এমপির কল্যাণে বিএনপির ২ নেতা ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি-সম্পাদক

0

পটুয়াখালী প্রতিনিধ:

পটুয়াখালীর কলাপাড়ার ধানখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদক করা হয়েছে বিএনপির সাবেক দুই নেতাকে।

গতকাল রোববার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে উপজেলার ধানখালী ডিগ্রি কলেজ মাঠে আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে পটুয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) মুহিবুর রহমান মুহিব কমিটি ঘোষণা করেন। এ কমিটি ঘোষণার পর থেকে বিত’র্কিত এমপি মুহিব আবারও জেলা, বিভাগ ও দেশজুড়ে আলোচনায় এসেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কয়েকদিন আগে অনুকুল পরিবেশ না থাকায় জেলার নেতৃবৃন্দদের সঙ্গে আলাপ করে ধানখালী আওয়ামী লীগের সম্মেলন স্থ’গিত করে উপজেলা আওয়ামী লীগ। কিন্তু এমপি কমিটি অনুমোদন দিয়ে সম্পূর্ণ গঠনতন্ত্রবিরো’ধী কাজ করেছেন।

জেলা আওয়ামী লীগের (ভারপ্রাপ্ত) সাধারণ সম্পাদক কাজী আলমগীর হোসেন জানান, এমপি সাহেব কাজটা ঠিক করেননি।

উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম রাকিবুল আহসান জানান, যুবদল থেকে সদ্য সেচ্ছাসেবক লীগে যোগ দেয়া আলোচিত শাহজাদা পারভেজ টিনু মৃধাকে সভাপতি এবং বিএনপির সাবেক নেতা জাকির হোসেন মৃধাকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি করা হয়েছে।

ধানখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম বলেন, আমরা সংবাদ সম্মেলনসহ লিখিতভাবে পুরো বিষয়টি জেলা ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে জানিয়েছি। আমাদের দাবি ছিল- দলের হাইব্রিড ও অনু-প্রবেশকারীদের বিরু’দ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে সম্মেলন করার পরিবেশ তৈরির।

এ ব্যাপারে এমপি মুহিবুর রহমান মুহিবের সঙ্গে কথা বলতে তার মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

১১ দাবিতে রাজশাহীতে পাটকল শ্রমিকদের বিক্ষো’ভ

১১ দফা দাবি বাস্তবায়নে বিক্ষো’ভ করেছেন রাজশাহীর পাটকল শ্রমিকরা। সোমবার (২৫ নভেম্বর) কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে পাটকলের সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদ সমাবেশের আয়োজন করে।

বেলা ১১টার দিকে নগরীর কাটাখালি এলাকায় মিলগেটে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে এ সমাবেশ করেন শ্রমিকরা। এতে সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ঘণ্টাখানেক পর শ্রমিকরা রাস্তা ছেড়ে সরে গেলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

বিক্ষো’ভে নেতৃত্ব দেন রাজশাহী পাটকল সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি জিল্লুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক শামীম হোসেন। এ সময় সংগঠনটির সহ-সভাপতি আব্দুল আলীম ও কোষাধ্যক্ষ মোস্তাক হোসেনসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

শ্রমিক নেতারা বলেন, গত ১২ সপ্তাহ থেকে শ্রমিকদের বেতন বন্ধ। ২০১৩ সাল থেকে এখন পর্যন্ত ৫৫০ জন অবসরে গেলেও গ্র্যাচুইটি পাননি।

জাতীয় মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন, সরকারি-বেসরকারি অংশীদারির (পিপিপি) সিদ্ধান্ত বাতিল, অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকাসহ ১১ দফা দাবি বাস্তবায়ন চান শ্রমিকরা।

শেয়ার করুন !
  • 3.1K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এই ওয়েবসাইটের যাবতীয় লেখার বিষয়বস্তু, মতামত কিংবা মন্তব্য– লেখকের একান্তই নিজস্ব। somoyekhon.net-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এর মিল আছে, এমন সিদ্ধান্তে আসার কোনো যৌক্তিকতাই নেই। লেখকের মতামত, বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে somoyekhon.net আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো প্রকার দায় বহন করে না।

Leave A Reply