বিএনপির পাগ’লা রিজভীর মৃ’ত্যু নেতাদের অব’হেলায়- বলছেন সমর্থকরা

0

বিশেষ প্রতিবেদন:

রাজধানীর যেখানেই বিএনপির কর্মসূচি হয়েছে প্রায় অধিকাংশ কর্মসূচিতেই দেখা মিলতো রিজভীর। কখনও কাফনের কাপড়ে শরীর মুড়ে, কখনও আবার বিভিন্ন দাবি-দাওয়ার ব্যানারে নিজেকে মুড়িয়ে কর্মসূচিতে হাজির হয়ে যেতেন তিনি। ‘বিএনপি পা’গল’ নামেই তাকে চিনতো সবাই। নেতাদের অব-হেলায় দল অন্তপ্রাণ সেই কর্মীকেই লা’শ হতে হলো।

শনিবার (২৩ নভেম্বর) রাত ১০টা ২০ মিনিটে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে মৃ’ত্যু হয় রিজভী হাওলাদারের। কোনো পদ-পদবি না থাকলেও দলের জন্য নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে যাচ্ছিলেন। অথচ কোনো চিকিৎসা ছাড়া তাকে মৃ’ত্যুর দিকে ঠেলে দেন বিএনপির নেতারা।

জানা গেছে, অ’ভুক্ত অবস্থায় বিএনপি কার্যালয়ে অবস্থান করছিলেন রিজভী। সেখানে অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। বিএনপির বেশ কয়েকজন নেতা সে সময় কার্যালয়ে উপস্থিত থাকলেও কেউ তার সাহায্যে এগিয়ে যাননি। বাধ্য হয়ে রিজভী একাই চিকিৎসার জন্য কাকরাইলে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে যান। সেখান থেকে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে যেতে বলা হয়। এরপর ঢামেক হয়ে নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। কার্যালয়ের সামনেই রিক্সা থেকে পড়ে মৃ’ত্যু হয় তার। বিএনপির অনেক কর্মীই এই মৃ’ত্যুতে ক্ষো’ভ প্রকাশ করছেন।

জানাজায় অংশ নেয়া নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বিএনপি কর্মী বলেন, নেতাদের জন্যই ম’রতে হলো রিজভীকে। সময় মতো তাকে চিকিৎসা দেওয়া হলে অবশ্যই সে বাঁচতো। কিন্তু নেতারা সেটা করেননি। বরং রিজভীকে সবসময় তা’চ্ছিল্য করা হতো। এখন তার মৃ’ত্যুর পর নেতারা মায়া কান্না শুরু করেছেন। এর পুরোটাই অভিনয় ছাড়া আর কিছুই নয়।

জানা গেছে, শনিবার দিবাগত রাত দেড়টায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে তড়িঘড়ি করে রিজভীর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। অনাদরেই তার লা’শটা ফেলে রাখা হয়েছিল কার্যালয়ের সামনে। এরপর জানাজা শেষে রাতেই তার ডেডবডি পটুয়াখালিতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এটা নিয়েও ক্ষু’ব্ধ কর্মীরা। দলের জন্য নিঃস্বার্থভাবে যে কর্মীরা কাজ করেন তাদের যদি এভাবে ম’রতে হয়, তাহলে বিএনপি খুব শিগগিরই বিলু’প্ত হয়ে যাবে বলে মনে করছেন কর্মীরা।

উল্লেখ্য, রিজভী হাওলাদারের বাড়ি পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার ছোট্টকান্দা গ্রামে। তার বাবার নাম আজহার হাওলাদার। নারায়ণগঞ্জের কুতুবপুরে থাকতেন তিনি। তার ১ ছেলে ও ১ মেয়ে রয়েছে। প্রায় প্রতিদিন ভোরে বিএনপি কার্যালয় এলাকায় আসতেন রিজভী হাওলাদার। সন্ধ্যার পর আবার নারায়ণগঞ্জ ফিরে যেতেন।

শেয়ার করুন !
  • 173
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply

error: Content is protected !!