ে রাজশাহী অভিমুখী আন্তঃনগর ৭১৫ নং (আপ) কপোতাক্ষ এক্সপ্রেসের ঈশ্বরদী জংশন স্টেশনের ২নং প্লাটফরমে এ ঘটনা ঘটে।

পাকশী বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুন জানান, গতকাল সকাল থেকেই বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (ডিসিও) আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে ট্রেন যাত্রীদের সুষ্ঠু রেলসেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য অভিযান পরিচালনা করছিল পাকশী রেলওয়ের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এ সময় খুলনা থেকে ছেড়ে আসা ঈশ্বরদী হয়ে রাজশাহী অভিমুখী আন্তঃনগর কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ট্রেনের পরিচালক রুবেল আলী কোনো পাস বা টিকিট দেখাতে না পারায় ঈশ্বরদী থেকে রাজশাহী পর্যন্ত তার কাছ থেকে ভাড়াসহ জরি’মানা আদায় করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এ ব্যাপারে বিভাগীয় ম্যানেজার (ডিআরএম) আহসান উল্লাহ ভূঁইয়া জানান, যে কোনো রেলওয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারী ট্রেনে উঠলে পাস অথবা টিকিট থাকতে হবে। বিনা টিকিটে ভ্রমণ দ’ণ্ডণীয় অপরাধ। ওই ট্রেনের পরিচালক রুবেল আলী পাস কিংবা টিকিট কোনোটাই দেখাতে পারেননি। তাই জরি’মানাসহ ভাড়া আদায় করা হয়েছে।

শেয়ার করুন !
  • 125
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply