জুতা চিনিয়ে দিল খু’নিকে

0

কুমিল্লা প্রতিনিধি:

কুমিল্লার চান্দিনায় উপজেলার শ্রীমন্তপুর এলাকায় হাত-পা বাঁধা অবস্থায় জাকির হোসেন (৪৮) নামে এক নসিমন চালকের ডেডবডি উদ্ধার করে পুলিশ। শুক্রবার রাতের অন্ধকারে কে বা কারা তাকে হ’ত্যার পর শনিবার একটি ডোবার পাশে ডেডবডি ফেলে যায়। শনিবার নিহ’তের মেয়ে নাঈমা আক্তার বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরু’দ্ধে থানায় একটি হ’ত্যা মামলা দায়ের করে।

নিরীহ জাকির হোসেনকে কেন হ’ত্যা করবে বা কারা হ’ত্যা করতে পারে- এ নিয়ে এলাকায় শুরু হয় নানা আলোচনা। হ’ত্যাকাণ্ডের রহস্য উদ্‌ঘাটনসহ হ’ত্যাকারীদের শনাক্ত করতে মাঠে নামে চান্দিনা থানা পুলিশ।

নসিমন চালক জাকির হ’ত্যাকাণ্ডের কোনো সাক্ষী না থাকলেও হ’ত্যাকারীদের শনাক্ত করতে সাক্ষী হলো জুতা! ঘটনাস্থলের কাছাকাছি স্থানে একপাটি রাবারের জুতা পাওয়ার পর ওই জুতাটি ঘিরে শুরু হয় পুলিশের তদন্ত।

স্থানীয়দের তথ্যমতে বের হয়ে আসে ওই জুতার মালিক কে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওই জুতার মালিক শ্রীমন্তপুর গ্রামের আব্বাস আলীর ছেলে সিএনজি চালক ছানাউল্লাহ (২৬) কে আটক করে। ছানাউল্লাহর দেওয়া তথ্যমতে একই গ্রামের আব্দুল এরশাদ এর ছেলে আব্দুল মালেক (২৮) কে-ও আটক করার পর হ’ত্যাকাণ্ডের রহস্যের জট খুলতে থাকে।

তাদের দেওয়া তথ্য মতে জানা যায়, সম্প্রতি জাকির হোসেন এর সাথে সিএনজি কেনা-বেচা নিয়ে ছানাউল্লাহর কথা কাটাকাটি হয়। ওই কথা কাটাকাটির ক্ষো’ভ পুষে রাখে ছানাউল্লাহ। শুক্রবার রাত প্রায় ১টার সময় জমির আইল দিয়ে জাকির হোসেন বাড়ি ফেরার সময় মনের ক্ষো’ভ মিটাতে আক্র’মণ করে ছানাউল্লাহ ও তার সহযোগী মালেক। তার মুখ চেপে ধরে কিল-ঘুষির এক পর্যায়ে হঠাৎ অ-চেতন হয়ে পড়ে জাকির হোসেন।

কিছুক্ষণ পর তারা বুঝতে পারে জাকির হোসেন মা’রা গেছেন। আর হ’ত্যাকাণ্ডটি ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করতে ডেডবডি বাড়ির পাশের ডোবায় ফেলার চেষ্টা করে তারা। ডেডবডি ডোবার পাড়ে নিয়ে যেতেই দূর থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির টর্চের আলো পড়ে তাদের ওপর। দ্রুত ডেডবডি ফেলে পালিয়ে আসে হ’ত্যাকারী মালেক ও ছানাউল্লাহ। এ সময় তাড়াহুড়া করে ঘটনাস্থল থেকে সটকে পড়ার সময় পথিমধ্যে পড়ে থাকে ছানাউল্লাহর বাম পায়ের একটি জুতা।

এমন লোমহ’র্ষক ঘটনার বর্ণনা দিয়ে মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) কুমিল্লার ৭ নম্বর আমলি আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম মাহবুব খানের আদালতে স্টেটমেন্ট দেয় আব্দুল মালেক। তার একদিন পর বুধবার (২০ নভেম্বর) একই আদালতে স্টেটমেন্ট দেয় ঘটনার মূল হোতা ছানাউল্লাহ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মামলা তদন্ত কর্মকর্তা চান্দিনা থানার এসআই গিয়াস উদ্দিন জানান, হ’ত্যাকারীদের তথ্যমতে তারা জাকির হোসেনকে দেখা মাত্রই আক্র’মণ শুরু করে। তাদের এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষিতে মৃ’ত্যু ঘটে জাকির হোসেনের।

আসামিদের আদালতের মাধ্যমে কারাগা’রে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ার করুন !
  • 27
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply